কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে সাজা কমল ছত্রধরের, বেকসুর খালাস ‘মাওবাদী’ রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জী

335
হাইকোর্টের নির্দেশে সাজা কমল ছত্রধরের, বেকসুর খালাস 'মাওবাদী' রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জী/The News বাংলা
হাইকোর্টের নির্দেশে সাজা কমল ছত্রধরের, বেকসুর খালাস 'মাওবাদী' রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জী/The News বাংলা

যাবজ্জীবন থেকে কমিয়ে ১০ বছর জেল। কলকাতা হাইকোর্টে; সাজা কমল ছত্রধর মাহাতর। সেই সঙ্গে বেকসুর খালাস পেলেন; ‘মাওবাদী’ রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জী। বুধবার রায় ঘোষণা করল; হাইকোর্টের বিচারপতি মুমতাজ খান ও বিচারপতি জয় সেনগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ। মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়ে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায়; যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ নেই। একথা উল্লেখ করেই; মুক্তি দেওয়া হল রাজা সরখেল ও প্রসূন চট্টোপাধ্যায়কে। তবে বাকি ৩ জন অভিযুক্ত; সগুন মুর্মু, শম্ভু সোরেন ও সুখশান্তি বাস্কেকে; ছত্রধর মাহাতর মতই; ১০ বছরের কারাদণ্ডের সাজা শুনিয়েছেন বিচারপতিরা।

২০০৮ সালে পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনিতে; তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের কনভয় লক্ষ্য করে ল্যান্ডমাইন বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। সেই বিস্ফোরণের ঘটনায় ২০০৯ সালে বিনপুরের জঙ্গল থেকে; গ্রেফতার করা হয় ছত্রধর মাহাতকে। বিস্ফোরণের ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে; ছত্রধর মাহাতের সঙ্গেই গ্রেফতার করা হয় সগুন মুর্মু, শম্ভু সোরেন, সুখশান্তি বাস্কে, রাজা সরখেল, প্রসূন চট্টোপাধ্যায় ও রঞ্জিত মুর্মুকে।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূল নেতা মন্ত্রীর লোক হলে থানায় ঢুকে পুলিশ পেটানো যায়, না হলে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে গেলে জেলে যাবেন

মেদিনীপুরের সেশন কোর্ট ছত্রধর মাহাতো, সুখশান্তি বাস্কে, সগুন মূর্মু, শম্ভু সোরেন, রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়। ইউএপিএ আইনে; অপরাধ ‘রাষ্ট্রদ্রোহ’! UAPA আইনে সেই প্রথম; রাজ্যে প্রথম কেউ সাজা পায়।

যাবজ্জীবনের সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে; ছত্রধর মাহাত, সুখশান্তি বাস্কে, শম্ভু সরেন, সগুন মুর্মু, রাজা সরখেল, প্রসূন চট্টোপাধ্যায়দের মুক্তির দাবি জানিয়ে; হাইকোর্টে সওয়াল করেন আইনজীবী শেখর বসু। দীর্ঘ সওয়াল-জবাবের পর; বুধবার চূড়ান্ত রায় ঘোষণা হল সেই মামলার। সাজা কমানো হল ছত্রধর মাহাতর। ছত্রধর মাহাতকে অস্ত্র মামলায় ৩ বছর, UAPA আইনে ১০ বছর; এবং ১২১, ১২২ ও ১২৩ ধারায় ৮ বছর কারাবাসের সাজা শোনান বিচারপতিদ্বয়।

সাজাপ্রাপ্তদের পরিবার ও APDR-এর তরফে জানানো হয়েছে; “এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চতর আদালতে যাবেন তাঁরা”। মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর এর সভাপতি রঞ্জিত শূর জানিয়েছেন; “রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জীকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছিল বাম সরকার; তৃণমূল আমলেও সেই মিথ্যা মামলা চলে”। তিনি আরও জানান; ছত্রধর মাহাত ও অন্যান্যদের এই সাজার বিরুদ্ধে দরকার হলে সুপ্রিম কোর্টেও যাবেন তাঁরা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন