মমতা সরষে বিজ ছড়ালেও সিঙ্গুরে ঘাসফুল ছাড়া কিছু হয় নি, কেন বললেন লকেট

346
মমতা সরষে বিজ ছড়ালেও সিঙ্গুরে ঘাসফুল ছাড়া কিছু হয় নি, বললেন লকেট/The News বাংলা
মমতা সরষে বিজ ছড়ালেও সিঙ্গুরে ঘাসফুল ছাড়া কিছু হয় নি, বললেন লকেট/The News বাংলা

মমতা সরষে বিজ ছড়ালেও; সিঙ্গুরে ঘাসফুল ছাড়া কিছু হয় নি, বুধবার একথা বললেন লকেট। সিঙ্গুর নিয়ে সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সিঙ্গুর নিয়ে এবার মমতার ধাঁচেই; আন্দোলনে নামছেন লকেট।

লোকসভা ভোটে জেতার পরই; স্থানীয় বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন; সিঙ্গুরে শিল্প আনার কথা। প্রথম থেকেই তার নজর ছিল; সিঙ্গুরের মাটির দিকে। তাই আরও একবার সেই প্রসঙ্গ টেনে; কটাক্ষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

আরও পড়ুন: বিচ্ছিন্নতাবাদী নেত্রীর সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল মোদী সরকার

বুধবার দিল্লিতে লোকসভায়; তৃণমূল বিজেপি বিতর্কে উঠে এল; সিঙ্গুরের কথা। “সিঙ্গুরে জমি চাষের উপযুক্ত নয়। তাই মুখ্যমন্ত্রী সরষে বিজ ছড়ালেও; সেখানে ঘাসফুল ফুটেছে”। এভাবেই বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রীর জবাবকে লোকসভায় কটাক্ষ করলেন; সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে লকেট বলেন, “সিঙ্গুরের কৃষক চাষ করতে চাইছে না, তা নয়। কিন্তু সেখানকার জমি আর চাষের উপযুক্ত নেই। তিনি লোক দেখানো সরষে ছড়িয়েছিলেন। সরষে হয়নি; ঘাসফুল হয়েছে। আমি আগেও বলেছি; শিল্প হোক। আবারও বলছি টাটা ফিরে আসুক”।

আরও পড়ুন: রোজভ্যালি চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে প্রসেনজিতের পর এবার ইডি গোয়েন্দাদের তলব ঋতুপর্ণাকে

লকেটের দাবি, “মুখ্যমন্ত্রী নিজেও জানেন সিঙ্গুরের জমি চাষের উপযুক্ত নেই। এতদিন স্বীকার করছিলেন না। আসলে উনি কোনও দিন কৃষকের কথা ভাবেননি। নিজের প্রয়োজনে কৃষকদের ব্যবহার করেছেন”।

আরও পড়ুন: হাতে মুখে বন্দুক ধরে হিন্দি গানে নাচ, বিতর্কে বিজেপি বিধায়ক প্রণব সিং

বুধবার বিধানসভায় সুজন চক্রবর্তীর প্রশ্নের উত্তরে; মুখ্যমন্ত্রী জানান, “সিঙ্গুরের ৯৯৭ একর জমির মধ্যে; মাত্র ২৬০ একর জমিতে চাষ হয়েছে। সার, বীজ ও অনুদান দেওয়ার পরেও; সেখানে কৃষকরা চাষ করতে চাইছেন না”। এরপরই মুখ্যমন্ত্রীর বলেন; “চাষিরা কেন চাষ করছেন না, আমি কী করে বলব”?

মুখ্যমন্ত্রীর এই উক্তি থেকে কিছুটা গাফিলতির ভাব ধরা পড়ে; মনে করছে রাজনৈতিক মহল। যেখানে বিজেপি পূর্ণ মাত্রায় চাইছে; সিঙ্গুরে টাটা আসুক। শুধু মাত্র ‘টাটা’ কেন! যেকোনো রকম শিল্প প্রতিষ্ঠানকেই আগমন জানাচ্ছে বিজেপি। সেখানে রাজ্য সরকার এখনও চাষের পক্ষে; যেটা এখন আর সম্ভব নয়। আর এটাকেই হাতিয়ার করে সিঙ্গুর ইস্যুতে লড়াই শুরু করছেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন