করোনা নিয়ে নেতার সঙ্গে ৫০টা জামাতিও বেমালুম উধাও, সন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ

1487
করোনা নিয়ে ৫০টা জামাতি বেমালুম উধাও, সন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ
করোনা নিয়ে ৫০টা জামাতি বেমালুম উধাও, সন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ

তবলিঘি জামাত এর নিজামউদ্দিন সমাবেশে যোগ দেওয়া; এবং সম্ভবত করোনা আক্রান্ত হয়েও; নেতার সঙ্গে ৫০টা জামাতিও বেমালুম উধাও; সন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ। এমন ঘটনায় হইচই পরে গেছে; মুম্বাই সহ গোটা ভারতেই। মহারাষ্ট্র রাজ্য থেকে প্রায় ১৪০০ জামাতি গিয়েছিল; তবলিঘি জামাত এর নিজামউদ্দিন সমাবেশে। এদের মধ্যে ১৩৫০ জনকে; আইসোলেশনে পাঠানো গেলেও; ৫০ জনের কোন সন্ধান পাওয়া যায় নি। বেমালুম উধাও হয়ে গেছে তারা। কোথায় গেল এই ৫০ জন জামাতি? উঠে গেছে প্রশ্ন।

মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ জানিয়েছেন; “তবলিঘি জামাত এর সমাবেশ থেকে; রাজ্যে ফেরা ৫০ জন পলাতক। তাঁদের খোঁজ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, জামাত থেকে ফেরত ১৪০০ জনের মধ্যে; ১৩৫০ জনের টেস্ট করানো হয়েছে। কিন্তু ৫০ জনের ফোন এখনও বন্ধ। দেশমুখ জানান, “পুলিশ কর্মীদের সঙ্গে অভদ্রতা যারা করবে; তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

কিন্তু বারবার ঘোষণা, নির্দেশ, প্রচার সত্ত্বেও এই ৫০ টা জামাতি কোথাও উধাও হয়ে গেল? এটাই এখন আশঙ্কা। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে; দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকাজে জমায়েত করায়; তবলিঘি জামাতের প্রধান মাওলানা সাদ এর বিরুদ্ধে; মামলা দায়ের করেছে দিল্লি পুলিশ। এফআইআর দায়েরের পর থেকেই; তাকে হন্যে হয়ে খুঁজছে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ। যদিও এখনো পর্যন্ত তার খোঁজ মেলেনি।

সাদ ও অন্যান্য জামাতিদের খোঁজে; দিল্লি পুলিশের বেশ কয়েকটি দল উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরনগরেও; অভিযান চালিয়েছে। তল্লাশি চলছে রাজধানী দিল্লিতেও। ১৪টি হাসপাতালের সঙ্গেও; পুলিশ যোগাযোগ করেছে। মাওলানা সাদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযোগ; তিনি নিজামউদ্দিন মারকাজে মানুষকে জমায়েত হতে উৎসাহ দিয়েছেন। করোনা সংক্রমণ রুখতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা; ও বড় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞার সময় তিনি এই কাজ করেছেন। এমনকি, তিনি বাড়ি খালি করে দেওয়ার; দুটি পুলিশি বিজ্ঞপ্তিও অগ্রাহ্য করেন।

নিজামউদ্দিনের ওই ঘটনায় মাওলানা সাদ ছাড়াও; মারকাজের আরও ছয় জনকে খুঁজছে দিল্লি পুলিশ। একটি অডিও টেপে; মাওলানা সাদকে বলতে শোনা যায়; “মসজিদে জড়ো হলে রোগ পয়দা হবে; এই চিন্তা সম্পূর্ণ বাতিল চিন্তা। আপনার যদি এই চিন্তা আসে যে মসজিদে আসার কারণে; মানুষ মারা যাবে তাহলে মৃত্যুর জন্য এর চেয়ে ভালো জায়গা আর হতেই পারে না”। তবে মহামারি ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে মামলা দায়েরের পর; আত্মগোপনে থাকা মাওলানা সাদের দ্বিতীয় অডিওতে; তার সূর সম্পূর্ণ ভিন্ন।

এতে তিনি বলেন, “নিঃসন্দেহে, পৃথিবীতে যা হচ্ছে তা মানুষের অপরাধের ফল। আমাদের ঘরে থাকা উচিত। এটাই সৃষ্টিকর্তার ক্রোধকে শান্ত করতে পারে”। লুকিয়ে থাকা মাওলানা সাদকে সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে; “চিকিৎসকদের পরামর্শ মানুন এবং প্রশাসনের সঙ্গে সহায়তা করুন। কোয়ারেন্টাইনে থাকুন; সে আপনি যেখানেই থাকুন না কেন। এটা ইসলাম বা শরিয়ত বিরোধী নয়”। এদিকে তাঁর মতই উধাও; মুম্বাইয়ের আরও ৫০ জন জামাতি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন