“১৫তেই বাচ্চা জন্ম দিতে পারে, মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার কী প্রয়োজন”, প্রশ্ন কংগ্রেস নেতার

2430
"১৫তেই বাচ্চা জন্ম দিতে পারে, মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার কী প্রয়োজন", প্রশ্ন কংগ্রেস নেতার

মেয়েরা যখন ১৫ বছরেই বাচ্চার জন্ম দিতে পারে, তখন ওদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার কী প্রয়োজন? মন্তব্য কংগ্রেস নেতা; সজ্জন সিং ভার্মার। মেয়েদের বিয়ের বয়স নিয়ে; বড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ১৮ বছর থেকে বয়স থেকে বাড়িয়ে; ২১ বছর করার চিন্তা ভাবনা করছে মোদী সরকার। সেইসময় এই বি’তর্কিত মন্তব্য করে; জাতীয় শিশু সুরক্ষা কমিশনের নজরে পড়লেন কংগ্রেস নেতা। সজ্জন সিং ভার্মার বিরুদ্ধে; নোটিশ জারি করেছে শিশু সুরক্ষা কমিশন। দুদিনের মধ্যে বি’তর্কিত মন্তব্য নিয়ে; জবাবদিহি করতে বলা হয়েছে তাঁকে।

মেয়েদের সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য় করে; বিতর্কে জড়ালেন মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস নেতা। সজ্জন সিংহ ভার্মা; ভোপালের কংগ্রেস বিধায়ক। মেয়েদের বিয়ের বয়স নিয়ে, নিজের মতামত দিতে গিয়ে তিনি বলেছেন; “মেয়েরা যখন ১৫ বছরেই বাচ্চার জন্ম দিতে পারে; তখন ওদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার কী প্রয়োজন?” বর্তমানে ভোপালের বিধায়ক ও মধ্য়প্রদেশের প্রাক্তন পূর্তমন্ত্রীর; মেয়েদের সম্পর্কে এই মনোভাবে; শোরগোল পড়ে গেছে গোটা দেশে।

আরও পড়ুনঃ ভারতীয় বিমান বাহিনীতে যুক্ত হচ্ছে, ভারতে তৈরি ৮৩ টি হাল্কা লড়াকু তেজস বিমান

কেন্দ্রের সঙ্গে তাল মিলিয়ে, মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান; মেয়েদের বিরুদ্ধে ঘটা অপরাধ মোকাবিলায়; সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ‘সম্মান’ কর্মসূচির সূচনা করে; মেয়েদের ন্যূনতম বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ বছর করা উচিত বলে জানান। তারপরেই মুখ খোলেন; কংগ্রেস নেতা। প্রাক্তন কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের অনুগামী বলে পরিচিত, ভার্মার সংযোজন; “মেয়েদের ১৮ হলেই শ্বশুরবাড়ি গিয়ে; সুখে, শান্তিতে সংসার করা উচিত”।

সজ্জন সিং ভার্মার দাবি; “১৫ বছর হলেই মেয়েদের; প্রজনন ক্ষমতা হয়; তাহলে বিয়ের বয়সসীমা বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা কী”? তিনি আরও বলেছেন; “ডাক্তারদের মতে, ১৫ বছর বয়সেই; মা হতে পারে মেয়েরা। মুখ্যমন্ত্রী কি ডাক্তার না বিজ্ঞানী! তাহলে কেন মেয়েদের বিয়ে বয়স বাড়িয়ে; ১৮ থেকে ২১ করা হবে”।

এই মন্তব্যের প্রতিবাদ করেছে; সব রাজনৈতিক দল। কংগ্রেসের তরফে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে। জাতীয় শিশু অধিকার কমিশনও; দুদিনের মধ্যে ভার্মার কাছে এই ব্যাপারে সাফাই চেয়েছে। নাবালিকাদের ও আইন সম্পর্কে; এমন বৈষম্যমূলক মন্তব্যের পিছনে কী কারণ; তাও জানাতে বলা হয়েছে তাঁকে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন