রাজ্য জুড়ে ‘বড়লোক’দের নাইট পার্টি, সাধারন মানুষের শিক্ষা ও জীবিকা বন্ধ

945
রাজ্য জুড়ে বড়লোকদের নাইট পার্টি, সাধারন মানুষের শিক্ষা ও জীবিকা বন্ধ
রাজ্য জুড়ে বড়লোকদের নাইট পার্টি, সাধারন মানুষের শিক্ষা ও জীবিকা বন্ধ

রাজ্য জুড়ে ‘বড়লোক’দের নাইট পার্টি; সাধারণ মানুষের শিক্ষা ও জীবিকা বন্ধ। কোভিড বিধিকে উপেক্ষা করে, রাতভর বড়লোকদের পার্টি চলছে; কলকাতার নামি দামি সব হোটেলে। পার্কস্ট্রিটের পার্ক হোটেলের পর; এ বার কাঠগড়ায় হোটেল হিন্দুস্থান ইন্টারন্যাশনাল। পয়সাওয়ালাদের পার্টি শুধু কলকাতাতেই নয়; কলকাতার পর করোনাবিধি শিকেয় তুলে হোটেলে পার্টির আয়োজন; করা হল উত্তরবঙ্গের শিলিগুড়িতেও। একদিকে চলছে নাইট পার্টি; অন্যদিকে বন্ধ স্কুল, কলেজ, লোকাল ট্রেন।

একদিকে, কোভিড বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে; রাজ্যের বিভিন্ন হোটেলে পার্টির আয়োজন চলছে। সঙ্গে উদ্যাম নাচ, গান; তারস্বরে সাউন্ড সিস্টেম। আর চলছে বিরামহীন; মদ্যপানের আসর। অন্যদিকে, বাংলায় বন্ধ শিক্ষা ব্যবস্থা ও সাধারন মানুষের জীবিকা; বন্ধ লোকাল ট্রেন। এক রাজ্যে দুই ছবি, করোনা বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নাইট পার্টিতে চলছে পয়সাওয়ালাদের ‘পাউরি’; অন্যদিকে থমকে আছে সাধারণ মানুষের জীবন।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় বিরোধিতা দিল্লিতে তৃণমূলকে সমর্থন, ফের ‘ঐতিহাসিক ভুল’ সিপিএম-এর

১০ জুলাই পার্ক হোটেলে পার্টি চলার দিনই; হোটেল হিন্দুস্তান ইন্টারন্যাশনালেও একটি জন্মদিনের পার্টি হয়। তবে, আবগারি দফতরের অফিসাররা যাওয়ার আগে; হোটেলের লবির আলো নিভিয়ে, অনেকে পালিয়ে যান বলেই অভিযোগ। হোটেলের সিসিটিভি ফুটেজ, চাওয়া হয়েছে; পুলিশের তরফ থেকে। কারা সেদিন রাতে ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন; তদন্ত করে দেখছে আবগারি দফতর। প্রয়োজনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য, তলব করা হতে পারে; হোটেলের ম্যানেজারকে। নৈশ পার্টিতে মাদকের ব্যবহারে ঘটনার জেরে; অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হয়েছে, পার্ক হোটেলের সবকটি বার।

আরও পড়ুনঃ পরীক্ষা বাতিল, স্কুল লোকাল ট্রেন বন্ধ, বাংলার ফের ভোটের প্রস্তুতি শুরু

করোনা পরিস্থিতিতে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন ভেঙে; কীভাবে হোটেলের ঘর ও করিডরে মধ্যরাত পর্যন্ত এই পার্টি চলল; তা নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে কলকাতা পুলিশ। কে বা কারা ওই পার্টিতে মাদক সরবরাহ করত; তা নিয়ে এখনই প্রকাশ্যে মুখ খুলতে নারাজ পুলিশ কর্তারা। তদন্তকারীদের মতে, পানীয়র সঙ্গে মিশিয়ে মাদক; নেওয়া হচ্ছিল পার্টিতে। এ ক্ষেত্রে ইয়াবা ট্যাবলেট জাতীয় মাদক ব্যবহারের কথাও; উঠে এসেছে বলে কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর। এক বাংলা; দুই জীবন। বড়লোক আর সাধারণ মানুষ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন