মুখোশ খুলে গেল পাকিস্তানের, রাতারাতি ভারতীয় পূর্ণার্থীদের উপর চাপাল তীর্থকর

605
মুখোশ খুলে গেল পাকিস্তানের, রাতারাতি ভারতীয় পূর্ণার্থীদের উপর চাপাল তীর্থকর/The News বাংলা
মুখোশ খুলে গেল পাকিস্তানের, রাতারাতি ভারতীয় পূর্ণার্থীদের উপর চাপাল তীর্থকর/The News বাংলা

শেষ মুহূর্তে মুখোশ খুলে গেল ইমরান খানের। আসল রূপ দেখাল পাক। বিপাকে হাজার হাজার ভারতীয় পূর্ণার্থী। পাসপোর্টের পর এবার ভারতীয়দের থেকে নেওয়া হবে তীর্থকরও। প্রাথমিকভাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ভারতীয় শিখ সম্প্রদায় কর্তারপুরে তীর্থ করতে যেতে পারবে; বলে অনুমতি দেয় পাক সরকার। দরকার ছিল না পাসপোর্টেরও; কেবলমাত্র পরিচয়পত্র থাকলেই প্রবেশের অনুমতি দিয়েছিল পাক সরকার। কিন্তু করিডর উদ্বোধনের আগেই রূপ দেখাল পাকিস্তান। দুদিন আগে পাসপোর্টকে বাধ্যতামূলক করার পর; শুক্রবার ২০ মার্কিন ডলার তীর্থকরও বাধ্যতামূলক করল পাকিস্তান।

অন্যদেশে তীর্থ করতে গেলে; প্রতিদিন একটি আলাদা কর বা ট্যাক্স দিতে হয় ওই দেশের সরকারকে। প্রতিদেশের নিয়ম আলাদা থাকে। এক্ষেত্রে পাকিস্তানের তীর্থকর ২০ ডলার অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৫০০ টাকা। ভারতীয় শিখ পূর্ণার্থীদের করিডর ব্যবহারের জন্য; এই মূল্য মাফ করা হবে না বলে জানিয়ে দিল পাক সরকার। উদ্বোধনের দিন থেকেই দিতে হবে এই তীর্থকর।

আরও পড়ুনঃ কথা দিয়েও মুখ ফেরালেন ইমরান খান, মাথায় হাত ভারতীয় পুণ‌্যার্থীদের

নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ইমরান খান সরকার; ভারতের সব দাবি মেনে নিয়েছিল। সুর নরম করে কর্তারপুরে দরবার সাহিব গুরুদ্বারগামী; ভারতীয় তীর্থযাত্রীদের জন্য একাধিক ছাড় ঘোষণা করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার মধ্যে অন্যতম ছিল পাসপোর্ট ও তীর্থমুল্যের ক্ষেত্রে ছাড়।

ইমরান নিজেই টুইট করে জানান; “ভারত থেকে যে শিখরা কর্তারপুরে আসছেন; তাঁদের দুটি জিনিসে ছাড় দিচ্ছি। তাঁদের পাসপোর্ট থাকার প্রয়োজন নেই। শুধু বৈধ পরিচয় পত্র থাকলেই চলবে। উদ্বোধনের দিন ও গুরুজির ৫৫০তম জন্মবার্ষিকীতে; তাঁদের কোনও ফি–ও দিতে হবে না”।

কিন্তু, শুক্রবারের মধ্যেই সম্পূর্ণ অন্য সুরে পাকিস্তান। অর্থাৎ পাকিস্তানে প্রবেশের জন্য এবার দরকার পাসপোর্টের পাশাপাশি তীর্থমূল্যও। পাক সরকারের এই ঘোষণায় বিপাকে পড়লেন; ভারতের হাজার হাজার শিখ পুণ‌্যার্থীরা। শেষ মুহূর্তে পাকিস্তান নিজের রূপ দেখানোয়; চরম সমস্যায় শিখ পুণ‌্যার্থীরা।

আগামী ৯ নভেম্বর পাঞ্জাব-পাকিস্তান সীমানার কাছে; কর্তারপুর করিডর উদ্বোধনের কথা। অন্যদিকে ১২ নভেম্বর গুরু নানকের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে; সেজে উঠেছে কর্তারপুর গুরুদ্বার। সেখান যাওয়ার জন‌্য; বহু ভারতীয় শিখ দীর্ঘদিন ধরে অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু তাঁদের পরিকল্পনায় কার্যত জল ঢেলে দিল পাকিস্তান। পাকিস্তান নিজের আসল রূপ দেখানোয়; অবাক হয়নি ভারত।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন