বাজপেয়ীর মত আটকান নি মোদী, পাল্টা ঢুকে গিয়ে চিনের দখলে থাকা জমি দখল ভারতীয় সেনার

4208
বাজপেয়ীর মত আটকান নি মোদী, পাল্টা ঢুকে গিয়ে চিনের দখলে থাকা জমি দখল ভারতীয় সেনার
বাজপেয়ীর মত আটকান নি মোদী, পাল্টা ঢুকে গিয়ে চিনের দখলে থাকা জমি দখল ভারতীয় সেনার

বাজপেয়ীর মত আটকান নি মোদী; পাল্টা ঢুকে গিয়ে চিনের দখলে থাকা জমি দখল ভারতীয় সেনার। কার্গিলে যে অনুমতি দেননি প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী; লাদাখে সেই অনুমতি পেয়ে; চিনের দখলে থাকা ভারতের জমি ফের দখলে নিল ভারতীয় সেনা। ঠিক এমনটাই বলছেন, প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সাধারণ মানুষ। কার্গিলে যে অনুমতি পায়নি ভারতীয় সেনা; লাদাখে সেই অনুমতি থাকায়, চিনকে কাঁপিয়ে দিয়েছে ভারতীয় সেনা। আন্তর্জাতিক যে চাপের ভয় পেয়ে, অটল বিহারী বাজপেয়ী সেদিন ভারতীয় সেনাকে অনুমতি দেননি; সেই চাপ অগ্রাহ্য করে অনেক আগেই সেনাকে ‘খোলা হাত’ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আরও পড়ুনঃ বড়সড় সাফল্য, চিনের লাল ফৌজকে হঠিয়ে লাদাখে গুরুত্বপূর্ণ এলাকা পুনর্দখল করল ভারতীয় সেনা

প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী পারেননি। কিন্তু পাকিস্তানে ঢুকে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে; দেখিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার, লাদাখে চিনের দখলে থাকা, ভারতের জমি পুনরুদ্ধার করল ভারতীয় সেনা। ১৯৯৯ সালে ভারত যখন পাকিস্তানের সঙ্গে শান্তি স্থাপন করতে উদ্যোগী; শুরু হল ভারত-পাক বাসযাত্রা; তখনই বাজপেয়ী ও ভারতের পিঠে ছুরি মেরেছিল পাকিস্তান। শান্তির মাঝেই দখলে নিয়েছিল; কার্গিল পাহাড়। তখন ভারতীয় বিমান বাহিনী, পাকিস্তানে ঢুকে হামলার অনুমতি চেয়েছিল। কিন্তু দেননি প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ী। সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি করেননি; প্রধানমন্ত্রী মোদী।

সরকারিভাবে, কার্গিলের ‘অপারেশন বিজয়’র সাফল‍্যের কথা; ২৬শে জুলাই ঘোষণা করা হয়। এরপর ৬০০ শহিদের বদলা নিতে; ভারতীয় বায়ুসেনা পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি ঘাঁটিগুলিতে; হামলার অনুমতি চান। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকার; সেই হামলার অনুমতি দেননি। কিন্তু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ৪৯ জন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যুর পর; সেই ভুল আর করেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আরও পড়ুনঃ বড়সড় ডিজিটাল স্ট্রাইক, PUBG-সহ ১১৮ অ্যাপ নিষিদ্ধ করে চিনকে শিক্ষা দিল ভারত

পাকিস্তানের মাটিতে ঢুকে; জঙ্গি মারে ভারতের বিমান। সবুজ সংকেতের অপেক্ষাতেই; ছিল ইন্ডিয়ান এয়ারফোর্স। ঠিক যেন সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পুনরাবৃত্তি। তবে এবার মাটিতে নয়; আকাশপথে। পাকিস্তানের মাটিতে ঢুকে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে; ভারতীয় যুদ্ধবিমান। পুলওয়ামা কাণ্ডের বদলা নিতে; এক হাজার কেজি বোমা ফেলে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়; পাক মাটিতে তৈরি হওয়া একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি। হামলার কথা স্বীকার করে নেয় পাকিস্তানও।

লাদাখ সংঘর্ষে, ২০ জন ভারতীয় জওয়ান শহিদ হবার পর; ভারতীয় সেনার ‘হাত খুলে’ দেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। লাদাখ সীমান্তে সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষমতা; ছেড়ে দেওয়া হয়েছে সেনার হাতে। তারই জেরে, চিনের লাল ফৌজকে হঠিয়ে; লাদাখে গুরুত্বপূর্ণ এলাকা পুনর্দখল করল ভারতীয় সেনা। প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণে অশান্তি সৃষ্টির; যোগ্য জবাব পেলো চিন। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় গুরুত্বপূর্ণ প্যাংগং লেকের; উত্তরে ফিঙ্গার ৪ এর একটি স্পর্শকাতর অঞ্চল; দখল করে নিল ভারতীয় সেনা। গত জুন মাস থেকে এখনও অবধি; এই প্রথম সেনা ও স্পেশাল ফ্রন্টিয়ার ফোর্স, ফিঙ্গার ৪-এ এতবড় সাফল্য পেল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন