কংগ্রেসকে সমর্থন করে, মোদীর বিরুদ্ধে নিজের ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ ইমরানেরও

2107
কংগ্রেসকে সমর্থন করে, মোদীর বিরুদ্ধে নিজের ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ ইমরানেরও
কংগ্রেসকে সমর্থন করে, মোদীর বিরুদ্ধে নিজের ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ ইমরানেরও

কংগ্রেসকে সমর্থন করে, মোদীর বিরুদ্ধে নিজের ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ তুললেন; পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পেগাসাস স্পাইওয়্যার; এককথায় ঝড় তুলেছে ভারতে। পেগাসাসের মাধ্যমে ফোনে আড়িপাতার কাণ্ড নিয়ে; বর্তমানে সংসদে তুমুল হাঙ্গামার সৃষ্টি হয়েছে। ভারতে ইজরায়েলি সাইবার সুরক্ষা কোম্পানি NSO-এর, স্পাইওয়ার পেগাসাসের মধ্যমে; অনেক সাংবাদিক, মন্ত্রী ও নেতাদের ফোন ট্যাপ করা হয়েছে; বলেই দাবি উঠেছে। এবার পেগাসাস নিয়ে; মুখ খুললেন পাক প্রধানমন্ত্রীও। পাকিস্তানের অভিযোগ, পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ফোনও; হ্যাক করেছে ভারত। পাশাপাশি তাঁরা এই ইস্যুটিকে; আন্তর্জাতিক মঞ্চে তোলার হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

পাকিস্তানের মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী, পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমে বলেন; “ভারত আমাদের প্রধানমন্ত্রীর; ফোন ট্যাপ করেছে”। তিনি টুইটে লেখেন; “এটা খুবই চিন্তার বিষয়। ভারত সরকার সাংবাদিক আর রাজনৈতিক বিরোধীদের উপর, গোয়েন্দাগিরি চালাতে; ইজরায়েলের স্পাইওয়ার পেগাসাসের ব্যবহার করেছে। মোদী সরকারের অনৈতিক নীতি; ভারতকে বিপদের মুখে ঠেলে দিচ্ছে”।

আরও পড়ুনঃ ভারতীয় সাংবাদিকের কড়া প্রশ্ন শুনে পালিয়ে গেলেন ইমরান খান, ভাইরাল হল ভিডিও

কিন্তু পেগাসাস স্পাইওয়্যারের মাধ্যমে; আদৌ ইমরানের ফোন হ্যাক হয়েছে কিনা; হ্যাক হলেও ভারতের কাছে কোন তথ্য এসে পৌঁছেছে; তা নিয়ে এখন উদ্বিগ্ন পাকিস্তানের গোয়েন্দা বিভাগ। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে; সন্ত্রাসবাদ দমনের জন্য এই প্রযুক্তি ব্যবহার করতে চেয়েছিল ভারত; সেই অনুযায়ী ইজরায়েলি সংস্থার কাছ থেকে এই প্রযুক্তি আমদানি করেছিল তারা।

আরও পড়ুনঃ বিশ্বকে রেহাই দেবে না চিন, করোনার মধ্যেই ‘মাঙ্কি বি’ ভাইরাস ছড়িয়ে মানুষের মৃত্যু

যদিও পাকিস্তানের এই অবাস্তব দাবিকে; অস্বীকার করেছে ভারত। পেগাসাসের মাধ্যমে হ্যাক হয়ে থাকতে পারে; ইমরান খানের ব্যবহৃত একটি ফোন নম্বরও। এমনই দাবি করা হয়েছে, ফরাসি সংবাদপত্র; লে মনডের রিপোর্টে। তাছাড়া পেগাসাসের নিশানায় থাকতে পারে; ভারতে নিযুক্ত চিন এবং ইরানের কূটনীতিবিদদের নামও। তাছাড়া ভারতে নিযুক্ত বহু সৌদি, নেপাল, আফগান কূটনীতিবিদদের ফোনও; হ্যাক হয়ে থাকতে পারে বলে; এদিন দাবি করে ফরাসি সংবাদপত্র লে মনডে।

এদিকে ওয়াশিংটন পোস্টের রিপোর্টে দাবি করা হয় যে; দিল্লিতে স্থিত মার্কিন সিডিসির দুই কর্তা এবং বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের; ভারতীয় প্রধান হরি মেননের নামও রয়েছে এই তালিকায়। তবে সব অভিযোগ; উড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্র সরকার।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন