পদ্ম নয়, বিশেষ ফুলে দুর্গা পুজো হয় মিত্রবাড়ির পুজোয়

523
পদ্ম নয়, বিশেষ ফুলে দুর্গা পুজো হয় মিত্রবাড়ির পুজোয়/The News বাংলা
পদ্ম নয়, বিশেষ ফুলে দুর্গা পুজো হয় মিত্রবাড়ির পুজোয়/The News বাংলা

পদ্ম নয়; এক বিশেষ ফুলে পূজিত হন কলকাতার মিত্রবাড়ির মা দুর্গা। ঐতিহ্য-সাবেকিয়ানার মিশেল মিত্র বাড়িতে; অভিনব সাজে সেজে ওঠেন উমা। রীতি অনুযায়ী উত্তর কলকাতার এই বাড়িতে; ২১২ বছর ধরে ১০৮টি পদ্মফুলে নয়; বংশপরম্পরায় ১০৮টি অপরাজিতায় দেবী দুর্গার পুজো হয়।

পুজোর রীতি শুধুমাত্র মায়ের জন্য উৎসর্গ করা ফুলই নয়; কুলের আচার ও আট রকমের বড়ি দিয়ে মাকে নৈবেদ্যও দেওয়া হয়। প্রথম কুল ওঠার পর সেই কুল দিয়ে; আচার বানানো হয় মায়ের জন্য। পুজোতে মিষ্টির বৈচিত্র্যও আলাদা রকমের।

আরও পড়ুনঃ রামনবমী ও দুর্গা পুজোর পর, এবার গণেশকে নিয়েও টানাটানি তৃণমূল বিজেপির

মায়ের প্রসাদের আয়োজনে এখানে প্রায় আট থেকে দশ রকমের নাড়ু হয়। এছাড়াও বিভিন্ন রকমের নারকেলের মিষ্টি ও গজা বাড়িতেই তৈরি করা হয়। এই সব মিষ্টি বানান বাড়ির মহিলারাই। উত্তর কলকাতার বনেদি বাড়ির পুজোগুলির মধ্যে অন্যতম এই মিত্রবাড়ির পুজো।

পুজো আসতে আর বাকি হাতে গোনা কয়েকটা দিন। উত্তর কলকাতার বিখ্যাত রাস্তা নীলমণি মিত্র স্ট্রিট; তাঁর ছেলে রাধাকৃষ্ণ মিত্র এই পুজোর প্রবর্তন করেন। বর্তমানে মানবেন্দ্র কৃষ্ণ মিত্রের কোনও পুত্র সন্তান না থাকায়; তার তিন মেয়ে এই পুজো পরিচালনা করেন।

মানবেন্দ্র কৃষ্ণ মিত্রের কন্যা অনুশুয়া বিশ্বাস জানান; ‘একটা বৈশিষ্ট্য রয়েছে এই বাড়ির প্রতিমায়। দুর্গা, লক্ষ্মী, সরস্বতীর মূর্তি হয় দেবীমুখ অর্থাৎ টানা টানা চোখের প্রতিমা। এবং কার্তিক ও অসুরের মুখ হয় মানুষের মুখের আদলে। প্রতি বছরই দুর্গার মূর্তি একই ছাঁচে বানানো হয়’।

কুমোরটুলির নির্দিষ্ট জায়গা থেকে বংশপরম্পরায় এই প্রতিমা বানানো হয়ে আসছে। এবারে প্রতিমা করেছেন শিল্পী অসিত মুখোপাধ্যায়। এখানে সপ্তমী, অষ্টমী ও নবমী তিনদিন ধরে চলে কুমারী পুজো। তারপর দশমীর দিনে পান; মাছ খেয়ে বাড়ির মহিলারা মাকে বরণ করেন।

এখানে আগে প্রতি দুর্গাপুজোয় পাঠা বলি দেওয়া হত। কিন্তু একবার বলির সময়; রাজকৃষ্ণ মিত্রের পায়ের কাছে একটা ছাগল চলে আসে। সেই থেকে এখানে বলি বন্ধ হয়ে গেছে। পুজোর শেষে সিঁদুর খেলায় মাতেন বাড়ির মেয়ে বউরা; বাদ যায় না প্রতিবেশীরাও। প্রথা মেনেই বাড়ির পুরুষরা আজও সাদা ধুতি পড়ে উড়নি গায়ে; প্রতিমা বিসর্জন দিতে যান।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন