মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গা পুজো উদ্বোধন করছেন, অমিত শাহ করলেই সেটা রাজনীতি

503
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গা পুজো উদ্বোধন করছেন, অমিত শাহ করলেই সেটা রাজনীতি/The News বাংলা
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গা পুজো উদ্বোধন করছেন, অমিত শাহ করলেই সেটা রাজনীতি/The News বাংলা

মহালয়ার আগের দিন থেকেই; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গা পুজো উদ্বোধন করছেন। কেউ বলে নি; কেন মমতা পুজোর উদ্বোধন করে রাজনীতি করছেন? কেউ প্রশ্ন তোলে নি; এই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা না তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা। তাহলে অমিত শাহ দুর্গা পুজোর উদ্বোধন করলেই; সেটা পুজোয় রাজনীতি কেন? কেন তখন প্রশ্ন ওঠে; এই অমিত শাহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী না বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি? একই ইস্যুতে দুই ব্যক্তির জন্য দুরকম মনোভাব কেন? উঠছে প্রশ্ন।

বাঙালিদের কি হিপোক্রেসি দিনদিন বাড়ছে? নাকি যখন যে শাসক থাকে; তাদের দৃষ্টিতেই দেখা অভ্যেস করে নিয়েছে বাঙালি? বাম আমলে বাম নেতারা; কমিউনিস্ট সূত্র মেনে পুজোর দিকে ঘেঁষতেন না। পুজোর মাধমেও যে বিশাল জনসংযোগ করা যায়; সেটা বাংলার রাজনীতিতে নিয়ে এসেছেন তৃণমূল নেতারাই। সব তৃণমূল নেতা-মন্ত্রী-কাউন্সিলরই কোন না কোন পুজোর সঙ্গে যুক্ত। অতিন ঘোষের মত কেউ কেউ আবার; অসংখ্য পুজোর সঙ্গে যুক্ত।

বামেরা ক্ষমতায় থাকার সময়; দুর্গা পুজোর ত্রিসীমানায় না যাওয়ায়; মুখ্যমন্ত্রী হবার আগে থেকেই সাংসদ ও তৃণমূল নেত্রী; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুজোর উদ্বোধন করতেন। মুখ্যমন্ত্রী হবার পর সেই ক্রেজ আরও বেড়েছে। ২০১১ থেকে ২০১৯; দুর্গা পুজো নিয়ে কোন সমস্যাই ছিল না। পুজোতে একচেটিয়া রাজ ছিল তৃণমূলের। কিন্তু ২০১৯ এ লোকসভা ভোটে বিজেপি বাংলায় ভালো ফল করার পরেই শুরু হয়েছে লড়াই।

বামেদের মত ভুল না করে; দুর্গা পুজোর মত বাঙালিদের এতবড় ‘ইভেন্ট’-কে কাজে লাগাতে উঠে পরে লেগেছে গেরুয়া শিবির। আর তৃণমূলের একচেটিয়া অধিকারে এবার হস্তক্ষেপ করতে উঠে পরে লেগেছে বিজেপি। আর তারপর থেকেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। “বিজেপি দুর্গা পুজো নিয়ে রাজনীতি করছে”; অভিযোগ তৃণমূলের। “তৃণমূল করলে সমাজসেবা; আর বিজেপি করলেই রাজনীতি; এটা কোন দেশী নীতি?”; প্রশ্ন তুলেছে পদ্ম শিবির।

রাজ্যে একমাত্র পুজো উদ্বোধন করতে আসছেন; কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর তাঁর পুজো উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে; পুজো কমিটির মধ্যে বিতর্ক চরমে। কমিটির অনেকের প্রশ্ন; “স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসতেই পারেন। কিন্তু মঞ্চে বিজেপি সভাপতিকে আমরা মানব না”। কিন্তু কাউকে কোনদিন বলতে শুনি নি; “মুখ্যমন্ত্রী আসতেই পারেন; তৃণমূল নেত্রীকে আমরা মেনে নেব না”। তাহলে রাজনীতি কোনটা? বাংলা জুড়ে উঠে গেছে প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন