‘বাংলায় যারা হিংসা দেখছেন তাঁদের চোখে ন্যাবা হয়েছে’, নবান্নে ঘোষণা মমতার

3721
'বাংলায় যারা হিংসা দেখছেন তাঁদের চোখে ন্যাবা হয়েছে', নবান্নে ঘোষণা মমতার
'বাংলায় যারা হিংসা দেখছেন তাঁদের চোখে ন্যাবা হয়েছে', নবান্নে ঘোষণা মমতার

‘বাংলায় যারা হিংসা দেখছেন; তাঁদের চোখে ন্যাবা হয়েছে’; নবান্নে ঘোষণা মমতার। রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ নিয়ে সরব; রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপি। বাংলার পরে; দিল্লিতে গিয়েও সুর চড়িয়েছেন রাজ্যপাল। দিল্লি সফরে যাওয়ার আগে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে; কড়া সুরে চিঠি দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। ভোট-পরবর্তী হিংসার অভিযোগ প্রসঙ্গে, এদিন নবান্নে এক প্রশ্নের জবাবে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন; “ভোটের পর কোনও হিংসা হয়নি। কারও চোখে ন্যাবা হলে; আমি কী করতে পারি”?

মুখ্যমন্ত্রী মমতা এদিন নবান্নে বলেছেন; “যা হয়েছিল, তা হয়েছে সেই সময়; যখন আইন-শৃঙ্খলার ভার ছিল নির্বাচন কমিশনের হাতে”। একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা এদিন বলেছেন; “সবটাই রাজনৈতিক হিংসা নয়; ব্যক্তিগত শত্রুতার জেরেও এমন কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। কয়েকটি ঘটনা বিচারাধীন; কোনও ধরনের হিংসাকে আমি সমর্থন করি না”। এরপরেই মমতা রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ, খারিজ করে পরিষ্কার বলেছেন; “কারও যদি চোখে ন্যবা হয়; তাহলে কী করতে পারি”?

আরও পড়ুনঃ ১১ বছর বয়সেই কম্পিউটার পোগ্রামিং বই লিখে বিশ্বকে চমকে দিল বাঙালি বালক

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেছেন, “যতই হিংসার কথা বলা হোক; এখানে কোনও হিংসা হয় না। কোনও ধরনের হিংসা হলে; পুলিশকে পদক্ষেপ নিতে বলেছি। এ ধরনের ঘটনা; বরদাস্ত করা হবে না। রাজ্যে সরকারের বিরুদ্ধে, নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ সম্পর্কে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন; “রাজনৈতিক হিংসা নয়; এটা আসলে বিজেপির গিমিক ভায়ো’লেন্স”।

আরও পড়ুনঃ ইতিহাসে প্রথমবার পরীক্ষা না হয়েও, জুলাইয়ে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিকের ফল প্রকাশ

বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ পাল্টা বলেছেন; “রাজ্যে হিংসা অব্যাহত রয়েছে। আদালতের হস্তক্ষেপের পর, কোনও কোনও ক্ষেত্রে; পুলিশের কিছুটা সহযোগিতা মিললেও; এখনও বিজেপির বহু কর্মীই ঘরছাড়া। অনেকে বাড়ি ফিরেই ফের; তৃণমূলের আক্রমণের মুখে পরেছেন”। সেক্ষেত্রে পুলিশ আর কিছুই করছে না; রাজ্য পুলিশ”। বিজেপির এইসব অভিযোগই এদিন; উড়িয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। “যারা এসব দেখছেন; তাঁদের চোখে ন্যাবা হয়েছে”; সব অভিযোগ গঙ্গায় ভাসিয়ে দিলেন মমতা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন