মোবাইল থেকে টুনি বাল্ব, জামা গেঞ্জি থেকে টিভি, চিনা মালে আমাদের বাজারগুলো ভরে যাচ্ছে কেন

2151
মোবাইল থেকে টুনি বাল্ব, জামা গেঞ্জি থেকে টিভি, চিনা মালে আমাদের বাজারগুলো ভরে যাচ্ছে কেন
মোবাইল থেকে টুনি বাল্ব, জামা গেঞ্জি থেকে টিভি, চিনা মালে আমাদের বাজারগুলো ভরে যাচ্ছে কেন

ফের ভারতবাসীর মোবাইলে চিনা পণ্য বয়কটের ডাক। চিনের ৪২ টি মোবাইল অ্যাপস কালো তালিকায়। দেশপ্রেমী হয়ে আমরা; ডিলিট করেছি সেই অ্যাপস গুলি। দীপাবলিতে প্রদীপ কিনেছি; চিনের টুনি লাইট না কিনে। কিন্তু তাতেও আটকানো যাচ্ছে না চিনকে। শুধু ভারত কেন; গোটা বিশ্বের বাজার দখল করে নিয়েছে চিন। আমরা কেন পারি না? মোদীর ‘Make In India’ কি পারবে; চিনের সঙ্গে পাল্লা দিতে? প্রশ্ন তুলেছেন মানুষ।

আরও পড়ুনঃ মানুষকে ঠকিয়ে ভরতের বাজার দখল করার, নতুন পরিকল্পনা চিনের

আচ্ছা বলুন তো; চিনা মালে আমাদের বাজারগুলো ভরে যাচ্ছে কেন? মোবাইল থেকে টুনি বাল্ব, জামা গেঞ্জি থেকে টিভি; সবই কেন মেড ইন চায়না?’ প্রশ্নটা কখনও করা হয়নি, সেটা অকারণে নয়। কারণ, এই প্রশ্নের উত্তর; এই ভারতবর্ষের কাছে নেই। কিন্তু, অনেকের মোবাইলে, হোয়াটস্যাপ-ফেসবুকের মেসেজে আছে চিনা পণ্য বয়কট করে; ভারতীয় জিনিস কেনার জাতীয়তাবাদী আহ্বান। দীপাবলিতে চিনা আলো না কিনে; প্রদীপ জ্বালানোর বার্তা তাঁরা পেয়েছেন ও পাঠিয়েছেন। চিন চিরশত্রু; আমরা জানি। বামেরা ছাড়া; দেশের নেতারাই তা জানিয়েছেন। কিন্তু শত আহ্বানেও কেন চিনকে আটকানো যায় না? সে কথা তাঁদের কেউ বলেননি।

আরও পড়ুনঃ চীনের ৪২টি মোবাইল অ্যাপস বিপদজনক, মোবাইল থেকে চীনের অ্যাপসগুলি বাদ দিন

গোটা দুনিয়ার সব বাজারেই; চিনের জিনিসের একাধিপত্য। আর, আর্থিক সংস্কারের পর থেকে ভারত কখনওই; উৎপাদনের দিকে তেমন জোরই দেয়নি। কাজেই, চিনের সঙ্গে উৎপাদনের লড়াই করতে চাওয়ার ইচ্ছেটা; এখন অবাস্তব। তবুও, প্রধানমন্ত্রী মোদী ঘোষণা করলেন ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’; ভারতে ভারতের জিনিসের উৎপাদনের ওপর জোর দেওয়ার প্রকল্প। ভারতে শিল্প-উৎপাদন বাড়লে; তাঁর চরম বিরোধীও আপত্তি করবেন না। কিন্তু সেই পরিকল্পনা কার্যকর করার পরিকল্পনা কোথায়?

আরও পড়ুনঃ চীনের জিনিস বয়কট করার ডাক দিলেন ৩ ইডিয়েটসের ফুংসুক ওয়াংড়ু

চিনের সঙ্গে অনর্থক প্রতিযোগিতা না করে; বরং আমরা চেষ্টা করা উচিত উৎপাদনে এত বছরের পিছিয়ে থাকা অবস্থান থেকে; একটু একটু করে সামনের দিকে এগোতে। সামনের দিকে তাকাতে। কিন্তু, সম্পূর্ণ অ-প্রশিক্ষিত মানুষের ভরসায় কী ভাবে; ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ হবে? কী ভাবেই বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স-এর মতো নতুন এবং সর্বব্যাপী প্রযুক্তির বাজারে; ভারত নিজের জায়গা করে নেবে? এ প্রশ্ন কেউ তুলছেন না।

আরও পড়ুনঃ পাক হাইকমিশনের অফিসার হয়ে এসে গুপ্তচরবৃত্তি, দুই পাকিস্তানিকে তাড়াল মোদী সরকার

আর এই প্রশ্ন গুলিরই উত্তর ভাবতে হবে সরকারকে? অর্থনীতির ঘাড়ে রাজনীতিকে চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা; সবার আগে বন্ধ করতে হবে। মোদীর ‘Make In India’ তখনই সফল হতে পারে; যদি স্কিল ইন্ডিয়া ও স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া-র মতো প্রকল্প গুলতে আরও জোর দিতে পারা যায়। স্কিলড ম্যান পাওয়ার দিয়ে; উৎপাদন না বাড়াতে পারলে; মোদীর ‘Make In India’ ও সফলতার মুখ দেখবে না; আর চিনের জিনিসকেও সহজে বাজার থেকে হঠান যাবে না।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন