“মু’সলিম দেশে যোগ দিবস হবে না”, ‘আ’ল্লাহ হু আ’কবর’ বলে ভারতের যোগ দিবসে হা’মলা

46
"মু'সলিম দেশে যোগ দিবস হবে না", 'আ'ল্লাহ হু আ'কবর' বলে ভারতের যোগ দিবসে হা'মলা
Simple Custom Content Adder

“মু’সলিম দেশে যোগ দিবস হবে না”; ‘আ’ল্লাহ হু আ’কবর’ বলে ভারতের যোগ দিবসে হা’মলা”। মাসখানেক আগে, বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মার সত্যি কথা নিয়ে যারা উ’ত্তাল হয়ে উঠেছিলেন; আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে তাদের ধ’র্মের মানুষের হা’মলা নিয়ে কেন উদাসীন তারা? মালদ্বীপের রাজধানীতে যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে ভারতীয়দের আ’ক্রমণ; ফুটবল স্টেডিয়ামে ভাঙ’চুর উন্ম’ত্ত মুস’লিম জনতার, বন্ধ অনুষ্ঠান।

বিশ্বের সিংহভাগ দেশেই, ২১ জুন দিনটিকে; আন্তর্জাতিক যোগ দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়। ২১ জুনকে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস হিসেবে চিহ্নিত করতে; রাষ্ট্রসংঘের ভোটাভুটিতে যে ১৭৭টি দেশ সায় দিয়েছিল; তার মধ্যে অন্যতম ছিল ইস’লাম অধ্যু’ষিত দেশ মালদ্বীপ। সেইমতো এতদিন ধরে প্রতি বছর এই বিশেষ দিনে, আয়োজিত হয় অনুষ্ঠান; তত্ত্বাবধানে ভারতীয় হাই কমিশন। এ বছরও তার ব্যতিক্রম হয়নি। রাজধানীর মালের ন্যাশনাল ফুটবল স্টেডিয়ামে; যোগচর্চায় যোগ দিয়েছিলেন বহু মানুষ। কিন্তু আচমকাই তাল কাটল।

আরও পড়ুন; জেনে নিন কিভাবে ‘অনায়াসে’ জিতে, দেশের প্রথম আদিবাসী মহিলা রাষ্ট্রপতি হবেন দ্রৌপদী মূর্মু

পতাকা, পোস্টার নিয়ে হইহই করতে করতে, ‘আ’ল্লাহ হু আ’কবর’ বলে; ফুটবল স্টেডিয়ামে ঢুকে পড়ল প্রচুর মুস’লিম ধ’র্মের মানুষ। “মু’সলিম দেশে যোগ দিবস হবে না; যোগাভ্যাস বন্ধ করতে হবে”; এই দাবিতে তুমুল উত্তে’জনা শুরু হয় সেখানে। ভারতীয় কূটনীতিকদের রীতিমতো হু’মকির মুখে পড়তে হয়; চূড়ান্ত বিশৃ’ঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চাইলেও তাতে ব্যর্থ হয় মালদ্বীপের পুলিশ। বন্ধ করে দিতে হয় অনুষ্ঠান।

ঘটনার ভিডিও ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে; গোটা বিশ্ব জুড়ে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ইস’লামের পতাকা হাতে; মাঠে ঢুকেছে কয়েকজন। যাঁরা যোগাসন করছিলেন, তাঁদের উপর হা’মলা চলে; যোগের ম্যাটে আ’ছড়ে পড়ে লাঠি। আশপাশে ছোটখাটো খাবারের দোকানেও ভাঙ’চুর চলে। না গোটা বিশ্বের মুস’লিম মানুষরা; এখন অব্দি একটা শব্দ বলেননি প্রতিবাদে; কোথাও বিক্ষো’ভ মিছিল হয়নি।

আসলে ক’ট্টরপ’ন্থী ইস’লামিকদের বিশ্বাস; যোগাসন মানে সূর্যের উপাসনা। কিন্তু ইস’লাম ধ’র্মে পুজো কিংবা উপাসনা তো নি’ষিদ্ধ। তাই যোগচর্চা তাদের ধ’র্মে নি’ষিদ্ধ; তাই দেশেও কাউকে এটা করতে দেওয়া হবে না। মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মহম্মদ সোলি টুইট করে জানান; “পুলিশ ইতিমধ্যেই এই নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। এটা খুবই গুরুতর ঘটনা; দোষীদের অবিলম্বে বিচার প্রক্রিয়ার আওতায় আনা হবে”।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন