মোদীর পর অমিতের দরবারে মমতা, রাজীব মুখ খুললে সারদা ও রোজভ্যালিতে ডুববেন দিদি

1508
মোদীর পর অমিতের দরবারে মমতা, রাজীব মুখ খুললে সারদা ও রোজভ্যালিতে ডুববেন দিদি/The News বাংলা
মোদীর পর অমিতের দরবারে মমতা, রাজীব মুখ খুললে সারদা ও রোজভ্যালিতে ডুববেন দিদি/The News বাংলা

মানব গুহঃ দ্বিতীয় মোদী সরকারের শপথ গ্রহনই হোক; আর নীতি আয়োগের বৈঠকই হোক; বা মাওবাদী দমনে মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকই হোক; বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বয়কট করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহকে। ১০০ দিনের বেশি কাটিয়ে ফেলা; মোদী সরকারের ডাকা গুরুত্বপূর্ণ ও প্রশাসনিক কোন বৈঠকেই যাননি মমতা। কিন্তু হঠাৎই নরেন্দ্র মোদীর পর এবার অমিত শাহ এর দরবারে মমতা; কারণ রাজীব কুমার মুখ খুললে যে সারদা ও রোজভ্যালিতে ডুববেন দিদি।

রাজ্যের জন্য মোদী সরকারের ডাকা গুরুত্বপূর্ণ ও প্রশাসনিক; কোন বৈঠকেই যাননি মমতা। সেই মমতা এখন হঠাৎ দিল্লীতে! কিন্তু কেন? এটাই এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন; শুধু বাংলার নয়; ভারতের রাজনৈতিক মহলে। আর উত্তর হিসাবে একটা প্রশ্নই উঠে আসছে; রাজীব কুমারকে সিবিআই এর হাত থেকে বাঁচাতেই হবে। আর তাই প্রধানমন্ত্রী মোদীর পর এবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিতের দরবারে মমতা; রাজীব কুমার মুখ খুললে সারদা ও রোজ ভ্যালিতে ডুববেন দিদি ও তাঁর ভাইরা; এটা তাঁর চেয়ে ভাল কে জানেন।

আরও পড়ুনঃ দিল্লীতে মোদী মমতা বৈঠক, বাংলায় সিবিআই চিটফান্ড তদন্তে ফের গতি কমার আশঙ্কা

২৬ শে আগস্ট ২০১৯; মাওবাদী রুখতে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকা; মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে দিল্লীতে গরহাজির ছিলেন মমতা।
১৫ জুন ২০১৯; দিল্লিতে ‘নীতি আয়োগ’-এর গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে; যাননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
৩০ মে ২০১৯; দিল্লীতে প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান বয়কট করেন মমতা।

লোকসভা ভোট ও প্রধানমন্ত্রীর শপথগ্রহনের পরেও যে; মোদীর সঙ্গে রাজনৈতিক সংঘাতের পথ ছেড়ে বেরিয়ে আসবেন না; তা বারবার বুঝিয়ে দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। লোকসভা ভোটের প্রচার-পর্বে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে; ‘এক্সপায়ারি প্রাইম মিনিস্টার’ আখ্যা দিয়েছিলেন মমতা। প্রধানমন্ত্রী বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকা; কোন বৈঠকেই তিনি হাজির থাকেননি। আর এখন রাজীব কুমারকে সিবিআই এর হাত থেকে বাঁচাতে; কেন দিল্লি ছুটলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী?

সারদা থেকে রোজ-ভ্যালি; সব চিটফান্ড মামলাতেই মমতা ও তৃণমূলের প্রাণ-ভোমরা; চিটফান্ড কাণ্ডের তদন্তের দায়িত্বে থাকা রাজীব। রাজীব মুখ খুললে মমতা ও তৃণমূলের সর্বনাশ। তাই রাজীবকে বাঁচাতেই হবে। যেন তেন প্রকারেন। আর তাই রাজ্যের জন্য নয়; নিজেকে ও নিজের দলকে বাঁচাতেই মোদী ও অমিতের দরবারে ধর্না দিয়েছেন মমতা। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন