বালি মাফিয়াদের রুখতে কড়া পদক্ষেপ মমতার, “বালি কয়লা চুরি স্বীকার করলেন মুখ্যমন্ত্রী”, দাবি বিজেপির

1957
বালি মাফিয়াদের রুখতে কড়া পদক্ষেপ মমতার,
বালি মাফিয়াদের রুখতে কড়া পদক্ষেপ মমতার, "বালি চুরি স্বীকার করলেন" দাবি বিজেপির

বালি মাফিয়াদের রুখতে কড়া পদক্ষেপ নিলেন; মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। “বালি কয়লা চুরি স্বীকার করলেন মমতা”; পাল্টা দাবি বঙ্গ বিজেপির। বালি মাফিয়াদের রুখতে কড়া পদক্ষেপ; ‘‌স্যান্ড মাইনিং পলিসি’‌র ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এ রাজ্যে বালির মতো খনিজ সম্পদ মাফিয়াদের রুখতে; কড়া পদক্ষেপ নিল রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার নবান্নে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকের পরেই; স্যান্ড মাইনিং পলিসি চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এদিন ‘‌স্যান্ড মাইনিং পলিসি’‌র ঘোষণা করলেন; মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। জেলা শাসকদের নিলামের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে; মিনারেল মাইনিং পরিষদের হাতে সেই দায়িত্ব তুলে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা।

বালি, সুরকি, মাটি, পাথর ও কয়লার মতো খনিজ সম্পদ; মাফিয়ারা লুঠে নিচ্ছে বলে এদিন অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। সেকারণে প্রাকৃতিক খনিজ সম্পদ বাঁচাতে; নয়া এই পদক্ষেপের ঘোষণা করলেন তিনি। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় নবান্নে বলেন; “জেলাশাসকরা নিলামের জন্য ৫ বছরের বরাত দিলেও; তার চার গুণ বেশি খনিজ সম্পদ নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে মাফিয়ারা। এতে রাজ্যের প্রাকৃতিক সম্পদের; ক্ষতি হচ্ছে। এবার স্যান্ড মাইনিং পলিসি আনুয়ায়ী; এর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মিনারেল মাইনিং কমিটিকে”।

আরও পড়ুনঃ ‘মুসলিম কন্যা’, শিক্ষায় ধর্মীয় সুড়সুড়ি সংসদ সভাপতির

রাজ্যের মুখ্যসচিব ও অর্থসচিবের নজরদারিতে; এবার নিলামের প্রক্রিয়া চালাবে মাইনিং কমিটি। শুধু তাই নয়, নিলাম প্রক্রিয়া চলাকালীন; সিসিটিভি থেকে শুরু করে সমস্ত ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও করা হবে। এর আগে এই সমস্ত খনিজ সম্পদের নিলামের দায়িত্ব ছিল; সংশ্লিষ্ট জেলার জেলাশাসকের উপর। সেখানে ৫ বছরের মেয়াদে, কয়েক গুণ বেশি খনন করে প্রাকৃতিক সম্পদ লুঠের; অভিযোগ বরাবরই উঠে এসেছে।

এবার খনিজ সম্পদ নিলামের সময়, বেআইনিভাবে বাড়তি অর্থ কেউ লুঠ করতে না পারে; সেজন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ভোটের আগেই কয়লা পাচার কাণ্ডের তদন্তে নেমে; ইডি, সিবিআই সক্রিয়ভাবে কাজ করছিল। এই কেলেঙ্কারিতে বিভিন্ন ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক নেতাদের যোগ কতটা; তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

এমনকী এই নিয়ে, তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে; তাঁর স্ত্রীকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিবিআই। এই ঘোষণার পরেই মমতাকে; একহাত নিয়েছেন বিজেপি নেতারা। “বালি কয়লা চুরি স্বীকার করলেন মুখ্যমন্ত্রী”; দাবি বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ও দিলীপ ঘোষের।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন