আনিসুর থেকে ছত্রধর, বাইকে চড়ানোর পরেই জেল খেটেছেন, এবার ফিরহাদের স্কুটিতে মমতা

1149
আনিসুর থেকে ছত্রধর, বাইকে চড়ানোর পরেই জেল খেটেছেন, এবার ফিরহাদের স্কুটিতে মমতা
আনিসুর থেকে ছত্রধর, বাইকে চড়ানোর পরেই জেল খেটেছেন, এবার ফিরহাদের স্কুটিতে মমতা

আনিসুর থেকে ছত্রধর, বাইকে চড়ানোর পরেই জেল খেটেছেন; এবার ফিরহাদের স্কুটিতে মমতা! ফিরহাদ হাকিমের ইলেকট্রিক স্কুটির পিছনে বসে, নবান্ন যাওয়ার পরেই; পাড়ায় চায়ের দোকানে জোর আলোচনা। সেই আলোচনায় উঠে এসেছে, মেদিনিপুরের আনিসুর রহমান থেকে জঙ্গলমহলের ছত্রধর মাহাতো; এই দুজনের নামই। দুজনেই তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে; নিজের বাইকে তুলে ঘটনাস্থলে নিয়ে গিয়েছিলেন। আর ঘটনাচক্রে এই দুজনেই; মুখ্যমন্ত্রী মমতার আমলেই জেল খেটেছেন। সেই নিয়েই আজ চর্চা, পাড়ায় পাড়ায় চায়ের দোকান থেকে; বাংলার রাজনৈতিক মহলে।

সিপিএম থেকে বহিষ্কৃত ডিওয়াইএফ নেতাকে; নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সময় দলে টেনেছিল তৃণমূল। ২০০৭ সালের নভেম্বরে সিপিএমের নন্দীগ্রাম দখল অভিযানের সময়; তৎকালীন বিরোধী দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে, নিজের মোটরবাইকে চাপিয়ে; পাঁশকুড়া থেকে তমলুকে নিয়ে এসেছিলেন আনিসুর রহমান। তারপর থেকেই ‘স্পটলাইট’ ছিল তাঁর উপর। মমতার কাছের নেতা হয়ে ওঠেন আনিসুর।

আরও পড়ুনঃ যোগ্য সম্মান দেয় নি দল, নাইটি পরে প্রকাশ্য রাস্তায় প্রতিবাদে তৃণমূল নেতা

এক সময়ের তৃণমূল নেতা আনিসুর; বর্তমানে বিজেপি-তে। বছর দেড়েক আগে, পাঁশকুড়া ব্লক কার্যকরী সভাপতি তথা পাঁশকুড়া-১ পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি, তৃণমূল নেতা কুরবান খু’নে তার নাম জড়ায়। ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর দলীয় কার্যালয়েই; দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হয়েছিলেন কুরবান। মূল অভিযুক্ত হিসাবে আনিসুরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু তৃণমূল নেতা আফজলের পরিবারই, সম্প্রতি অভিযোগ করেছে যে; শুভেন্দুর বিজেপি যোগের পরে, এই আনিসুরকে ছাড়ানোর জন্য উদ্যোগী হয়েছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

আরও পড়ুনঃ ‘ধ’র্মীয়’ বিজেপি-কে রুখতে ‘ধ’র্মনিরপেক্ষ’ আব্বাস আজ বড় ভরসা বামের

২০০৯ সাল, উত্তপ্ত জঙ্গলমহলে; মমতার ভরসা ছিলেন ছত্রধর মাহাত। মাওবাদীর কার্যকলাপের বিরুদ্ধে, বামফ্রন্ট সরকারের পুলিশি অভিযানের বিরুদ্ধে; ছত্রধরের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা। রাজ্যবাসীর কাছে জঙ্গলমহলে আসার আহ্বান; জানিয়েছিলেন ছত্রধর মাহাতোর জনসাধারণের কমিটি। সাংসদ এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসাবে; সাড়া দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৪০ কিলোমিটার রাস্তা অতিক্রম করে, কাটা রাস্তা পেরিয়ে; কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে; রামগড়ে পৌঁছন ছত্রধর।

মমতার আমলেও জেল খেতে; সম্প্রতি জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন তিনি। আর এবার ফিরহাদ হাকিমের স্কুটিতে মমতা। ইতিমধ্যেই, নারদা মামলায়; সিবিআই নজরে আছেন ফিরহাদ। কয়লা পা’চার কাণ্ডে; তাঁর মেয়ের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়ে নোটিশ দিয়েছে সিবিআই। আর এখন সেই ফিরহাদের স্কুটির পিছনে বসে নবান্ন যাতায়াত করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফিরহাদের অবস্থাও ছত্রধর ও আনিসুরের মত হবে না তো? সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন তুলেছেন; সাধারণ মানুষ। আর সেই পোস্ট শেয়ার করছেন; বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তবে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা বলছেন; “অবাস্তব কথা; মমতা অনেকেরই বাইকে উঠেই, আন্দলন করেছেন; শুধু ওই দুজনেই নয়”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন