স্কুলে নাগিন ড্যান্সে মত্ত শিক্ষক শিক্ষিকারা, খোয়ালেন সরকারি চাকরি

1231
স্কুলে নাগিন ড্যান্সে মত্ত শিক্ষক শিক্ষিকারা/The News বাংলা
স্কুলে নাগিন ড্যান্সে মত্ত শিক্ষক শিক্ষিকারা/The News বাংলা

পিছনে চলছে নাগিন ড্যান্সের গান। সামনে কেউ মেঝেতে শুয়ে; কেউ বসে আবার কেউ দাঁড়িয়েই; গানের তালে কোমর দোলাচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। ক্লাসরুমের মধ্যেই; উচ্চস্বরে গান বাজিয়ে ‘নাগিন ডান্স’! ক্লাসরুমের ঘটনায় সবার চক্ষু ছানাবড়া। ভিডিও ভাইরাল হতেই; শুরু হয় জোর তর্ক। সরকারি স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকার কাণ্ড দেখে; মাথার হাত উপর মহলের! শিক্ষক নাচ করলে ছাত্রছাত্রীরা কি করবে স্কুলের মধ্যে!

নানান তর্ক-বিতর্ক; অভিযোগের পর শেষ পর্যন্ত বরখাস্ত করা হয় এক ‘নৃত্য শিল্পী’কে। শো-কজ নোটিস পাঠানো হয়েছে আরও দুজনকে। অশ্লীল ভঙ্গিতে নাচার ভিডিও-টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই প্রশ্ন উঠে আসে বিভিন্ন মহল থেকে।

আরও পড়ুনঃ তাজ হোটেলে কয়েকশো মানুষকে বাঁচাতে একা লড়েছিলেন মেজর সন্দীপ উন্নিকৃষ্ণন

বেশ কিছুদিন আগে রাজস্থান জয়পুরের জালোর জেলায় ট্রেনিং নিতে গেছিলেন কয়েকজন শিক্ষক। সেখানেই কাজের বিরতিতে এই ঘটনা চোখে পরে। কার্পেটের উপর শুয়ে পরে ‘নাগিন ডান্স’ করতে দেখা যায় সরকারি শিক্ষকদের। ‘অশ্লীল’ বলে অনেকেই মন্তব্য করেন। উপরি স্কুলের মধ্যে এমন ঘটনা ঘটায় সমালোচনার মুখে পড়াটাই স্বাভাবিক বলে মনে করছেন নেটিজেনরা।

জালোরের জেলা শিক্ষা অধিকর্তা অশোক রোয়েশওয়াল বলেন; ‘আমরা এক শিক্ষককে সাসপেন্ড করেছি। যিনি ওই নাচ করার উদ্যোগ নেন। বাকি দুজনকে আমরা শোকজ করেছি। কারণ তাঁরা নতুন কাজে যোগ দিয়েছেন। স্কুলের নিয়ম সম্পর্কে সবকিছু জানেন না। নাচ করার মধ্যে কোনও অপরাধ নেই। তবে আচরণবিধি মেনে চলা উচিত’।

আরও পড়ুনঃ একে ৪৭ এর গুলি বুকে নিয়েও কাসভকে ছাড়েন নি তুকারাম

যদিও এক শিক্ষককে সাসপেন্ড করার ঘটনায় শিক্ষা দফতরের অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। তাদের দাবি, শিক্ষক-শিক্ষিকারা নিজেদের মধ্যেই মজা করছিলেন। সেটাও আবার অবসর সময়ে। নাচের মধ্যে কী খারাপ আর আপত্তিকর আছে। কোনও সরকারি কর্মচারী কি সহকর্মীদের সঙ্গে আনন্দ করতে পারবেন না।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন