নরেন্দ্র মোদীকে ভালো সেলসম্যান বলে, লোকসভায় বিতর্কে কংগ্রেস দলনেতা অধীর চৌধুরী

203
সংসদে অধীর চৌধুরীর বিজেপি বিরোধী বক্তব্যকে ঘিরে উত্তেজনা/The News বাংলা
সংসদে অধীর চৌধুরীর বিজেপি বিরোধী বক্তব্যকে ঘিরে উত্তেজনা/The News বাংলা

নরেন্দ্র মোদীকে ভালো সেলসম্যান বলে লোকসভায় বিতর্কে অধীর চৌধুরী। লোকসভায় অধীর চৌধুরীর; বিজেপি বিরোধী বক্তব্যকে কেন্দ্র করে জোর উত্তেজনা। সোমবার দেশে খরা পরিস্থিতি ও শিশু মৃত্যুর বিষয়ে আলোচনা করে; বিজেপির তুমুল সমালোচনা করেন তিনি। আর তারপরেই অধীর চৌধুরীর বিজেপি বিরোধী বক্তব্যকে ঘিরে; জোর উত্তেজনা শুরু হয়ে যায় সংসদে।

শুরুতেই বিতর্কে লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীর চৌধুরী। নরেন্দ্র মোদীকে ভালো সেলসম্যান; বলে লোকসভায় বিতর্কে অধীর চৌধুরী। এরপরেই লোকসভায় এদিন; উত্তেজনা শুরু হয়ে যায়। তর্ক বিতর্কে জড়িয়ে পরেন; কংগ্রেস ও বিজেপি নেতারা। রাষ্ট্রপতির ভাষণে ইতিহাসের বিকৃতি হওয়ার কথা বলে; বিতর্ক বাড়ান অধীর।

মোদী সরকারের বিরুদ্ধে; বিভিন্ন বক্তব্যকে সোমবার তুলে ধরলেন; লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীর চৌধুরী। কিছুদিন পূর্বে লোকসভায় রাষ্ট্রপতি ভাষণের, এদিন জবাবি ভাষণ দেন অধীর চৌধুরী। বুঝিয়ে দিলেন; কংগ্রেস দলের দেশের প্রতি দায় দায়িত্ব এর কথা। অধীর চৌধুরীর বক্তব্যের পরেই; ফের মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে; বিজেপি-কংগ্রেস দ্বন্দ্ব।

তিনি বলেছেন, বিজেপির কোনও সাংসদ এখনও পর্যন্ত; খরা নিয়ে কোন বক্তব্য রাখেননি। সারা দেশের অর্ধেকের বেশি স্থান; জলের অভাবে ভুগছে। কিন্তু এবিষয়ে কোনও বিজেপি সাংসদ; বক্তব্য রাখেননি। বিহারে এনকেফেলাইটিস এর যে দুর্ভোগ শুরু হয়েছে; সে বিষয়েও বিজেপি কোনো কথা বলেননি। সেখানে ১৫০ এর ও বেশি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এক প্রাণসংগ্রাম চলছে বিহারে।

তাঁর বক্তব্য “আইনকে বোকা বানিয়ে; লোকদের চোর বানিয়ে যারা সাংসদ হয়েছেন; তারা কেন সংসদে বসে আছেন? কেন তাদের শাস্তি হয়নি? কেন ম্যাডাম সোনিয়া গান্ধী বাইরে আছেন? যদি তাদের সত্যিই দোষ থাকত তাহলে তাদের শাস্তিও হত”।

বিজেপি ভোট প্রচারের সময় টু-জি বা কয়লা ঘোটালার কথা বলেনি। তার কারণ সেই কান্ড এখন অতীত। এই প্রসঙ্গ টেনেই তিনি মোদীকে বললেন, ‘ভালো সেলসম্যান’। অধীরের বক্তব্য; ‘সেলস’ হয়নি বলে তারা জেতেননি। নরেন্দ্র মোদীর হয়েছে; তাই বিজেপি জিতেছে।

অধীর ব্লেন; কংগ্রেস মাননীয় রাষ্ট্রপতির সমালোচনা করতে চায় না। তবে দেশের বিভিন্ন সমস্যার দিকে যাতে; রাষ্ট্রপতি নজর দেন সেই কথাই বলা হচ্ছে। আরও বলেন, “রাষ্ট্রপতির ভাষণ কেন্দ্র দ্বারা নিয়ন্ত্রিত; ভাষণ অন্তঃসারশূন্য”। এরপরেই শুরু হয়ে যায়; বিজেপি ও কংগ্রেস নেতাদের মধ্যে জোর বাক-বিতণ্ডা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন