উষসী কাণ্ডের পর কলকাতায় ফের প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানি, পুলিশের বিরুদ্ধে ফের অসহযোগিতার অভিযোগ

151
উষসী কাণ্ডের পর কলকাতায় ফের প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানি/The News বাংলা/প্রতীকী ছবি
উষসী কাণ্ডের পর কলকাতায় ফের প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানি/The News বাংলা/প্রতীকী ছবি

ভর সন্ধ্যেবেলায় প্রকাশ্যে; ফের হেনস্থার শিকার সাধারণ নাগরিক। রবিবার সন্ধ্যে সাতটা নাগাদ; নিজের বাড়ির পথে শ্লীলতাহানির শিকার হন এক টলিউড অভিনেত্রী। বাড়ির রাস্তায়; চলন্ত বাইক থেকে দুবার তাঁকে হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ। এরপর পুলিশে অভিযোগ দায়ের করতে গেলে; সেখানেও হেনস্থার শিকার হন তিনি। পুলিশের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ করেন ওই টলিউড অভিনেত্রী। যদিও এই ব্যাপারে এখনও কোন মন্তব্য করেনি যাদবপুর থানা।

যাদবপুরের ‘অভিজাত’ এলাকা; বিজয়গড়ে এই ঘটনা ঘটে। জানা যায়; বাইকটি আগে থেকেই ধাওয়া করছিল। প্রথমবার নিজেকে বাঁচাতে সক্ষম হলেও পরে; অশ্লীল আচরণ করা হয় ওই অভিনেত্রীর সঙ্গে। যুবতী; বাইকে থাকা কাউকেই ভাল করে দেখার সুযোগ পায়নি বলে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ কাটমানি খাওয়া কমাতে পঞ্চায়েতে মাইনে বাড়ালেন মমতা

ওই নিগৃহীতার কিছু বোঝার আগেই বাইকটি বেরিয়ে যায়। প্রাথমিক আকস্মিকতা কাটিয়ে; অল্প খোঁজাখুঁজির পর ওই বাইকটি খুঁজে পান নিগৃহীতা। শুধুমাত্র বাইকের শেষ চারটি নম্বর মনে রেখে ছুটে যান যাদবপুর থানায়।

কিন্তু থানায় গিয়ে অন্য পুরান! অভিযোগকারীকেই নানা রকম প্রশ্নে হেনস্থা করেন পুলিশ কর্তৃপক্ষ। কেন নিগৃহীতা কোন রকম স্টিল বা ভিডিও করেননি ঘটনার; কেনই বা তাঁর কাছে বাইকের পুরো নম্বর নেই জানতে চায় পুলিশ কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুনঃ ২০২১ এর ২১ শে জুলাই, ধর্মতলায় আর লোক খুঁজে পাওয়া যাবে না

নিগৃহীতা জানান; ঘটনার সময় শুধু তিনি নয়, বহু পথচলতি মানুষ ঘটনাটি দেখেন। অবশ্য; পথচারীরা কোন রকম সাহায্য করেনি। কিন্তু যুবকরা বাইকে থাকায় কোনভাবেই তাদের ধাওয়া করা সম্ভব হয়নি।

নিগৃহীতা বলেন; ওই মুহূর্তে কোন রকম ফটোগ্রাফি করার কথা তাঁর মাথাতেই আসেনি। খুব তাড়াহুড়োতে শুধুমাত্র বাইকের শেষ চারটি নম্বর মনে রাখা সম্ভব হয়েছিল তাঁর।

সাহায্যের জন্য পুলিশের দ্বারস্থ হয়ে এরকম অভিজ্ঞতা হবে অভিনেত্রী আশাও করেনি। ঘটনায় পুলিসের বিরুদ্ধে অসহযোগীতার অভিযোগ এনেছেন অভিনেত্রী। কর্তৃপক্ষের ব্যবহারে তিনি শহরের নিরাপত্তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেন।

কিছুদিন আগেই প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্ত শ্লীলতাহানি ও হেনস্থার শিকার হন কলকাতার বুকেই। দিন দিন শহরে বেড়েই চলেছে হেনস্থার ঘটনা। কলকাতা কতটা স্বাস্থ্যকর মেয়েদের জন্য; সেই প্রশ্ন থেকেই যায় শেষপর্যন্ত।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন