দিল্লীতে মোদী মমতা বৈঠক, বাংলায় সিবিআই চিটফান্ড তদন্তে ফের গতি কমার আশঙ্কা

293
দিল্লীতে মোদী মমতা বৈঠক, বাংলায় সিবিআই চিটফান্ড তদন্তে ফের গতি কমার আশঙ্কা/The News বাংলা
দিল্লীতে মোদী মমতা বৈঠক, বাংলায় সিবিআই চিটফান্ড তদন্তে ফের গতি কমার আশঙ্কা/The News বাংলা

বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন; মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রায় আড়াই বছর পর ফের মুখোমুখি; এই দুই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। মঙ্গলবারই দিল্লি পৌঁছে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের আর্থিক দাবি দাওয়া নিয়ে; প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কথা হবে বলে জানিছেন তিনি। কিন্তু দিল্লীতে মোদী মমতা বৈঠক নিয়েই; সিবিআই চিটফান্ড তদন্তে ফের গতি কমার আশঙ্কা বাংলায়।

দ্বিতীয় দফার মোদী সরকার ১০০ দিন পার করার পরে; প্রথমবার প্রধানমন্ত্রীর মুখোমুখি হবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রায় আড়াই বছর পরে তাঁদের মধ্যে একান্ত বৈঠক হতে চলেছে। বুধবার বিকেলে দিল্লিতে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হবে। গত বছর ২৫ মে বিশ্বভারতীর সমাবর্তনে মমতার সঙ্গে; শেষ বার দেখা হয়েছিল মোদীর। তখন উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। পরে শান্তিনিকেতনেই হাসিনার সঙ্গে; মোদীর একান্ত বৈঠক হয়। মমতাকে সেখানে ডাকা হয়নি। তাঁর সঙ্গে মোদীর শেষ একান্ত বৈঠক হয়েছে; ২০১৭-র ১৯ এপ্রিল দিল্লিতে।

আরও পড়ুনঃ গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক কোন বৈঠকেই যাননি, মোদীর জন্মদিনে কেন দিল্লি হাজির মমতা

২৬ শে আগস্ট ২০১৯; মাওবাদী রুখতে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকা; দশ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে গরহাজির ছিলেন মমতা। ১৫ জুন ২০১৯; দিল্লিতে ‘নীতি আয়োগ’-এর গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে; যাননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৩০ মে ২০১৯; দিল্লীতে প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান বয়কট করেন মমতা। তাহলে এখন কেন? সিবিআই যে চিটফান্ড তদন্তে গতি বাড়াল; সেই কেন দিল্লীতে মোদীর কাছে ছুটলেন মমতা?

মুখ্যমন্ত্রী দিল্লি যাওয়ার আগে নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বলেন; “রাজ্যের বেশ কিছু আর্থিক পাওনা কেন্দ্রের কাছে বাকি রয়েছে। সেগুলি নিয়ে কথা হবে। পিএসইউ; ব্যাঙ্ক সংযুক্তিকরণ; রেল সহ নানা ইস্যু নিয়ে কথা বলার রয়েছে। এছাড়া, রাজ্যের নাম পরিবর্তন নিয়ে; আলোচনা হবে। তাঁর দিল্লি সফরের কারণ যে একমাত্র পশ্চিমবঙ্গের স্বার্থ; তা স্পষ্ট করে দেন মমতা। কিন্তু এতদিন পড়ে বাংলার স্বার্থের কথা মনে পড়ল? প্রশ্ন তুলেছে বাম ও বিজেপিও।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় সারদা কাণ্ডে তৎপর সিবিআই, দিল্লীতে মোদীর কাছে ছুটছেন মমতা

আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবসে বিজেপিকে বিঁধে মমতা টুইটারে লিখেছেন; “দেশে সুপার এমারজেন্সি জমানা চলছে। মানুষের সাংবিধানিক অধিকার ও স্বাধীনতা রক্ষার জন্য যা যা করতে হবে আমরা তা অবশ্যই করব”। এদিকে বাংলায় সিবিআই তদন্ত; এখন গুরুত্বপূর্ণ মোড় নিয়েছে। সারদা চিটফান্ড মামলায় সিবিআই তদন্তের গতি বেড়েছে। সারদা, নারদ মামলায় তলব করা হচ্ছে; রাজ্যের একের পর এক মন্ত্রী ও তৃণমূল নেতাকে।

রীতিমতো চাপে আইপিএস রাজীব কুমার। তাঁকে হন্যে হয়ে খুঁজছে; কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার গোয়েন্দারা। এই আবহে মোদীর সঙ্গে মমতার সাক্ষাৎকার; অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। তবে বাম ও বিজেপির একাংশ কিন্তু পরিষ্কার; বাংলা নয়, সিবিআই-কে ঠেকাতেই মমতার মোদী সাক্ষাৎ। আর বাংলার আমজনতাও ঠিক সেটাই মনে করছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন