রাজ্যপাল, হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ও বিরোধী দলনেতার গাড়ি থেকে নীল বাতি ‘খুলে নিল’ নবান্ন

9666
রাজ্যপাল, হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ও বিরোধী দলনেতার গাড়ি থেকে নীল বাতি খুলে নিল নবান্ন
রাজ্যপাল, হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ও বিরোধী দলনেতার গাড়ি থেকে নীল বাতি খুলে নিল নবান্ন

রাজ্যপাল, হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ও বিরোধী দলনেতার গাড়ি থেকে; নীল বাতি ‘খুলে নিল’ নবান্ন। বেআইনিভাবে লাল-নীল বাতি লাগানো, একের পর এক গাড়ি; ধরা পড়ছে রাজ্যে। এই আবহে শুক্রবার গাড়িতে বাতি-বিধি; জারি করল রাজ্যের পরিবহণ দফতর। কারা বাতি দেওয়া গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন; তা স্পষ্ট করে দেওয়া হল ওই নির্দেশিকায়। তাতে দেখা যাচ্ছে, বাদ পড়েছেন রাজ্যপাল; বিরোধী দলনেতা; কলকাতা পুরসভার মেয়র; বিধানসভার স্পিকার এবং হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি। আর এই নিয়ে শুরু হয়েছে; তুমুল রাজনৈতিক বিতর্ক।

গাড়িতে বাতি লাগানো নিয়ে, নতুন নির্দেশিকা জারি করল; রাজ্যের পরিবহন দফতর। গাড়িতে লাগানো যাবে নাল নীল বাতি বা লাল বাতি। এবার থেকে গাড়িতে লাগানো হবে; মাল্টিকালার বাতির প্যানেল। পরিবহণ দফতরের তরফ থেকে; বার করা হবে নতুন স্টিকার। ১৯৮৯ সালের কেন্দ্রীয় মোটর যান আইনের; সংশোধন করা হল। ২০১৭ সালে কেন্দ্রের পরিবহণ মন্ত্রক; সংশোধনী নির্দেশ জারি করে। সেই বিজ্ঞপ্তিকে মান্যতা দিল; রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুনঃ “আবেগের বশে বলেছি ‘মুসলিম কন্যা’, মেয়েটি বাংলার রত্ন”, সাফাই মহুয়ার

কাদের গাড়িতে বাতি জ্বলবে;
১। মুখ্যমন্ত্রী-সহ রাজ্যের মন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রীরা।
২। মুখ্যসচিব।
৩। অতিরিক্ত মুখ্য সচিব, প্রধান সচিব ও সরকারি দফতরের সচিব।
৪। সংশ্লিষ্ট এলাকার ডিভিশনাল কমিশনার।
৫। রাজ্য পুলিশের ডিজি ও অতিরিক্ত ডিজি।
৬। দমকলের ডিজি।
৭। আয়কর ও শুল্ক দফতরের কমিশনার।
৮। পুলিশের আইজি ও ডিআইজি।
৯। সংশ্লিষ্ট এলাকার জেলাশাসকরা।
১০। সংশ্লিষ্ট এলাকার পুর-কমিশনার।
১১। রাজ্য পুলিশের কমিশনার, অতিরিক্ত কমিশনার, যুগ্ম কমিশনার, ডেপুটি কমিশনার।
১২। বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপার।
১৩। সাব ডিভিশনাল অফিসার ও সাব ডিভিশনাল পুলিস অফিসার।
১৪। পুলিশের প্যাট্রোল কার, এসকর্ট গাড়ি এবং দমকল।

রাজ্য পরিবহণ দফতর সূত্রের খবর; পুলিশের এসকর্টে বাতি ব্যবহার করা যাবে। আর রাজ্যপাল, বিরোধী দলনেতা; এই এসকর্ট পান। সেক্ষেত্রে ব্যক্তিগতভাবে তাঁরা আর; বাতি ব্যবহার করতে পারবেন না। এসকর্ট থাকলেই; সেটা পাবেন। “মুখ্যমন্ত্রী মমতার প্রতিহিংসার রাজনীতি; তাই রাজ্যপালের গাড়ি থেকেও বাতি খোলার নির্দেশ”; এমনটাই অভিযোগ বঙ্গ বিজেপি নেটাদের। “নিয়ম মেনেই নির্দেশ”; পাল্টা জানিয়েছে তৃণমূল। রাজ্য রাজনীতিতে এখন শুরু হল; গাড়ির বাতি নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন