মোদী সরকারের বড়সড় সিদ্ধান্ত, আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরাও এবার করবেন রোগীর অ’স্ত্রোপ’চার

2319
মোদী সরকারের বড়সড় সিদ্ধান্ত, আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরাও এবার করতে পারবেন অ'স্ত্রোপ'চার
মোদী সরকারের বড়সড় সিদ্ধান্ত, আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরাও এবার করতে পারবেন অ'স্ত্রোপ'চার

ভারতীয় চিকিৎসা ইতিহাসে; যুগান্তকারী পরিবর্তন মোদী সরকারের। মোদী সরকারের বড়সড় সিদ্ধান্ত; আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরাও এবার করবেন রোগীর অ’স্ত্রোপ’চার। এবার হাড়, নাক-কান-গলা ও দাঁতের অ’স্ত্রোপ’চার; করতে পারবেন আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরা। আয়ুর্বেদ চিকিৎসকদের নিয়ে; রীতিমতো বড়সড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের। আর এই সিদ্ধান্তে চিকিৎসা জগতের সঙ্গে যুক্তদের; একটা বড় অংশ বেশ অবাক। এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে; “আয়ুর্বেদ স্নাতকোত্তর বিভাগের পড়ুয়াদের; অ’স্ত্রোপ’চারের অনুমতি দেওয়া হল। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরা; হাড়ের রোগ ও চক্ষু বিজ্ঞান ও নাক-কান-গলা (ইএনটি) এবং দাঁতের সঙ্গে সম্পর্কিত; অ’স্ত্রোপ’চার করতে পারবেন।

কেন্দ্রীয় সরকার আইন সংশোধন করে; আয়ুর্বেদ সার্জনদের কাজের পরিধি বাড়িয়ে দিল। ১৯ নভেম্বর জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুসারে; আয়ুর্বেদিক পিজি কোর্সে এখন থেকে; অ’স্ত্রোপ’চারকে যুক্ত করা হবে। এর সঙ্গে এই অধিনিয়মের নাম বদলে; ‘ভারতীয় চিকিৎসা কেন্দ্রীয় পরিষদ (স্নাতকোত্তর আয়ুর্বেদ শিক্ষা) সংশোধন বিনিয়ম, ২০২০’; করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ “হি’ন্দুত্ব মিথ্যের ভিত্তিতে তৈরি”, বি’তর্কিত বয়ান মিম প্রধান আসাউদ্দিন ওয়াইসির

এখন জেনারেল সার্জারির আওতাভুক্ত; প্রায় সব অ’স্ত্রোপ’চার করতে পারবেন তাঁরা। অ্যাপেনডিক্স বাদ দেওয়া হোক বা দাঁত তোলা; কিংবা টনসিল বা নাকের প্লাস্টিক সার্জারি। এমনকী, কোলেস্টোমি ও হার্নিয়া অ’পারেশনও; করতে পারবেন আয়ুর্বেদে এমএস সার্জনরা। বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের। আয়ুর্বেদ চিকিৎসার সঙ্গে যুক্তরা; দীর্ঘদিন ধরেই অ্যালোপ্যাথির মতোই অধিকার প্রদানের দাবি জানাচ্ছিল।

নয়া বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, আয়ুর্বেদ ছাত্রদের এবার পড়ার সময়ই; অ’স্ত্রোপ’চারের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। পড়ুয়াদের শল্যতন্ত্রর মতো; ডিগ্রি প্রদান করা হবে। আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরা যেখানে এই বিজ্ঞপ্তি নিয়ে খুশি; সেখানে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন; কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের তুমুল বিরোধীতা করেছে। আইএমএ-সভাপতি ডা. রাজন শর্মা বলেছেন; এতে চিকিৎসাক্ষেত্রে একটা খিচুড়ি পরিস্থিতি তৈরি হবে।

আরও পড়ুনঃ বামফ্রন্টে আবার বড়সড় ভাঙন, লাল ছেড়ে গেরুয়াতে ২২ জন দাপুটে বাম নেতা

যদিও, সেন্ট্রাল মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ান মেডিসিনের সভাপতি বলেছেন; “আয়ুর্বেদিক প্রতিষ্ঠানগুলিতে গত ২৫ বছর ধরেই; এই ধরনের অস্ত্রোপচার চলছে। বিজ্ঞপ্তিতে এটাই স্পষ্ট করা হয়েছে যে; এই অস্ত্রোপচার বৈধ। আইনি গেরোয় শল্য চিকিৎসা নিয়ে, পড়াশোনা করা আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকরা; ‘জেনারেল সার্জারি’-র সুযোগ বা অধিকার; কোনওটাই পাচ্ছিলেন না। অর্শ, ভগন্দর, ফিসচুলা বা হাইড্রোসিলের মতো; গুটিকয়েক মামু্লি অ’স্ত্রোপ’চারে আটকে ছিল তাঁদের কাজ।

ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ)-র বঙ্গীয় শাখার সম্পাদক ডা. শান্তনু সেন বলেছেন; “এই আইন শুধু চিকিৎসক বিরোধী নয়; জনবিরোধীও। বর্তমান সরকার; কোয়াক তৈরির কারখানা বানাতে চাইছে। অবিলম্বে এই আইন প্রত্যাহার করতে হবে”। নয়া আইনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন; ‘অল ইন্ডিয়া সার্জিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন’-এর বঙ্গীয় শাখার প্রেসিডেন্ট; অধ্যাপক ডা. মাখনলাল সাহা। তিনি জানিয়েছেন, “এটা অত্যন্ত বিপজ্জনক প্রবণতা। হাতেগোনা কয়েকটি অ্যালোপ্যাথি ওষুধ; প্রেসক্রাইব করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে আয়ুশ চিকিৎসকদের। তাই নিয়ে জেনারেল সার্জারি অসম্ভব”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন