“সামাজিক দূরত্ব” নয়, বলতে হবে “শারীরিক দূরত্ব”, মমতার দাবি মেনে নিল কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক

1798
"সামাজিক দূরত্ব" নয়, বলতে হবে "শারীরিক দূরত্ব", মমতার দাবি মেনে নিল কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক

“সামাজিক দূরত্ব” নয়, বলতে হবে “শারীরিক দূরত্ব”; মুখ্যমন্ত্রী মমতার দাবি মেনে নিল; কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক। “সামাজিক দূরত্ব” নয়, বলতে হবে “শারীরিক দূরত্ব”; সবার আগে দাবি তুলেছিলেন; বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই দাবি মেনে নিল মোদী সরকার। করোনা পর্বের এতদিন পর, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি মানল; কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক। এবার থেকে করোনা বিধির ক্ষেত্রে; দেশ জুড়ে ব্যবহৃত হবে শারীরিক দূরত্ব। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা পথ দেখালেন; মোদী সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রককে। তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন; এই খবর জানিয়েছেন। কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের তরফে; তাঁকে চিঠি দিয়ে এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।

তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ তথা ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট শান্তনু সেন; এই সংক্রান্ত বিষয়টি সংসদেও তোলেন। শেষপর্যন্ত তৃণমূল সাংসদের দাবি মেনে নিল কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, এবার থেকে সোশ্যাল নয়; ফিজিক্যাল ডিসটেন্সিং কথাটি দেশজুড়ে ব্যবহৃত হবে। শান্তনুবাবু বলেছেন, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথম সামাজিক দূরত্ব নয়, শারীরিক দূরত্ব; বজায় রাখার কথা ব্যবহার করেন। এখন থেকে গোটা দেশ তাই বলবে”।

আরও পড়ুনঃ “নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসুর মতই, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কোণঠাসা করার চেষ্টা হচ্ছে বাংলায়”

করোনা আবহের শুরু থেকেই, ‘সামাজিক দূরত্ব’ শব্দটি চালু হয়। করোনা সংক্রমণ রুখতে এই সামাজিক দূরত্ব বা সোশ্যাল ডিসটেন্সিং বজায় রাখার জন্য; সরকার থেকে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সাধারণ মানুষকে সচেতন করেন। কিন্তু রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বরাবরই; এই শব্দদুটির ভুল ব্যাখ্যার কথা বলে আসছে। সামাজিক দূরত্ব শব্দে; মানুষের সঙ্গে মানুষের ভেদাভেদ তৈরি হচ্ছে; দাবি ছিল তৃণমূলের। সংসদে তা তুলে ধরেন; রাজ্যসভার সাংসদ শান্তনু সেন।

“সামাজিক দূরত্ব” শব্দে; মানুষে মানুষে বিভেদ সৃষ্টি হচ্ছে। তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনের এই যুক্তি মেনে নিয়ে; আগামী দিনে করোনা সংক্রান্ত নির্দেশিকায় পরস্পরের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলার প্রশ্নে; আর “সামাজিক দূরত্ব” নয়; “শারীরিক দূরত্ব” শব্দবন্ধ ব্যবহার করা হবে বলে জানাল কেন্দ্র। আগামী দিন থেকে কেন্দ্রের সমস্ত নির্দেশিকায়; সামাজিক দূরত্বের পরিবর্তে শারীরিক দূরত্ব রেখে চলার পরামর্শ থাকবে। বলাই যায়, কেন্দ্রকে পথ দেখালেন মমতা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন