রাজ্যের করোনা বিধি ভেঙে, কালীঘাটে গর্ভগৃহে ঢুকে পুজো মন্ত্রী সুজিত বসুর

8930
রাজ্যের করোনা বিধি ভেঙে, কালীঘাটে গর্ভগৃহে ঢুকে পুজো মন্ত্রী সুজিত বসুর
রাজ্যের করোনা বিধি ভেঙে, কালীঘাটে গর্ভগৃহে ঢুকে পুজো মন্ত্রী সুজিত বসুর

রাজ্য সরকারের নিয়ম বিধিনিষেধ, সব সাধারণ মানুষের জন্য, মন্ত্রীর জন্য সব ছাড়। রাজ্য সরকারের করোনা বিধি ভেঙে; কালীঘাটে গর্ভগৃহে ঢুকে পুজো দিলেন রাজ্য সরকারের মন্ত্রী সুজিত বসু। করোনা রুখতে রাজ্য সরকার বিভিন্ন বিধিনিষেধ চালু রেখেছে; যা মেনে চলতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। করোনা সতর্কতার জেরে; দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল কালীঘাট মন্দির। তবে বর্তমানে বিধি কিছুটা শিথিল হওয়ার জেরে; সকাল ৬টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত মন্দির খোলার ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আলিপুরের জেলা বিচারকের নির্দেশ মেনে; কেবলমাত্র মূল মন্দিরের বারান্দা থেকে প্রতিমা দর্শন করতে পারবেন ভক্তরা।

সন্ধ্যা আরতির সময়, যখন মন্দির খোলা থাকে; তখন সেখানে কেবলমাত্র পুরোহিত ও কয়েকজন সেবায়েত থাকতে পারেন। এরপর মায়ের মন্দির; বন্ধ করে দেওয়া হয়। করোনা সংক্রমণ রুখতে, বর্তমানে কালীঘাট মন্দিরের গর্ভগৃহে; দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কিন্তু মন্দির সূত্রের খবর, মঙ্গলবার সন্ধ্যায়; গর্ভগৃহে ঢুকে পুজো দিয়েছেন রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায়; পোস্টও করেছেন তিনি। তারপরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

নিয়ম থাকা সত্ত্বেও, সন্ধ্যার পর কালীঘাট মন্দিরের গর্ভগৃহে ঢুকে; রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু কি করে পুজো দিলেন? শুধু পুজোই দেননি, সেই ছবি সোশ্য়াল মিডিয়ায়; পোস্টও করেছেন। এখানেই প্রশ্ন উঠছে; করোনা বিধি নিয়ে। সন্ধ্যার পর কালীঘাট মন্দিরের গর্ভগৃহে প্রবেশের ক্ষেত্রে; মন্ত্রীদের কি বিশেষ ছাড় রয়েছে?

আরও পড়ুনঃ সিবিআই তদন্ত নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারকে জোর ধাক্কা দিল কলকাতা হাইকোর্ট

মন্ত্রী গর্ভগৃহে ঢুকে কীভাবে পুজো দিলেন; তা নিয়ে মন্দির কমিটি ও সেবায়েত কাউন্সিলের অন্দরেও প্রশ্ন উঠছে। বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের দাবি; “তৃণমূলের সাধারণ কর্মীরাই; আইন মানেন না। সেখানে মন্ত্রী সুজিত বসু; আইন মানবেন কেন”? মন্দির কমিটির কোষাধ্যক্ষ কল্যাণ হালদার বলেন; “মন্ত্রী গর্ভগৃহে পুজো করেছেন কি না; আমি জানি না। তখন মন্দির বন্ধ থাকার; নির্দেশ রয়েছে”।

মন্দির সেবায়েত কাউন্সিলের সম্পাদক দীপঙ্কর চট্টোপাধ্যায় বলেছেন; “ফেসবুকে মন্ত্রীর পুজো করার ছবির বিষয়ে; মন্দির কমিটিকে জানিয়েছি”। গোটা ঘটনায় মন্ত্রীর দাবি; “আমি অনুমতি নিয়েই; পুজো করেছি”। কিন্তু কার কাছে থেকে তিনি অনুমতি নিলেন; কেনই বা তাঁকে নিয়ম ভাঙার অনুমতি দেওয়া হল; তা নিয়ে কিছু জানা যায়নি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন