তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী ও সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফেলে পেটাল কেন্দ্রীয় বাহিনী

722
সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফেলে পেটাল কেন্দ্রীয় বাহিনী/The News বাংলা
সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফেলে পেটাল কেন্দ্রীয় বাহিনী/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

ফুটবলার জীবনে অনেক ভয়ানক ট্যাকেলের সম্মুখীন হয়েছেন; বিখ্যাত ফুটবলার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সাংসদ হবার পর ভোটের বুথে গিয়ে পুলিশের লাঠির ঘা খেতে হবে; তা মনে হয় স্বপ্নেও ভাবেননি এই ফুটবলার সাংসদ। আর সেটাই ঘটল সোমবার। গায়ে দাগ নিয়ে আপাতত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর মত; কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ ফণীর ক্ষয়ক্ষতির জন্য রাজ্যকে টাকা দিতে চেয়েছিলাম, নিলেন না মমতা, জানালেন মোদী

নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে; রাজ্যের তরফে অভিযোগ আগে থেকেই ছিল। কেন্দ্রীয় বাহিনী রাজ্যে বিজেপির হয়ে কাজ করছে এবং বিভিন্ন জায়গায় কেন্দ্রীয় বাহিনী ভোটারদের ভয় দেখিয়ে; বিজেপিকে ভোট দিতে প্ররোচিত করছে বলেও অভিযোগ ছিল। আর এবার কেন্দ্রীয় বাহিনীর আক্রমনের শিকার হলেন তৃণমূল প্রার্থী ও সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ গাড়ি ভাঙচুর, ছাপ্পা ভোটের অভিযোগে হুগলীর জেলাশাসক দফতরে ধর্নায় লকেট

শুধুমাত্র আক্রমণ নয়; কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে বেধড়ক মার খেলেন হাওড়া লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার পঞ্চম দফার নির্বাচনে শিবপুরের বালটিকুরী এলাকার একটি বুথে তৃণমূল প্রার্থী ও তাঁর আপ্তসহায়ক ইন্দ্রনীল চট্টোপাধ্যায়কেও বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় জয় শ্রী রাম বললেই জেলে পুরছেন মমতা, ঝাড়গ্রামে অভিযোগ মোদীর

বালটিকুরীর একটি বুথে তৃণমূল প্রার্থী প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়; ঢোকা মাত্রই জটলা শুরু হয়। তৃণমূল সমর্থকদের সংখ্যাও বাড়তে থাকে। ফলে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। তখনই ভিড়কে সামাল দিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী লাঠিচার্জ করে। এমনটাই অভিযোগ করেছে বিজেপি।

আর তাতে রেহাই পাননি খোদ তৃণমূল প্রার্থী। বেধড়ক মারা হয় তাকে। পুরো ঘটনায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর ওপর দোষ চাপিয়ে ঘটনাটি সম্পূর্ণ ইচ্ছাকৃতভাবে ঘটানো হয়েছে বলে দাবি করেছে তৃণমূল। নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন