সরকার ডিগবাজি খেতেই বাস মালিকদের ভোলবদল, সোমবার থেকে রাস্তায় নেই বাস

2988
সরকার ডিগবাজি খেতেই বাস মালিকদের ভোল বদল, সোমবার থেকে রাস্তায় নেই বাস
সরকার ডিগবাজি খেতেই বাস মালিকদের ভোল বদল, সোমবার থেকে রাস্তায় নেই বাস

ভাড়া না বাড়লে রাস্তায় নামবে না বাস; রাজ্য সরকারকে সাফ জানিয়ে দিল বাস মালিকরা। রাজ্য সরকার ডিগবাজি খেতেই; ভোলবদল বাস মালিকদেরও। যার জেরে ঘোষণা মতন; সোমবার থেকে রাস্তায় নেই বাস। সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বিধি মানতে হলে; ২০ জনের বেশি যাত্রী; নেওয়া যাবে না। ঘোষণা ছিল রাজ্য সরকারের। এরপরেই বাস মালিকদের তরফ থেকে ওঠে; ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব। রাজ্য সরকার প্রথমে তা মেনে নিয়ে; বাস মালিকদের হাতেই বাস ভাড়া বৃদ্ধির ক্ষমতা দেয়। নবান্নে ঘোষণাও করে দেন মুখ্যমন্ত্রী। তারপরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদের ঝড় তোলেন; রাজ্যের সাধারণ মানুষ।

মমতা বলছেন, বাসভাড়া ঠিক করবে বাসমালিক; শুভেন্দু বলছেন, বাস ভাড়া বাড়ছে না

তারপরেই বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব; খারিজ করে দেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। শনিবারই বাস মালিকদের বর্ধিত ভাড়ার প্রস্তাব মানা হবে না বলে; জানিয়ে দেন পরিবহণমন্ত্রী। আর রবিবার সন্ধ্যায়, পালটা বেসরকারি বাসমালিকরা রাজ্য সরকারকে জানিয়েছেন; ভাড়া না বাড়ালে কোনও অবস্থাতেই বাস রাস্তায় নামানো সম্ভব নয় তাঁদের পক্ষে। আর তাই, পূর্ব ঘোষণা মত; সোমবার থেকেই পথে নামছে না বাস।

বাসভাড়া ঠিক করবে বাস মালিকরা, আজব সিদ্ধান্ত মমতার

সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বিধি মেনে; মাত্র ২০ জন যাত্রী নিয়ে; কোনও অবস্থাতেই পুরনো ভাড়ায় বাস ও মিনিবাস চালানো সম্ভব নয়। রবিবার স্পষ্ট জানিয়ে দিল; বাস মালিকদের সংগঠন। গত বৃহস্পতিবার নবান্নে পরিবহণ দফতরের পদস্থ আধিকারিকের সঙ্গে; বৈঠক হয় বাস মালিকদের। সেখানে বাসের ন্যূনতম ভাড়া ২০ টাকা; ও মিনিবাসের ন্যূনতম ভাড়া ৩০ টাকা করার প্রস্তাব দেন তাঁরা। বাসমালিকরা জানিয়েছিলেন; সরকারের নির্দেশ মেনে ২০ জন যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে গেলে; এর থেকে কম ভাড়ায় লাভের মুখ দেখা সম্ভব নয়।

রাজ্যের রাস্তায় নামছে বাস, ভাড়া শুনে মানুষের মাথায় হাত

গত বুধবার, নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন; “বাসভাড়া ঠিক করবেন বাস মালিকরা। সেই ভাড়া দিয়ে যে চড়তে পারবে, চড়বে; যে পারবে না, চড়বে না”। মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পরেই শুরু হয়; বিরোধী নেতাদের সমালোচনা ও সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষের প্রতিবাদ। একলাফে তিন গুণ ভাড়া বৃদ্ধিতে; চরম প্রতিক্রিয়া তৈরি হয় মানুষের মনে। প্রশ্ন ওঠে, এমনিতেই মানুষের হাতে যখন টাকা নেই; তখন কী করে বাসভাড়ায় এই বিপুল বৃদ্ধিতে সম্মতি দিল; ‘জনদরদী’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার?

স্বভাব যাবে কোথায়, করোনা উড়িয়ে বাসে ভিড়

এরপরেই সরকারের মুখ বাঁচাতে আসরে নামেন; পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বাস ভাড়া বৃদ্ধির সব দাবি খারিজ করে জানিয়ে দেন; “কোন বাস ভাড়া বাড়ছে না; ওই ভাড়াতেই বাস চালাতে হবে”। পরিবহণমন্ত্রীর সেই নির্দেশ উড়িয়ে দিয়ে; বাস মালিকরা পাল্টা জানিয়ে দিলেন; “২০ জন যাত্রী নিয়ে; ওই ভাড়ায় বাস চালান যাবে না”। তার জেরেই আপাতত কলকাতার রাস্তায় নেই বেসরকারি বাস; ভরসা সেই সরকারি বাসই।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন