একদিনের ছুটিতে ঘুরে নিন হংসেশ্বরী মন্দির

267
একদিনের ছুটিতে ঘুরে নিন হংসেশ্বরী মন্দির/The News বাংলা
একদিনের ছুটিতে ঘুরে নিন হংসেশ্বরী মন্দির/The News বাংলা

একদিনের ছুটিতে ঘুরে নিন হংসেশ্বরী মন্দির। ঘুরে আসুন ব্যান্ডেল; সোমরাবাজার। রাজা নৃসিংহদেব রায় কাশিধামে থাকাকালীন ১৭৯২-৯৮ “ষটচক্র” সম্বন্ধে জ্ঞানলাভ করেন।পরে ১৭৯৮ খ্রীঃ এ ষটচক্র ভেদ প্রনালীতে হংসেশ্বরী মন্দির নির্মাণকাজ এ ব্রতী হন। উনি কাশীধাম এর চুনার অঞ্চল থেকে পাথর সংগ্রহ করেন; মন্দির গড়ে তোলার জন্য কিন্তু মাঝপথেই তার মৃত্যু হয়; পরে তার স্ত্রী ১৮১৪ খ্রীঃ নির্মাণ কাজ শেষ করেন।

পাশেই বাসুদেব মন্দির; ১৬৭৯ খ্রীঃ এ রাজা রামেশ্বর দত্ত নির্মাণ করেন। এটি একটি একরত্ন চালা। অসম্ভব সুন্দর কাজ। ওখান থেকেই চলে যান সোমরাবাজার; ২৫ কিমি ওখান থেকে; দেখে নিন জমিদারবাড়ি; সেন; পাল; মুস্তাফি দের। সাথে “আকালের সন্ধানে” খ্যাত আনন্দময়ীর মন্দির। অসম্ভব সুন্দর পরিবেশ। তৈরী হয়েছিল ১৭৬৩ খ্রীঃ এ। কিছুটা দুরেই নিস্তারিণী মন্দির; তৈরী হয় ১৮৪৭ খ্রীঃ এ।

ব্যান্ডেল সোমরাবাজার ট্রিপ যেকোন দিন ডে ট্রিপ এ করে নেওয়া যায় এই সফর। হাওড়া থেকে ব্যান্ডেল লোকাল ধরে ব্যান্ডেল নামুন; এরপর একটা টোটো ভাড়া করে ঘুরে নিন ব্যান্ডেল চার্চ; ইমামবাড়া; সেখান থেকে চলে আসুন হংসেশ্বরী মন্দির; বাসুদেব এর মন্দির। এইবার চলে আসুন স্টেশন। ট্রেন ধরে চলে যান সোমরাবাজার; স্টেশন থেকেই অটো বা টোটো নিয়ে ঘুরে নিন আনন্দময়ী মন্দির; হরসুন্দরী মন্দির; সবুজ দ্বীপ। আবার স্টেশন এ ফিরে এসে ফেরার ট্রেন ধরুন। হংসেশ্বরী তে সকাল দশ টার মধ্যে এসে ভোগের জন্য টিকেট কেটে নেবেন এতে  ১২.৩০ নাগাদ ভোগ পাওয়া যাবে। লাঞ্চ টাও হয়ে যাবে সাথে। যারা লং ড্রাইভ পছন্দ করেন তাদের জন্য ও এই ডে ট্রিপ দারুণ।
লেখা ও ছবি; সঞ্জয় গোস্বামী

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন