‘অধিকারী পরিবারে কোপ’, শিশির অধিকারীকে সরিয়ে অখিল গিরিকে দায়িত্ব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

408
'অধিকারী পরিবারে কোপ', শিশির অধিকারীকে সরিয়ে অখিল গিরিকে দায়িত্ব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
'অধিকারী পরিবারে কোপ', শিশির অধিকারীকে সরিয়ে অখিল গিরিকে দায়িত্ব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

‘অধিকারী পরিবারে কোপ’; শিশির অধিকারীকে সরিয়ে অখিল গিরিকে দায়িত্ব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়ার পরে; ফের পূর্ব মেদিনীপুরের অধিকারীদের ডানা ছাঁটল; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে; সরিয়ে দেওয়া হল শিশির অধিকারীকে। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব পেলেন; তৃণমূলে অধিকারী পরিবারের সবচেয়ে বড় বিরোধী অখিল গিরি। এই অপসারণ অধিকারী পরিবারের সঙ্গে, তৃণমূলের দূরত্ব; বাড়ার ইঙ্গিত বলেই দাবি রাজনৈতিক মহলের। তবে, তৃণমূল নেতা ও রাজ্যের পুর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছেন; “বয়স হয়েছে তাই শিশির অধিকারীকে; দায়িত্ব থেকে মুক্তি দেওয়া হল”।

শুভেন্দু বিজেপি যোগের পর; কাঁথি পুরসভার প্রশাসকের পদ থেকে; শিশিরপুত্র সৌমেন্দুকে সরানোর সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। ঘটনার জল গড়ায় আদালত পর্যন্ত। রাজ্যের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে; দাদা শুভেন্দুর হাত ধরে বিজেপি যোগ দেন তিনি। তবে এখনও শাসকদলের সৈনিক; শিশির ও দিব্যেন্দু। তা সত্ত্বেও সোমবার রাতে দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের সভাপতির পদ থেকে; শিশির অধিকারীকে অপসারণের নির্দেশিকা জারি করে রাজ্য। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব দেওয়া হয়; অখিল গিরিকে।

আরও পড়ুনঃ ‘ভাইপো’র পর ‘সোনার গোপাল’ বিতর্কে বাংলার রাজনীতি, কে এই ‘সোনার গোপাল’

অধিকারী পরিবারের উপর তৃণমূলের ভরসায়, যে ফাটল ধরেছে; এই অপসারণ তারই ইঙ্গিত বলে মনে করা হচ্ছে। এই নিয়ে এখনও শিশিরবাবুর; কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। বর্তমানে চিকিৎসার জন্য; কলকাতায় রয়েছেন তিনি। অখিল গিরির অভিযোগের পরেই, কাঁথি পুরসভার প্রশাসক পদ থেকে; সরানো হয়েছিল সৌমেন্দু অধিকারীকে। এবার সেই অখিল গিরির জন্যই; বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা শিশির অধিকারীর প্রতি; দলের এই পদক্ষেপ বলে মত প্রকাশ সব মহলের।

দায়িত্ব নিয়েই, অখিল গিরি অভিযোগ করেন; “দীঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্যদের কোন উন্নয়নের কাজ করছিলেন না শিশির অধিকারী। ব্য’ক্তিগত আক্রোশ থেকে; এই পদক্ষেপ নেয়নি তার দল তৃণমূল”। তবে তাতে থামছে না; রাজনৈতিক বিতর্ক। “অধিকারী পরিবারকে তৃণমূল ছাড়া করতেই; মমতার এই পদক্ষেপ”; বলছে বাংলার রাজনৈতিক মহল। তবে সব জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম, বলেছেন; “শিশির অধিকারীর বয়স হয়েছে; তাই তাঁকে রেহাই দেওয়া হল”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন