সমালোচনার মধ্যেই রেকর্ড আয়ের লক্ষ্যে মোদীর ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’

1107
Image Source: Google
Simple Custom Content Adder

The News বাংলা, কলকাতাঃ মাত্র ১০ দিন আগেই গত ৩১শে অক্টোবর উদ্বোধন হয় বিশ্বের সবথেকে উঁচু মূর্তি ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’র। উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুরু থেকেই, নানান আলোচনা ও বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে সর্দার প্যাটেলের এই মূর্তি। গুজরাট সরকারের হিসাবে, ১০ দিনেই ভালো আয় শুরু করল অনেক ‘প্রশ্নবিদ্ধ’ এই মূর্তি।

গুজরাটের নর্মদা নদীর তীরে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের ১৮২ মিটার (৫৯৭ ফুট) উচ্চতা বিশিষ্ট এই মূর্তির আবরণ উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এটিই এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় মূর্তি। কর্মসংস্থানের দিশা নেই, মূল্যবৃদ্ধির বাজার, অধরা ‘আচ্ছে দিন’- এরই মধ্যে ৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি মূর্তির যৌক্তিকতা নিয়ে সমাজসেবী সংগঠনগুলি ও বিরোধী সব রাজনৈতিক দলই প্রশ্ন তুলেছে।

Image Source: Google

৩০০০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই স্ট্যাচু তৈরিতে গত ৪২ মাসের পরিশ্রমে, ৩৪০০ শ্রমিক এবং ২৫০ জন ইঞ্জিনিয়ার কাজ করে গেছেন। এই বিপুল পরিমান টাকায় স্ট্যাচু না তৈরি করে অন্য আর কোন কোন কাজে লাগানো যেতো, তা নিয়েও সমীক্ষা করে ফেলেছে কয়েকটি সংস্থা। কয়েক মাস ধরেই, কেন্দ্রীয় সরকারের তুমুল সমালোচনা করেছে বিরোধীরা।

আরও পড়ুন: সুলতানকে নিয়ে বিজেপির বিরোধীতার মধ্যেই টানাপোড়েন কংগ্রেস-জেডিএসের

কিন্ত মূর্তি তৈরিতে সরকারের যে আসলে লক্ষ্মীলাভই হয়েছে, তা কয়েকদিন এগোতেই ক্রমশ পরিষ্কার হচ্ছে বলেই জানিয়েছে গুজরাট রাজ্য সরকার। সরকারের দাবী, আর তাতেই নাকি সর্দার মূর্তি নিয়ে মুখ বন্ধ করছে বিরোধীরা।

Image Source: Google

দেখা যাচ্ছে, ৩১শে অক্টোবর মূর্তিটির উদ্বোধনের পর দিন থেকেই উৎসুক পর্যটকরা ভিড় জমাতে শুরু করে। দিওয়ালি এবং গুজরাটি নববর্ষ উপলক্ষ্যে ছুটির দিনগুলোতে ভিড় ছিলো উল্লেখযোগ্য। এই ১০ দিনে রেকর্ড সংখ্যায় মানুষ আসেন এই মুর্তি দেখতে। প্রতিদিন প্রায় ১৫০০০ দর্শক আসবেন আশা করছে গুজরাট সরকার। উৎসবের দিনে দর্শকের সংখ্যা আরও অনেক বাড়বে বলেই আশা করছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন: মোদীর ভারতে সর্দার প্যাটেলের রেকর্ড ভাঙবে ছত্রপতি শিবাজীর মূর্তি

সরকারি হিসেব বলছে, ৬ই নভেম্বর মঙ্গলবার থেকে ১০ই নভেম্বর শনিবার পর্যন্ত মোট ৭৪ হাজার ৬৭১ জন পর্যটক বিশ্বের সর্বোচ্চ এই মূর্তি দর্শন করেছেন। শুধুমাত্র ৯ই নভেম্বর অর্থাৎ শুক্রবারেই ভিড় জমান ২৩ হাজার ৬৬৬ জন পর্যটক। আর তা থেকে চলতি সপ্তাহেই সরকারের মোট আয় হয়েছে প্রায় ১ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা।

Image Source: Google

উল্লেখ্য, সর্দার প্যাটেলের মূর্তি দর্শনের জন্য টিকিটের মূল্য ধার্য করা হয়েছে ব্যক্তি প্রতি ৩৮০ টাকা, যার মধ্যে ৩৫০ টাকা গ্যালারি দেখার জন্য ও ৩০ টাকা বাস পার্কিং থেকে মূর্তি অবধি পৌঁছানোর জন্য। ৩-১৫ বছর বয়সের শিশুদের জন্য টিকিট মূল্য নির্ধারিত করা হয়েছে ২০০ টাকা।

আরও পড়ুন: ভারতে আরও বড় ‘প্রাণঘাতী’ ভূমিকম্প হওয়ার আশঙ্কা

যদিও লিফটে করে ৬০০ ফুট উঁচু মূর্তির প্রায় ৪০০ ফুটের কাছাকাছি উঠে, সর্দার প্যাটেলের মূর্তির বুকের কাছ থেকে নর্মদার সৌন্দর্য না দেখলে শুধু মূর্তি দেখতে আপনাকে দিতে হবে মাত্র ১২০ টাকা, বাচ্চাদের ৬০ টাকা।

Image Source: Google

রাজ্য সরকারের পাশাপাশি পর্যটক বিশেষজ্ঞদের দাবি, যে হারে প্রতিদিন এবং বিশেষ করে ছুটির দিনগুলোতে পর্যটকদের ভিড় উপচে পড়ছে, তাতে খুব শীঘ্রই এই মূর্তি থেকে লাভের মুখ দেখবে রাজ্য।

আরও পড়ুন: মোদী সরকারের কাছে মমতাকে ‘ভারতরত্ন’ দেওয়ার দাবি তুললেন ইদ্রিস

চলতি মরশুমে বিদেশী পর্যটকদের ভিড়ও ছিল দেখার মত। এই বছরেও তাদের সিংহভাগের ভ্রমনের অভিমুখ যে হতে চলেছে ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না, বলেই দাবি রাজ্য সরকারের। সেখান থেকেও প্রতিদিন বেশ কয়েক লক্ষ টাকা রোজগার করবে সরকার।

Image Source: Google

পর্যটক টানার লক্ষ্যে গুজরাট সরকার ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’র ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে এয়ারপোর্ট নির্মাণ ও অন্যান্য পরিষেবা প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে। গুজরাট সরকারের বক্তব্য অনুযায়ী, সরকারের আয় ছাড়াও বহু মানুষ এই মূর্তিকে কেন্দ্র করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: মায়ের পুজোয় মদ বিক্রিতে রেকর্ড গড়ল মমতার বাংলা

আর এই রেকর্ড উপার্জনকে দেখিয়েই এবার বিরোধীদের সব প্রশ্নের উত্তর দিতে আসরে নেমে পরেছে রাজ্য ও কেন্দ্রের বিজেপি নেতারা। তবে, তাতেও ৩০০০ কোটি টাকা ব্যয় করে মূর্তি গড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে যে লোকসভা ভোট পর্যন্ত বিজেপিকে বিরোধী প্রশ্ন ও সমালোচনার মুখে থাকতেই হবে সেটা পরিষ্কার।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন