নিজের লোকসভা ভোটের দিন বেলা অব্দি ঘুমিয়ে মানুষের সেবা করার উদ্যোগ

1115
নিজের লোকসভা ভোটের দিন বেলা অব্দি ঘুমিয়ে মানুষের সেবা করার উদ্যোগ/The News বাংলা
নিজের লোকসভা ভোটের দিন বেলা অব্দি ঘুমিয়ে মানুষের সেবা করার উদ্যোগ/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

একজন দীপক অধিকারী ওরফে দেব। অন্যজন মুনমুন সেন। দুজনেই এবারের লোকসভা ভোটে তৃণমূল প্রার্থী। তবে এর বাইরে এদের মধ্যে মিল কোথায়? এঁরাই ভারতের এমন দুজন প্রার্থী; যারা নিজেদের লোকসভা ভোটে ভোটের দিনও; সকালে উঠেছেন অনেক দেরি করে।

মুনমুন সেন দুপুর ১২ টায়; দেব উঠলেন ২ ঘণ্টা ভোট পেরিয়ে যাবার পর; সকাল ৯ টায়। আমজনতার প্রশ্ন; যারা নিজেদের ভোটেই কর্মী সমর্থক ও অন্যান্য নেতাদের উপর দায় চাপিয়ে নিশ্চিন্তে ঘুমান; তাঁরা করবেন জনগণের সেবা? উঠে গেছে প্রশ্ন।

আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের বহু বুথেই; ভোট শুরুর পর থেকেই গন্ডগোল শুরু হয়। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মুনমুন সেনের কোনও পাত্তাই পাওয়া যায়নি। পরে দুপুরবেলা হঠাৎ সাংবাদিকদের সামনে এসে জানান; ছুটির দিনে তার বেড টি পেতে দেরি হয়ে গিয়েছিল। তাই তিনি বাইরের কোনও খবর রাখতে পারেন নি। উল্টে ভোটে এসব ঝামেলা হয়েই থাকে; বলে আজব যুক্তি উপস্থাপন করেন মুনমুন।

রবিবার ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী; দীপক অধিকারী বা দেবও ঘুম থেকে ওঠেন সকাল ৯ টায়। তারপরেও কোন বুথে যাওয়ার; প্রয়োজন বোধ করেননি তিনি। অনেক পরে ভোট দিতে যান তিনি। ভোট নিয়ে কোন হেলদোল দেখা যায়নি দেবের মধ্যে। উল্টে গরমে ভারতী ঘোষকে; মাথা ঠাণ্ডা রাখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

ঠিক মুনমুনের মতই দেবের ভোট নিয়ে আচরণ দেখে; হতাশ আমজনতা। বিস্মিত রাজনৈতিক মহলও। কেন ভোট নিয়ে তাঁদের মধ্যে কোন মাথাব্যথা নেই। লোকসভা ভোট নিয়ে এত উদাসীন কেন?

এমনিতেই বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের; বিদায়ী সাংসদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ। ভোটে জেতার পর; গত ৫ বছরে খুব কম দিনই বাঁকুড়ায় পা দেবার প্রয়োজন বোধ করেছেন মুনমুন সেন। বিক্ষোভের জেরে; দলনেত্রী তাঁকে বাঁকুড়া থেকে সরিয়ে; আসানসোলে প্রার্থী করতে বাধ্য হন। অন্যদিকে ঘাটালের বিদায়ী সাংসদ দেব; সাংসদ হিসাবে লোকসভায় হাজিরা দিয়েছেন মাত্র ১১ দিন। লোকসভায় সবচেয়ে কম।

আর এবারের ভোটেও তাঁদের আচরণ ও ভোট নিয়ে উদাসীনতা দেখে প্রমাদ গুনছেন আমজনতা। জিতলে এঁরা দুজনেই কি গত ৫ বছরের মত; নিজেদের নিয়েই ব্যস্ত থাকবেন আগামী ৫ বছরও? ইতিমধ্যেই উঠে গেছে প্রশ্ন।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন