শুরু হয়ে গেল দুর্গা পুজো নিয়ে আদালতে জনস্বার্থ মামলা, সময় চাইল রাজ্য

450
শুরু হয়ে গেল দুর্গা পুজো নিয়ে, আদালতে জনস্বার্থ মামলা, সময় চাইল রাজ্য
শুরু হয়ে গেল দুর্গা পুজো নিয়ে, আদালতে জনস্বার্থ মামলা, সময় চাইল রাজ্য

শুরু হয়ে গেল দুর্গা পুজো নিয়ে, আদালতে জনস্বার্থ মামলা; উত্তর দিতে সময়ও চাইল রাজ্য। এর মধ্যে রাজ্যে হয়েছে; বিধানসভা ভোট। ঘোষণা হয়ে গেছে; বাকি থাকা উপ-নির্বাচনের ভোটের দিনও। ভোট হয়েছে, হচ্ছে, হবেও; তবে শুধু উৎসবে বাধা কেন? এবারও ঠিক গতবারের মত; পুজোতে বিধিনিষেধ নিয়ে চলছে তোড়জোড়। করোনা বিধি মানা ও ভিড় নিয়ন্ত্রণের জন্য; কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের হয়েছে জনস্বার্থ মামলা। হাইকোর্টের কাছে, এই নিয়ে জবাব দিতে; সময় চাইল রাজ্য। পুজোতে মানুষ প্রবেশে কেন বাধার সৃষ্টি করা হচ্ছে; প্রশ্ন তুলেছেন পুজো উদ্যোক্তারা।

মামলাকারীর আবেদন, হাইকোর্ট গতবছর যে নির্দেশিকা জারি করেছিল; সেটা এবছরও বলবৎ থাকুক। আইনজীবী সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায় বলেন, ”আদালতে আবেদন করেছি; গতবারের করোনা-বিধি যেন এবারও কার্যকর থাকে। অক্টোবরেই তৃতীয় ঢেউয়ের; আসার কথা। তাই সাবধান থাকতেই; পুজোয় বিধিনিষেধ থাকা উচিত। গতবার হাইকোর্টের নির্দেশে; করোনার সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব হয়েছিল”।

এই নিয়ে ক্ষুব্ধ; পুজো উদ্যোক্তারা। তাঁদের মতে, ভোটে কোন বাধা নেই; হাজার-হাজার মানুষের ভোট-প্রচারে কোন বাধা নেই; অফিস-কাছারি খোলা; তাহলে শুধুমাত্র দুর্গা-পুজোয় মানুষের বিধি-নিষেধের জন্য এত উদ্যোগ কেন? পুজোতেই কি শুধু করোনা ছড়ায়? পুজো উদ্যোক্তাদের মতে, পুজোর সঙ্গে; শিল্পী, পুরোহিত, ঢাকি, প্যান্ডেল কর্মী আরও অসংখ্য মানুষ; জড়িত থাকেন। মানুষ ঠাকুর দেখতে চান; প্যান্ডেলে আসতে চান; পুজোর সময় বাইরে বেরোতে চান; তাঁদের কথা ভেবে পুজোতে বিধি-নিষেধ রাখা উচিত নয়।

আরও পড়ুনঃ মুখ্যসচিবের ভূমিকায় তীব্র অসন্তোষ, নির্বাচন কমিশনকে জরিমানা, হাইকোর্টে চরম লজ্জায় দুই প্রশাসন

গতবারের মতো এবারও কি পুজোতে; বিধিনিষেধ মেনে ঠাকুর দেখতে হবে? আদালতকে জবাব দেওয়ার জন্য; সময় চাইল রাজ্য সরকার। আগামী ১১ অক্টোবর; পুজোর ষষ্ঠী। গতবছরের মতো এবারও পুজোতে, বিধিনিষেধ জারি করার আবেদন জানিয়ে; জনস্বার্থ মামলা হয়েছে। মামলাকারীর দাবি, করোনা সংক্রমণ; এখনও যায়নি। ভিড় হলে ফের সংক্রমণ; ছড়ানোর আশঙ্কা।

তাই রাজ্য যাতে এবারও, বিধিনিষেধ জারি করে; আদালতে মামলা হয়েছে। মামলার শুনানি ছিল; হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের বেঞ্চে। বিচারপতিরা জানতে চান; রাজ্যের মতামত কি। হাইকোর্টের কাছে জবাব দেওয়ার জন্য; সময় চেয়ে নেয় রাজ্য। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ওই মামলার; পরবর্তী শুনানি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন