আদালতের নির্দেশে ৪ মাস পরে বিজেপি কর্মীর দেহ পেতেও ঝামেলা, হোমগার্ডকে সপাটে চড়

2149
আদালতের নির্দেশে ৪ মাস পরে বিজেপি কর্মীর দেহ পেতেও ঝামেলা, হোমগার্ডকে সপাটে চড়
আদালতের নির্দেশে ৪ মাস পরে বিজেপি কর্মীর দেহ পেতেও ঝামেলা, হোমগার্ডকে সপাটে চড়

আদালতের নির্দেশে ৪ মাস পরে, বিজেপি কর্মীর দেহ পেতেও ঝামেলা; হোমগার্ডকে সপাটে চড় বিজেপি নেতার। কাঁকুড়গাছির বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ; পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। তারপরেও অভিজিৎ সরকারের মৃতদেহ হস্তান্তর নিয়ে তুলকালাম হল; এনআরএস হাসপাতালে। অভিযোগ, দেহ দিতে দেরি হওয়ায়; এক বিজেপি নেতা পুলিশের এক হোমগার্ডের গায়ে হাত তোলেন। বিজেপি নেতা দেবদত্ত মাজি; ধাক্কা মেরে সরিয়ে দেন ওই হোমগার্ডকে। যা ঘিরে বিশৃঙ্খল হয়ে ওঠে পরিস্থিতি; পরে অন্যান্য দলীয় নেতার হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়।

যদিও চড় মারার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন; অভিযুক্ত বিজেপি নেতা দেবদত্ত মাজি। একুশের বিধানসভা ভোটে; বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন দেবদত্ত মাজি। গত চার মাস ধরে মর্গে ছিল; বেলেঘাটার বিজেপি নেতা অভিজিৎ সরকারের দেহ। বুধবারই শিয়ালদহ আদালত নির্দেশ দেয়; তাঁর পরিবারের হাতে দেহ তুলে দিতে হবে।

আরও পড়ুনঃ ভবানীপুর বিধানসভায় উপ নির্বাচন হবে তো, কলকাতা হাইকোর্টে মুখ্যমন্ত্রীর ভাগ্য

বুধবার এনআরএস হাসপাতাল সুপারের কাছে; আদালতের নির্দেশের কপি জমা দেন অভিজিতের দাদা বিশ্বজিৎ সরকার। বৃহস্পতিবার সকালে; দেহ হস্তান্তর করার কথা ছিল। সেই মত হাসপাতালে পৌঁছে যান; পরিবারের লোকজন ও বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। সেখানেই শুরু হয় ঝামেলা; চৌরঙ্গি কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী হওয়া; দেবদত্ত মাজি পুলিশকে ধাক্কা মেরে সরিয়ে দেন বলে অভিযোগ ওঠে। এক হোমগার্ডকে চড় মারেন ওই বিজেপি নেতা; এমন অভিযোগও ওঠে।

আরও পড়ুনঃ চাকরি পেলেও রেহাই নেই, ফের শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি, ১৫ হাজার শিক্ষকের তালিকা চাইল হাইকোর্ট

এরপরই ফের ভিতরে গিয়ে, নিয়মমাফিক কাগজপত্র জমা দিয়ে; মৃতদেহ পান অভিজিৎ সরকারের পরিবার। খুন হওয়ার কয়েক মুহূর্ত আগে, ফেসবুক লাইভে; তৃণমূল দুষ্কৃতীরা তাঁকে মেরে ফেলবে বলে ভিডিও করেছিলেন কাঁকুড়গাছির বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকার। তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই; দুষ্কৃতীদের হাতে মৃত্যু হয়েছিল তাঁর।

গত ২ মে বিধানসভা ভোটের ফল ঘোষণার পরেই, খুন হন; বিজেপির শ্রমিক সংগঠনের সক্রিয় সদস্য অভিজিৎ সরকার। পরিবারের অভিযোগ, শ্বাসরোধ করে, মাথায় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করে; খুন করা হয়েছে। প্রথম থেকেই মৃতের পরিবার অভিযোগ করে; তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতেই খুন হয়েছেন অভিজিত্‍। পরবর্তীকালে, সিবিআই এই মামলার; তদন্ত শুরু করেছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন