আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দামই নেই, তাও মানুষের পকেট কাটছে বিজেপি তৃণমূল

2522
আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দামই নেই, তাও মানুষের পকেট কাটছে বিজেপি তৃণমূল
আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দামই নেই, তাও মানুষের পকেট কাটছে বিজেপি তৃণমূল

পেট্রোল-ডিজেলের দাম; লাগাতার বাড়ছে কেন? আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দামই নেই; তাও মানুষের পকেট কাটছে বিজেপি তৃণমূল; এমনটাই অভিযোগ বামেদের। সিপিএম নেতা শমীক লাহিড়ী, রীতিমতো হিসাব কষে; দেখিয়ে দিয়েছেন কিভাবে শুধু কেন্দ্রে বিজেপি নয়; রাজ্যে তৃণমূল সরকার, সাধারণ মানুষের পকেট কাটছে। অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারতে; পেট্রোপণ্যের দাম অনেক বেশি। কিন্তু কেন? প্রশ্ন উঠেছে গোটা দেশ জুড়েই। তেলের দাম বাড়ায়; সব জিনিসের দামই বেড়ে গেছে বলেই অভিযোগ।

ভারত তার প্রয়োজনের ৮০ শতাংশ তেল; বিদেশ থেকে আমদানী করে। ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলিও; পেট্রোপণ্যে আমদানী-নির্ভর। কিন্তু আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোর পেট্রোল ডিজেলের দাম; (ভারতীয় মুদ্রায়) অনেক কম আমাদের দেশের তুলনায়। কি করে সম্ভব এটা; প্রশ্ন তুলেছেন সিপিএম নেতা শমীক লাহিড়ী।

আরও পড়ুনঃ কাটমানি, স্বজনপোষণ; তৃণমূলের কয়েকজন নেতাকে শোকজ় করতে চলেছে দল

একনজরে দেখে নেওয়া যাক; কোন দেশে তেলের কত দাম।
দেশের নামঃ পেট্রোল / ডিজেল
পাকিস্তানঃ ৩৬.৯১/৩৬.৫১
নেপালঃ ৬০.০০/৫৩.১৫
শ্রীলঙ্কাঃ ৫৫.৫৯/৪২.২৭
বাংলাদেশঃ ৭৮.৪১/৭১.২১
চিনঃ ৬৩.১২/৫৪.২৪
ভারতঃ ৮১.৮২/৭৫.৩৪ (কলকাতা)

আন্তর্জাতিক বাজারে এখন; অপরিশোধিত তেলের দাম খুবই কম। ভারত কেবলমাত্র অপরিশোধিত তেলই; আমদানি করে। আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম; ওঠানামা করে। বিগত ৩ সপ্তাহে এক ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের সর্বোচ্চ দাম; ভারতীয় মুদ্রায় ৩১৯৯ টাকা (৪২.২৯ ডলার) হয়েছিল। এক ব্যারেল মানে ১৫৮.৯৮ লিটার। অর্থাৎ ১লিটার অপরিশোধিত তেলের দাম; এই মুহূর্তে মাত্র ২০.১২ টাকা।

আরও পড়ুনঃ কাকে কাকে শাস্তি দেবেন মমতা, তৃণমূলের একের পর নেতার নাম আমফান ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকায়

১ লিটার অপরিশোধিত তেল থেকে; কার্যত এক লিটারের বেশি মূল্যের পেট্রোল/ ডিজেল এবং উপজাত দ্রব্যাদি পাওয়া যায়। পেট্রোল বা ডিজেল পরিশোধনের পর; যেটা পড়ে থাকে তার মূল্য; পেট্রোল-ডিজেলের চেয়ে কম নয়। বরং অনেক ক্ষেত্রেই বেশী। সেগুলো দিয়ে অন্যান্য; অনেক মূল্যবান উপজাত সামগ্রী তৈরি হয়। তাই ১ লিটার অপরিশোধিত তেল থেকে; ১.২৫ লিটার পেট্রোলের সমান দাম পাওয়া যায় পরিশোধনের পরে।

পরিবেশে দূষণ কমানোর জন্য; ভারতে ২০১৭ সাল থেকে রিফাইনারি কোম্পানিগুলি; পেট্রোলে ১০% ইথানল মেশায়; বাজার কিনলে ১লিটার ৪৩.৭৫ টাকায় পাওয়া যায়। অর্থাৎ ১০ লিটার পেট্রোল কিনলে; তার মধ্যে ১ লিটার ইথানল থাকে। ৪৩.৭৫ টাকা মূল্যের ইথানল; কিন্তু ৮১.৮২ টাকা মূল্যে পেট্রোলের দামেই বিক্রি হয়। অর্থাৎ ৩৮.০৭ টাকা প্রতি ১০ লিটার পেট্রোলে; অতিরিক্ত মুনাফা করছে তেল কোম্পানিগুলি; শুধুমাত্র ইথানল ব্যবহার করার কারণে।

আরও পড়ুনঃ প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলের টাকাও রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনে, কংগ্রেসের ‘লুঠ’ দেখে হতবাক দেশ

পেট্রোল ডিজেলের এই ভয়ঙ্কর মূল্যবৃদ্ধির কারণ; মূলত কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের চাপানো বিপুল করের বোঝা। দেখে নেওয়া যাক; ১ লিটার পেট্রোল/ ডিজেলের মূল্যের মধ্যে কিসে কত খরচ হয়? খরচ পেট্রোল/ডিজেল
অপরিশোধিত তেলঃ- ২০.১২/২০.১২
পরিশোধন ও পরিবহন খরচঃ- ৪.৫০/৫.৯২
পেট্রোল পাম্পের কমিশনঃ- ৩.৬০ /২.৫৩
কেন্দ্রের করঃ- ৩৪.৫৬/২৯.৩৮
রাজ্যের করঃ- ১৯.০৪/১৭.৩৯

এর ফলে দাম দাঁড়ায়; ৮১.৮২ টাকা/লিটার। পেট্রোলে কেন্দ্র ও রাজ্যের দুই সরকার মিলে; ৫৩.৬০ টাকা কর নেয়। ১ লিটার ডিজেলের ক্ষেত্রে কর ৪৬.৭৭ টাকা। পেট্রোপণ্যে উচ্চহারের কর চাপানোর প্রশ্নে; বিজেপি ও তৃণমূল উভয়ই অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে গেছে। এমনটাই হিসাব দিয়ে অভিযোগ করেছেন; সিপিএম নেতা শমীক লাহিড়ী। করের হিসাবও দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ রাজীব গাঁধী ফাউন্ডেশনের নামে, চিনের কাছে টাকা খেয়েছে গান্ধী পরিবার

কর / ২০১৪ / ২০২০
পেট্রোল / নভেম্বর / জুন
কেন্দ্র / ৯.২০ / ৩৪.৫৬
রাজ্য / ২০% / ৩০%
কর / ২০১৪ / ২০২০
ডিজেল / নভেম্বর / জুন
কেন্দ্র / ৩.৪৬ / ২৯.৩৮
রাজ্য / ১২.৫% / ৩০%

“গত ২০ দিন ধরে আপনার পকেট কাটছে; বিজেপি-তৃণমূল দুই সরকারই। আপনিও প্রতিবাদে সামিল হোন”; জনগণের উদ্দেশ্যে আহ্বান জানিয়েছেন; সিপিএম নেতা শমীক লাহিড়ী। এই নিয়ে দেশ জুড়েই বিক্ষোভ দেখিয়েছেন কংগ্রেস নেতারা। সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী; সাইকেল চালিয়ে তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ করেছেন। বিজেপি তৃণমূল দুই সরকারকেই; মানুষের ভোগান্তির জন্য দায়ি করেছে বামেরা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন