এবারের ভোটে রাজনৈতিক ভাবে অনেক এগিয়ে, পিছিয়ে পড়া জেলা পুরুলিয়া

394
নেতা নয়, ভোটে সাধারণ মানুষ কি বলছে জানুন/The News বাংলা
নেতা নয়, ভোটে সাধারণ মানুষ কি বলছে জানুন/The News বাংলা

পুরুলিয়া বলতেই আমরা বুঝি পশ্চিমবঙ্গের পিছিয়ে পড়া একটা জেলা। বাকি রাজ্যের তুলনায় সবদিক থেকেই অনেকটাই পিছিয়ে পড়া। কলকাতা সহ বাকি জেলাগুলির পুরুলিয়া নিয়ে চিন্তা ভাবনা বা দৃষ্টিভঙ্গি অনেকটা এরকমই। কিন্তু জেলা যে আর পিছিয়ে নেই তা কিন্তু এবার প্রমাণিত হয়েছে। রাজনৈতিক দিক দিয়েও সচেতন হচ্ছে পুরুলিয়া।

রবিবার পুরুলিয়া লোকসভায় ভোট গ্রহণ চলছে। তবে একমাস ধরেই গোটা জেলার সব মানুষের মোবাইলেই একটা লিখিত বার্তা ঘুরে বেড়াচ্ছে; লেখার মালিক কে কেউ জানে না। তবে এই বার্তার পর আর পুরুলিয়াকে রাজনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পড়া জেলা; বলার সাহস নেই কারোর। অন্তত রাজনৈতিক দলগুলোর তো নয়ই।

কি বার্তা ঘুরে বেড়াচ্ছে পুরুলিয়ার মানুষের মোবাইলে মোবাইলে; দেখে নিন একনজরে। এটা পুরুলিয়াবাসীদের মোবাইলে মোবাইলে ঘুরছে ইতিমধ্যেই পুরুলিয়া ছাড়িয়ে গোটা রাজ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে এই মোবাইল বার্তা।

সমস্ত পুরুলিয়াবাসীকে অসংখ্য ধন্যবাদ; চলতি লোকসভা ভোটে পুরুলিয়াকে ‘পাখির চোখ’ বানানোর জন্য। সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি এখন অনিশ্চয়তায় ভুগছে পুরুলিয়ার এমপি সিটটির জন্য। কোনো রাজনৈতিক দলই আজকে নিশ্চিত নয়; যে এই লোকসভা ভোটে তার কপালে শিকে ছিঁড়বে কি না।

সাম্প্রতিক সময়ে অজস্র বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এবং তারকাদের (মুখ্যমন্ত্রী মমতা মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক দেব নুসরাত মলয় ঘটক মিমি সূর্যকান্ত মিশ্র রাজ্জাক মোল্লা রাহুল গান্ধী বিপ্লব দেব কিরণ রিজিজু অমিত শাহ যোগী আদিত্যনাথ প্রধানমন্ত্রী মোদী সানি দেওল এবং আরো অনেকে) পুরুলিয়াতে ‘রাজনৈতিক তীর্থযাত্রা’ প্রমান করে যে গতকালের পিছিয়ে পড়া পুরুলিয়া-অজ্ঞ পুরুলিয়া-সহজ সরল পুরুলিয়া; আজকে তার এই সমস্ত অপমানজনক তকমাগুলোকে ঝেড়ে ফেলতে তৎপর হয়েছে।

বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা নেত্রীরা শুনে রাখুন, আজকের ‘রাজনৈতিক ভাবে সচেতন’ পুরুলিয়া তার প্রতি হওয়া প্রত্যেকটি অন্যায়ের হিসাব চাইবে। আজকের পুরুলিয়া শাসকের চোখে চোখ রেখে কথা বলার; স্পর্ধা দেখাতে বদ্ধপরিকর।

আজকের পুরুলিয়া রাজনৈতিক দলগুলোকে এই ইঙ্গিত দিতে সক্ষম যে; যদি আমরা পুরুলিয়াবাসীরা কোনো রাজনৈতিক দলকে শাসকের ক্ষমতায় বসাতে পারি তো আমরা আমাদের প্রতি অন্যায় হলে; সেই শাসককে ক্ষমতাচ্যুত করতেও বদ্ধপরিকর হতে পারি।

ধন্যবাদ পুরুলিয়াবাসী এতটা পথ এগিয়ে আসার জন্য; স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য; নিজের রাজনৈতিক অধিকার সম্মন্ধে সচেতন হওয়ার জন্য; সমস্ত রাজনৈতিক দলকে নাকে দড়ি দিয়ে ঘোরানোর জন্য।

বেঁচে থাকুক পুরুলিয়া; বেড়ে উঠুক পুরুলিয়া; প্রতিবাদী হোক পুরুলিয়া। সর্বশেষ; সবাই অবশ্যই ভোটের দিনে ভোট দিন; ছাপ্পাবাজি রুখে দিন; এবং কোনো রাজনৈতিক দলের প্ররোচনায় এসে অস্ত্র তুলে নিজের ভাইকে; পুরুলিয়ার নিজের ভাইকে; আঘাত হানবেন না।

আর এই বার্তাতেই পরিষ্কার; যে জাগছে পুরুলিয়ার মানুষ। যে ভাবে সব দলকেই তুলধোনা করেছে এই বার্তায়; তাতে এটা জলের মত পরিষ্কার। বাকি রাজ্যের চোখে; পিছিয়ে পড়া জেলা যে রাজনৈতিক ভাবে অনেকটাই সচেতন; তা কিন্তু পরিষ্কার।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন