শেষ মুহূর্তে, মমতার বক্তৃতা বাতিল করল অক্সফোর্ড

1944
মমতার বক্তৃতা বাতিল করল অক্সফোর্ড

শেষ মুহূর্তে, মমতার বক্তৃতা; বাতিল করল অক্সফোর্ড। অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্ক সভায় থাকছেন না; বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কারণ অক্সফোর্ড মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের; বক্তব্য পেশের অনুষ্ঠান স্থগিত করে দিয়েছে। অনিবার্য কারণে; ওই অনুষ্ঠান স্থগিত রাখার কথা জানিয়েছে; অক্সফোর্ড কর্তৃপক্ষ। অনুষ্ঠান বাতিল করার জন্য; ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছে অস্কফোর্ড। বুধবার দুপুরেই, অনুষ্ঠানে বক্তব্য পেশ করার কথা ছিল; মুখ্যমন্ত্রী মমতার। তার মাত্র ৪৫ মিনিট আগেই; স্থগিত করে দেওয়া হয়; বক্তৃতা অনুষ্ঠান। রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতর জানিয়েছে; অক্সফোর্ড কর্তৃপক্ষ বুধবার শেষ মুহূর্তে, ওই অনুষ্ঠান স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে; এবং নতুন করে সময়সূচি তৈরির আর্জি জানিয়েছে তাদের।

অনিবার্য কারণের কথা উল্লেখ করে; টেলিফোনে ওই আর্জি জানান অক্সফোর্ডের উদ্যোক্তারা। তাই বুধবারের অনুষ্ঠান; আয়োজিত হয়নি। বিশ্বের প্রথম সারির ডিবেটিং সোসাইটি হিসেবে পরিচিত; অক্সফোর্ড ইউনিয়ন। মার্গারেট থ্যাচার, থেরেসা মে-র পর, তৃতীয় মহিলা রাজনীতিক হিসেবে; বক্তব্য পেশ করার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

আরও পড়ুনঃ “কেন ভুল বার্তা দিচ্ছেন, আপনাদের সঙ্গে আর কাজ করব না”, সৌগত রায়ে ক্ষুব্ধ শুভেন্দু অধিকারী

দুপুর আড়াইটায়, নবান্ন রাজ্য সচিবালয় থেকে ভার্চুয়াল মোডে; এই বিতর্কটিতে ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী। ছাত্রদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি; পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়ন প্রকল্পগুলি সম্পর্কে, কথা বলার কথা ছিল তার। উল্লেখ্য, তিনি জুলাইয়ে অক্সফোর্ড ইউনিয়ন থেকে আমন্ত্রণটি পেয়েছিলেন।

আরও পড়ুনঃ শুভেন্দুকে নিয়ে এখনও আশাবাদী বিজেপি, তৃণমূলে প্রাপ্য সম্মান পাবেন না বলে ধারনা

অক্সফোর্ড ইউনিয়ন বিতর্কিত সমিতি; ১৮২৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং রোনাল্ড রেগান, জিমি কার্টার, রিচার্ড নিকসন এবং বিল ক্লিনটন সহ মার্কিন রাষ্ট্রপতিদের মতো; বিশ্বখ্যাত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল, মার্গারেট থ্যাচার, ডেভিড ক্যামেরন এবং থেরেসা মে; এছাড়াও অ্যালবার্ট আইনস্টাইন, মাইকেল জ্যাকসন এবং দালাই লামার মতো কিংবদন্তিরা এতে অংশ নিয়েছিলেন।

এবার অংশ নেওয়ার কথা ছিল মমতা বন্দ্যোপবাধ্যায়ের, কিন্তু তা আর হল না। বাতিল করা হল অনুষ্ঠান। কবে আবার মুখ্যমন্ত্রীকে বক্তৃতার জন্য আবেদন জানানো হবে; তা জানায়নি অক্সফোর্ড। সবে নিন্দুকরা মুখ টিপে হাসছে, তাদের মত; “মুখ্যমন্ত্রীর ইংরেজির কথা জানতে পেরেই; হয়তো সিদ্ধান্ত বদল করেছে অক্সফোর্ড”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন