এসএসকেএম যৌ’ন হে’নস্থা কাণ্ডে এক ডাক্তারকে নীলরতন ও অন্যজনকে কলকাতা মেডিক্যালে বদলি

7118
এসএসকেএম যৌন হেনস্থা কাণ্ডে এক ডাক্তারকে নীলরতন ও অন্যজনকে কলকাতা মেডিক্যালে বদলি
এসএসকেএম যৌন হেনস্থা কাণ্ডে এক ডাক্তারকে নীলরতন ও অন্যজনকে কলকাতা মেডিক্যালে বদলি

এসএসকেএম যৌ’ন হে’নস্থা কাণ্ডে; এক ডাক্তারকে নীলরতন সরকার মেডিক্যাল হাসপাতাল; ও অন্যজনকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বদলি করা হল। স্বাস্থ্য ভবনের তরফে নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে; ক্রিটিকাল কেয়ার ইউনিটের যে অধ্যাপককে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে; তাঁকে নীলরতন সরকার হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে। পাশাপাশি অপরজন যে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে; তাঁকে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দ্রুত ওই দুই চিকিৎসককে; বদলির প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে।

গত ২৭ জানুয়ারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে, যৌ’ন নি’র্যাতন নিয়ে; নালিশ জানিয়েছিলেন নি’র্যাতিতা ওই পড়ুয়া চিকিৎসক। ভবানীপুর থানাতেও অভিযোগ দায়ের; করেছিলেন নি’র্যাতিতা। নি’র্যাতিতা জানিয়েছিলেন, ২০২০ সাল থেকেই; নি’র্যাতনের শিকার হয়েছিলেন তিনি। এই ঘটনার খবর সামনে আসার পর থেকেই; নড়েচড়ে বসে স্বাস্থ্য ভবন। এরপরই স্বাস্থ্য ভবনের নির্দেশে; এই ঘটনার তদন্তের জন্য ১০ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুনঃ ‘অপদার্থ’ এসএসসি আধিকারিকরা, বাংলার ভবিষ্যতের শিক্ষক শিক্ষিকাদের ‘জীবন নিয়ে ছেলেখেলা’

কমিটির কাছে অভিযোগকারিণী ও অভিযুক্ত দুই পক্ষই; তাঁদের বয়ান নথিভুক্ত করে। দুই পক্ষের বয়ান নথিভুক্ত করার পর; এই বিষয়ে গত মে মাসে একটি রিপোর্ট জমা দেয় কমিটি। সেই রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করেই; ওই দুই চিকিৎসককে বদলির নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। ডাক্তারদের কেন বদলি করা হল? তদন্ত কমিটি যৌ’ন হেনস্থার অভিযোগের; কিছু সারবত্তা পেয়েছে বলেই তো? তাহলে এত বড় অপরাধে; এত হালকা শাস্তি কেন?

এসএসকেএম যৌ’ন হে’নস্থা কাণ্ডে এক ডাক্তারকে; নীলরতন সরকারে। ও অন্যজনকে কলকাতা মেডিক্যালে; বদলি করা হয়েছে। এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে; এই দুই হাসপাতালের দূরত্ব কয়েক কিলোমিটারও নয়। কেন এতবড় অভিযোগে; এরকম কম শাস্তি? উঠে গেছে প্রশ্ন। আর যদি ডাক্তার-রা দোষী না হন; তাহলে বদলি কেন?

এর আগেও, কলকাতা মেডিক্যালে ১২ লক্ষ টাকার ইঞ্জেকশন কে’লেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগ থাকলেও; কোন শাস্তি হয়নি তৃণমূল ডাক্তার-বিধায়কের। তৃণমূলের সঙ্গে জড়িত এক ডাক্তার ও অন্য এক নার্সকে; উত্তরবঙ্গে বদলি করে দিয়েই দায় ঝাড়ে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। রাজ্যের শাসকদলের ছত্রছায়ায় থাকলে কি; যতবড় অপরাধই হোক না কেন; নামমাত্র শাস্তি দিয়েই ধামাচাপা দেবে স্বাস্থ্য দফতর? উঠেছে প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন