বন্ধ দরজার আড়ালে ৫০ হাজার টাকায়, জামিন পেলেন রাজীব কুমার

5258
বন্ধ দরজার আড়ালে ৫০ হাজার টাকায়, জামিন পেলেন রাজীব কুমার/The News বাংলা Bengal
বন্ধ দরজার আড়ালে ৫০ হাজার টাকায়, জামিন পেলেন রাজীব কুমার/The News বাংলা Bengal

শেষ পর্যন্ত আগাম জামিন মঞ্জুর হয়ে গেল; প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের। বন্ধ দরজার আড়ালে ৫০ হাজার টাকায়; জামিন পেলেন রাজ্যের সিআইডি এডিজি রাজীব কুমার। কলকাতা হাইকোর্ট তাঁকে গ্রেফতারের হাত থেকে মুক্তি দিল; মাত্র ৫০ হাজার টাকার ব্যাক্তিগত জামিনের পরিবর্তে। গত সোমবার রাজীব কুমারের জামিনের শুনানি শেষ হয়ে ছিল। মঙ্গলবার হাইকোর্ট জামিন দিয়ে দিল রাজীব কুমারকে। মামলার রায়ে হাইকোর্ট জানিয়েছে; সবদিক খতিয়ে দেখে মনে করা হচ্ছে; রাজীব কুমারকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার প্রয়োজন নেই।

তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠালে; রাজীব কুমারকে হাজিরা দিতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। বিচারপতি শহিদুল্লাহ মুন্সি ও বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে; হাজিরার জন্য পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে ৪৮ ঘণ্টা সময় দেওয়া হবে।

আরও পড়ুনঃ দুর্গা পুজোর বোনাস দিতে বাংলায় আসছেন অমিত শাহ

সারদা মামলায় গ্রেফতার হতে পারেন; এই আশঙ্কায় আগাম জামিনের আবেদন নিয়ে আলিপুর আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন রাজীব কুমার। কিন্তু ২১ সেপ্টেম্বার নিম্ন আদালতে রাজীব কুমারের জামিন খারিজ হয়ে যায়। তারপর ২৩ সেপ্টেম্বর কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন রাজীব কুমার।

গত মঙ্গলবার রাজীব কুমারকে আত্মসমর্পণের পরামর্শ দেন; কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্ত। রাজীব কুমারের আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে; বিচারপতি স্পষ্ট নির্দেশ দিয়েছিলেন; “মক্কেলকে বলুন আত্মসমর্পণ করতে”। হাইকোর্টের এই নির্দেশের পর; মনে করা হচ্ছিল রাজীব কুমারের আগাম জামিন পাবার রাস্তা বন্ধ হল। কিন্তু সেই আশঙ্কা থেকে আইপিএস-কে মুক্তি দিল আদালত।

বিচারপতি শহিদুল্লাহ মুন্সি ও বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ যে রাজীব কুমারকে আগাম জামিন দেবে না; সে কথাই মনে করা হচ্ছিল। খোলা আদালতে বারবার জামিন খারিজ হয়ে যায় রাজীব কুমারের। এবারের এই শুনানি হয় ইন ক্যামেরা বা ক্লোজড ডোর। সাধারণ মানুষ ও সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার ছিল না। রাজীব কুমারের আইনজীবীদের অনুরোধ মেনে নেন দুই বিচারপতি। আর এখানেই উঠেছে প্রশ্ন।

যেখানে রাজীব কুমারকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছিলেন কলকাতা হাইকোর্ট; মনে করা হচ্ছিল পালিয়ে বাঁচার সব রাস্তাই বন্ধ। সেখানে ইন ক্যামেরা বা ক্লোজড ডোর সওয়াল জবাবের পরেই; আশ্চর্যজনক ভাবে জামিন মঞ্জুর হয়ে গেল রাজীব কুমারের। এরপরেই বিচারব্যবস্থা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ মানুষ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন