অফিসার ক্যাম্প ভ্যাকসিন সব ভুয়ো, পুলিশ ও প্রশাসনের নাকের ডগায় সাংসদ সহ মানুষকে যা খুশি ইঞ্জেকশন

2547
অফিসার ক্যাম্প ভ্যাকসিন সব ভুয়ো, পুলিশ ও প্রশাসনের নাকের ডগায় সাংসদ সহ মানুষকে যা খুশি ইঞ্জেকশন
অফিসার ক্যাম্প ভ্যাকসিন সব ভুয়ো, পুলিশ ও প্রশাসনের নাকের ডগায় সাংসদ সহ মানুষকে যা খুশি ইঞ্জেকশন

মানব গুহ, কলকাতাঃ গল্প হলেও সত্যি! সরকারি অফিসার ক্যাম্প ভ্যাকসিন সব ভুয়ো; কি টিকা দেওয়া হয়েছে; তাও কেউ জানে না! পুলিশ প্রশাসনের নাকের ডগায়, খাস কলকাতায়; দেশের সাংসদ সহ বাংলার মানুষকে, যা খুশি ইঞ্জেকশন ইচ্ছে করলেই দেওয়া যায়! প্রমাণ করে দিয়েছে; ভুয়ো আইএএস অফিসার দেবাঞ্জন দেব। দেশের কোন শত্রু ইচ্ছে করলেই, সাংসদ সহ বাংলার মানুষকে; যা খুশি ইঞ্জেকশন দিতে পারত। প্রশাসন ও পুলিশকে, চোখে আঙুল দিয়ে দেখাল; এক ভুয়ো সরকারি আমলা। “বাগড়ি মার্কেট থেকে, করোনা টিকা কিনেছি”; প্রতারকের কথায় শিউরে উঠেছেন, দেশের লোকসভার সাংসদ মিমি চক্রবর্তী থেকে; বাংলার সাধারণ মানুষ।

সাংসদ মিমিকে কি, ‘জাল’ করোনা ভ্যাকসিন দিল; ফেক সরকারি অফিসার? প্রশ্নে তোলপাড় রাজ্য। ভুয়ো আইএএস অফিসারের দ্বারা, রীতিমতো প্রতারিত হলেন; মিমি চক্রবর্তী ও বাংলার কয়েকশ মানুষ। মিমির অভিযোগ পেয়েই, কসবা এলাকা থেকে; ভুয়ো আইএএস অফিসার দেবাঞ্জন দেবকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তারপরেই জানা গেল, টিকাকরণ শিবিরেরও; কোন অনুমতি নেই। ওই প্রতারকের দেওয়া; টিকাও কি জাল? উঠেছে প্রশ্ন; তদন্তে পুলিশ।

আরও পড়ুন; সাংসদ অভিনেত্রী মিমিকে, বাংলায় তৈরি ‘জাল’ করোনা ভ্যাকসিন দিল ফেক সরকারি অফিসার

কলকাতা পুরসভার অনুমতি ছাড়াই, টিকাকরণ শিবিরের অভিযোগে; ও মিথ্যা পরিচয় দেবার অভিযোগে; দেবাঞ্জন দেব নামে ভুয়ো আমলা গ্রেফতার হয়েছে। তার কাছ থেকে জাল পরিচয়পত্র; নীল বাতি লাগানো গাড়িও বাজেয়াপ্ত হয়েছে। করোনা টিকাও সে, বাজার থেকে কিনেছে; এমনটাই জানিয়েছে প্রতারক। সেই করোনা ভ্যাকসিন জাল কিনা; তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত জানিয়েছে, সে বাগড়ি মার্কেট থেকে ভ্যাকসিন কিনেছে; যা এককথায় অবাস্তব। কারণ খোলা বাজারে এখনও; করোনা ভ্যাকসিন কিনতে পাওয়া যায় না।

“তাহলে আমাদের কি টিকা দিল”? প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে; শিউরে উঠেছেন সাংসদ থেকে সাধারণ মানুষ। কিন্তু খাস কলকাতায় পুলিশ প্রশাসনের নাকের ডগায়, কলকাতা কর্পোরেশনের স্টিকার মারা, পতাকা লাগানো, নীল বাতি লাগানো গাড়িতে ঘুরলেও কেউ কিছুই বুঝতে পারল না! দিনকয়েক টানা কয়েকশ মানুষকে ভ্যাকসিন দিলেও; কেউ কিছুই ধরতেও পারল না? তাহলে কোন অপরাধী বা অপরাধী দল তো সহজেই; মানুষকে করোনা ভ্যাকসিনের নামে; যেকোন ইঞ্জেকশন দিয়ে দিতে পারে সহজেই?

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন