আরব হানাদার-দের দমন করেও, ভারতের ‘ধর্মনিরপেক্ষ ইতিহাসে’ জায়গা পাননি, রাজা বাপ্পাদিত্য রাওয়াল

1622
আরব হানাদার-দের দমন করেও, ভারতের 'ধর্মনিরপেক্ষ ইতিহাসে' জায়গা পাননি, রাজা বাপ্পাদিত্য রাওয়াল
আরব হানাদার-দের দমন করেও, ভারতের 'ধর্মনিরপেক্ষ ইতিহাসে' জায়গা পাননি, রাজা বাপ্পাদিত্য রাওয়াল

আরব হানাদার-দের দমন করেও, ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ ইতিহাসে জায়গা পাননি; মহান হিন্দু রাজা বাপ্পাদিত‍্য রাওয়াল। আধুনিক ঐতিহাসিকরা অনেকেই বলেন; ধর্মনিরপেক্ষতার আড়ালে ভারতের ইতিহাসকে এমনভাবে বিকৃত করা হয়েছে; যা ভারতের হিন্দুদের কল্পনার অতীত। ভারতীয়দেরকে নিজের ইতিহাস; সম্পূর্ণভাবে ভুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। মহান করে দেখানো হয়েছে এমন অনেককেই; যারা ছিলেন ধর্মনিরপেক্ষতার নামে কলঙ্ক। ভারতীয়দের ইতিহাস বইতে শুধু; বাবর, আকবরের কাহিনী পড়ানো হয়। ইতিহাস বইতে পড়ানো হয়; মুঘলরা এসেছিল এরপর ইংরেজরা এসেছিল। তারপর ভারত স্বাধীন; ব্যাস ইতিহাস শেষ। তেমনই এক বীরের কথা; ইতিহাস পড়ায়নি আমাদের। রাজা বাপ্পাদিত‍্য রাওয়াল।

ভারতের ইতিহাস সম্পর্কে একজন ভারতীয় যা না জানে; তার থেকে অন্যদেশের লোকজন বেশি জানে। কারণ ভারতে যে ইতিহাস পড়ানো হয়; তার পুরোটাই বিকৃত। ভারতীয়দের পূর্বপুরুষদের বীরগাঁথা লুকিয়ে রাখা হয়েছে; কংগ্রেস আমলে স্বাধীনতার পর থেকেই। ভারতের তেমনই এক মহান বীর; রাজা বাপ্পাদিত‍্য রাওয়াল; পাঠ্যপুস্তকে যাকে স্থান দেয়নি স্বাধীনতার পরের ভারত। পনেরো শতকের বিভিন্ন লিপিতে (15th century text), বিশেষ করে একলিঙ্গ মহাত্মা (Ekalinga Mahatmya) বা একলিঙ্গ পুরানে (Ekalinga Purana); রাজা বাপ্পাদিত্য রাওয়ালের ঘটনা আছে; যা আমাদের ইতিহাস বইয়ে তোলাই হয়নি কোনদিন।

আরও পড়ুনঃ বাঙালি বিজ্ঞানী, ইংরেজ আমলে পাননি নোবেল, স্বাধীন ভারতে সম্মান জোটেনি বাংলায়

ঘটনা ৭০০ খ্রিস্টাব্দের আশেপাশের; যখন মহম্মদ বিন কাশিম সিন্ধের মুলতান, ব্রাহ্মহনাবাদ এলাকায় কব্জা করে নেয়। রাজা দহীরকে হারানোর পর, হিন্দুদের ছোট ছোট সেনা কাশিমকে আটকাতে পারেনি। মহম্মদ বিন কাশিম সিন্ধে কব্জা করার পর; সেখানকার মহিলাদের আরবে বিক্রি করতে শুরু করে। হিন্দু পুরুষদের ক্রীতদাসে; পরিণত করা হয়। একই সঙ্গে সিন্ধের সব মন্দির; ভাঙতে শুরু করে। অনেকে সিন্ধ ছেড়ে পলায়ন শুরু করেন।

এরমধ্যে কিছু মানুষ পৌঁছে যায় মেবাড়; যেখানে এক মহান হিন্দু রাজার রাজত্ব ছিল। সেই রাজার নাম ছিল বাপ্পাদিত্য রাওয়াল; যিনি গুহিলা রাজবংশ এর রাজা ছিলেন। বাপ্পাদিত্যের পুরো পরিবার ভীল যুদ্ধে মারা যায়। বড় হয়ে এই বাপ্পাদিত্যই; মেবাড় দখল করে নিজের রাজবংশ স্থাপন করেন। মহম্মদ বিন কাশিমের অত্যাচারে, সিন্ধ থেকে পালিয়ে আসা কিছু মানুষের কাছ থেকে; বাপ্পা রাওয়াল সেখানের মানুষের দুঃখ কষ্ট সম্পর্কে জানতে পারেন। সিন্ধকে অধর্ম থেকে মুক্তি দিতে বিশাল সেনা নিয়ে; বাপ্পাদিত্য রাওয়াল পৌঁছে যান সিন্ধে। মহম্মদ বিন কাশিমের বিশাল সেনাও; বাপ্পাদিত্যের সেনার শক্তি দেখে ভয়ভীত হয়ে পড়ে; এবং জলপথে পালাতে শুরু করে।

আরও পড়ুনঃ বিশ্বে প্রথম মাতৃভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছিলেন এক বাঙালি নারী

বাপ্পা রাওয়াল এর সেনা আরবিদের তাড়িয়ে; বেলুচিস্তান পার করিয়ে দেয়। পুরো ভারতে ফের শান্তি ফিরে আসে। গল্প এখানেই শেষ নয়। বাপ্পাদিত্য মেবাড়ে ফিরে আসে। কিন্তু হারের বদলা নেওয়ার জন্য; বিশাল আরবি সেনা দু তরফা হামলা করে। একদিকে মেবাড়ে হামলা; অন্যদিকে জয়সেলমেরে হামলা করে আরবি জেহাদি সেনা। বাপ্পাদিত্য রাওয়াল দ্বিগুণ শক্তি নিয়ে; প্রত্যাঘাত করে। রাজা বাপ্পাদিত্য ও রাজা নাগভট্টর সেনা; ফের খেদিয়ে দেয় আরব সেনাকে।

এরপর বাপ্পা রাওয়াল; মহাসেনা নির্মাণ করার সিধান্ত নেন। আশেপাশের রাজাদের সেনাকে সম্মিলিত করেন; যাতে আরবিদের সঠিক শিক্ষা দেওয়া যায়। নাগভট্ট, বিক্রমাদিত্য দ্বিতীয় এবং অন্যান্য রাজাদের সেনা নিয়ে; মহাসেনা নির্মাণ করে। সেই মহাসেনা নিয়ে বাপ্পা রাওয়াল; আরবের দিকে রওনা দেন। আরবে মহাসেনার প্রথম আক্রমন; আল হাকাম বিন আলাবার উপরে করা হয়। এরপর তামিম-বিন-জেয়েদ, জুনেদ বিন আব্দুল আল নুরির উপর আক্রমণ করা হয়। আরবের যে রাজ্যগুলি থেকে ভারতে আক্রমন করা হত; সেগুলিকে ধূলিসাৎ করে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ হিন্দু মন্দিরে পূজিত হন, ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালাম

এরপর এই মহাসেনা গজনীর দিকে অগ্রসর হয়। গজনীর শাসক সেলিম-আল-হাবিবকে; শেষ করে দেয় মহাসেনা। এরপর প্রায় ৪০০ বছর আরবের জেহাদীরা; ভারতে আক্রমন করার সাহস পায়নি। ভারতীয়দের পূর্বপুরুষদের বীরগাথা লুকিয়ে রাখা হয়েছে; যাতে ভারতীয়রা আসল ইতিহাস সম্পর্কে অন্ধকারে থেকে; আত্মবিশ্বাসহীন, আত্মবিস্মৃত এক দুর্বল জাতিতে পরিণত হয়। এমনটাই মত অনেক; আধুনিক ঐতিহাসিকের।

ভারতের একলিঙ্গ মহাত্মা বা একলিঙ্গ পুরানে; আছে রাজা বাপ্পা রাওয়ালের কথা। সৌদি আরব এমনকি পাকিস্তানের অনেক গ্রন্থাগারে; এখনও রাখা আছে বাপ্পাদিত্য রাওয়ালকে নিয়ে লেখা লিপি। আরব-দের হাত থেকে; চিতোর দুর্গও উদ্ধার করেন এই বাপ্পা রাওয়াল। কিন্তু ভারতের ইতিহাসে স্থান পায়নি; বাপ্পাদিত্য রাওয়ালের সাহসিকতার নজির।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন