সীমান্তে যুদ্ধ ট্যাঙ্ক ও বড় সেনাবাহিনী নিয়ে হাজির পাকিস্তান, কাশ্মীরে যুদ্ধ পরিস্থিতি

798
সীমান্তে যুদ্ধ ট্যাঙ্ক ও বড় সেনাবাহিনী নিয়ে হাজির পাকিস্তান, কাশ্মীরে যুদ্ধ পরিস্থিতি/The News বাংলা
সীমান্তে যুদ্ধ ট্যাঙ্ক ও বড় সেনাবাহিনী নিয়ে হাজির পাকিস্তান, কাশ্মীরে যুদ্ধ পরিস্থিতি/The News বাংলা

ভারত পাক সীমান্তে; যুদ্ধ পরিস্থিতি। ৫ই আগষ্টের পর থেকেই; ভারত পাকিস্তান সম্পর্কে আবার বড়সড় ফাটল ধরেছে। কাশ্মীর ভারতের হলেও; নাক গলাতে ছাড়ছে না পাকিস্তান। বিশ্বের সব রাষ্ট্র এই বিষয়ে পাকিস্তানকে সতর্ক করলেও; কূটনৈতিক সম্পর্ক শেষ করে; ভারতের পেছনে পড়ে আছে পাকিস্তান। আর্টিক্যাল ৩৭০ ও ৩৫এ বিলোপের পর পাকিস্তান জানিয়েছিল; ভারত যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি করছে।

এবার শান্তি ভেঙে; পাকিস্তান নিজেই যুদ্ধ ট্যাঙ্ক ও বড় সেনাবাহিনী নিয়ে ভারত পাক সীমান্তে হাজির। কাশ্মীর সীমান্ত বরাবর; অতিরিক্ত সেনার পাশাপাশি; ভারী যুদ্ধাস্ত্রবাহী বিমান ও কপ্টার ও ট্যাংক মোতায়েন করছে পাকিস্তান। এদিন এমনটাই দাবি করেছেন; পাকিস্তানি সাংবাদিক হামিদ মির। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে নিজের সাংবাদিকতা সূত্রে; এই খবর জানতে পেরেছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীর কোনদিনই পাকিস্তানের অংশ ছিল না, বললেন ইমাম মহম্মদ

এদিন তিনি টুইট করে জানিয়েছেন; “এজেকে (আজাদ জম্মু ও কাশ্মীর)-র বিভিন্ন অঞ্চলে কাছের কাশ্মীরি বন্ধুদের কাছ থেকে বার্তা পেয়েছেন; গতরাতের পর থেকে ভারী আর্টিলারি নিয়ে; পাকিস্তান সেনাবাহিনী সীমান্তে চলেছে। স্থানীয়রা পাকিস্তানী পতাকা উত্তোলন করে; এবং ‘কাশ্মীর বনেঙ্গে পাকিস্তান’ স্লোগান দিয়ে সৈন্যদের স্বাগত জানায়”।

সীমান্তে যুদ্ধ ট্যাঙ্ক ও বড় সেনাবাহিনী নিয়ে হাজির পাকিস্তান, কাশ্মীরে যুদ্ধ পরিস্থিতি/The News বাংলা

জম্মু-কাশ্মীরে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করার পরই; পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে হুঙ্কার দিয়ে চলেছে। কাশ্মীরে বিশেষ ধারা বাতিল; তার ওপর বিশ্বে অন্যান্য দেশ; এমনকি চিনের কাছ থেকেও প্রত্যাখ্যাত হয়েছে পাকিস্তান। সেই ক্ষোভ থেকেই একের পর এক কূটনৈতিক সিদ্ধান্ত নিয়ে; ভারতের ওপর চাপ সৃষ্টি করে চলেছে।

আরও পড়ুনঃ জয় শ্রী রাম, ভারতীয় সংসদে সশরীরে হাজির ভগবান রামের বংশধর

প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর মন্তব্যে থেকে স্পষ্ট বোঝা যায়; পাকিস্তান প্রতিবেশী দেশ হলেও; ‘প্রতিবেশী’ এই শব্দের অর্থ বদলে দিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে; এখন বড়সড় যুদ্ধ না হলেও; ছোটখাটো সংঘাতের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

কূটনৈতিকদের একাংশ বলছে; ভারতের সঙ্গে যুদ্ধ বাধানোর একটা ছবি তৈরি করে; আসলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাহায্য পেতে চাইছে ইমরান। যদিও ভারত সেই চেষ্টা সফল হতে দিতে চায় না। আমরেকার মধ্যস্থতা ভারত আগেও মানা করেছে; দরকার পরলে আবারও তাই-ই করবে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন