বিজেপিকে থামিয়ে, রাজ্যের গদি ধরে রাখতে ভোটের আগে মমতার ‘হিন্দি সেল’

1159
বিজেপিকে থামিয়ে, রাজ্যের গদি ধরে রাখতে ভোটের আগে মমতার 'হিন্দি সেল'/The News বাংলা
বিজেপিকে থামিয়ে, রাজ্যের গদি ধরে রাখতে ভোটের আগে মমতার 'হিন্দি সেল'/The News বাংলা

বিজেপিকে আটকে, রাজ্যের গদি ধরে রাখতে; ভোটের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৈরি করলেন ‘হিন্দি সেল’। বাংলার শহর এবং গ্রামে ছড়িয়ে থাকা; হিন্দিভাষী মানুষকে তৃণমূলের ছাতার তলায় নিয়ে আসার লক্ষ্যেই; এই হিন্দি সেল গঠন করলেন মমতা। টুইটে হিন্দি দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা; দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সরাসরি হিন্দি সেল। রাজ্য জুড়ে ছড়িয়ে থাকা অবাঙালি বাসিন্দাদের উন্নয়নের স্বার্থে; এবং বিজেপি–র বিস্তারকে আটকানোর চেষ্টায়; গত বছরই হিন্দি সেল গঠন করার নির্দেশ দেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার দীনেশ ত্রিবেদীকে মাথা করে; ফের সাজানো হল মমতার হিন্দি সেল।

আরও পড়ুনঃ বিধানসভা ভোটের আগেই পুরোহিতদের ভাতা দেওয়ার কাজ শুরু করছেন মমতা

একুশে বিধানসভা নির্বাচনের আগে; হিন্দুস্তানি মহলে নতুন বার্তা দেবার জন্যই মমতার এই নয়া সিদ্ধান্ত; মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কারণ স্পষ্ট। বিজেপিকে আটকাতে, হিন্দি দিবসের দিনে ফের একবার; হিন্দি সেল তৈরি করল তৃণমূল। এই সেলের চেয়ারম্য়ান করা হয়েছে; প্রাক্তন সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীকে। সভাপতি হলেন বিবেক গুপ্ত। কিন্তু হঠাৎ করে হিন্দি নিয়ে; তৃণমূলের এই তৎপরতায় ‘রাজনীতি’ ও ‘ভোট’ এর গন্ধ পাচ্ছেন বিরোধীরা।

২০২১–এ বিধানসভা ভোটকে সামনে রেখেই; হিন্দি সেলকে নতুন করে গড়ে তুলছে তৃণমূল। পুনর্গঠিত হিন্দি সেলকে কাজের বিস্তার অনুযায়ী; তিনটি স্তরে ভাগ করা হয়েছে। রাজ্য স্তরের কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি; জেলা স্তরের কমিটি এবং ব্লক স্তরের কমিটিতে এবার থেকে কাজ হবে। লক্ষ্য, বাংলার পাশাপাশি হিন্দিকেও সমানভাবে গুরুত্ব দেওয়া। তবে, বড়বাজার-সহ কলকাতার হিন্দি বলয়েই; সীমাবদ্ধ থাকবে না তৃণমূল। জেলায় জেলায় তৈরি হবে হিন্দি সেল।

আরও পড়ুনঃ ৫ টাকার কাজে ১ টাকা কাটমানি নেয় তৃণমূল, জানিয়ে দিলেন খোদ জেলা সভাপতি

কিন্তু হঠাৎ হিন্দি নিয়ে এত হইচই কেন তৃণমূলের? রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছেন; হিন্দি বলয় মানেই বিজেপির ভোট ব্যাঙ্ক। পশ্চিমবঙ্গে ২৯৪ বিধানসভা আসনের মধ্যে; কমপক্ষে ৭০ আসনে হিন্দি ভাষার আধিক্য রয়েছে। বিজেপির ১৮টি লোকসভা আসন জেতার পিছনে; এই ফরমুলা কাজ করেছে বলে বিশেষজ্ঞদের দাবি। সেখানেই এবার আঘাত হানতে চাইছে তৃণমূল। সূত্রের খবর, উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির পাশাপাশি; দুর্গাপুর, আসানসোল-সহ হিন্দি বলয়ে; কাজ করতে চাইছে তৃণমূল।

যদিও “হিন্দি ভাষায় গুরুত্ব দেওয়ার পিছনে; কোনও রাজনীতি নেই”; বলে সাফ জানিয়ে দেন, হিন্দি সেলের চেয়ারম্যান দীনেশ ত্রিবেদী। তিনি মনে করেন, বাংলা সংস্কৃতির মধ্যেই রয়েছে হিন্দি। বাংলা এবং হিন্দিতে পরের বছর; JEE-NEET হওয়ার দাবি জানান তিনি। হিন্দি যে বিজেপি ভোটব্যাঙ্কের একটা ফ্যাক্টর; সে কথা মেনে নিচ্ছেন তৃণমূলের অন্দরের অনেকেই। সে কথা মাথায় রেখেই কি হিন্দি নিয়ে হইচই। এমনটাই মনে করছে বাংলার রাজনৈতিক মহল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন