ইস্তফা দেবার পরেই, রাজীবকে মন্ত্রিত্ব থেকে অপসারণ করলেন মমতা

1841
ইস্তফা দেবার পরে অপসারণ, হাসছে বাংলার রাজনৈতিক মহল
ইস্তফা দেবার পরে অপসারণ, হাসছে বাংলার রাজনৈতিক মহল

ইস্তফা দেবার পরেই, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় কে; মন্ত্রিত্ব থেকে অপসারণ করলেন মমতা। রাজীব-তৃণমূলে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। ইস্তফা না অপসারণ? শুক্রবার দুপুরেই বনমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন; হাওড়ার ডোমজুড়ের বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। সন্ধ্যাবেলায় তৃণমূল জানায়, ইস্তফা পত্রে কিছু পদ্ধতি গত ত্রুটি আছে; তাই তিনি ইস্তফা দেবার আগেই; তাঁকে মন্ত্রিত্ব থেকে অপসারণ করা হল। আর এই নিয়েই উত্তাল বাংলার সোশ্যাল মিডিয়া। ইস্তফার পরে কি করে অপসারণ করা যায়? এরকমই প্রশ্ন তুলেছেন মানুষ। প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরাও।

শুক্রবার দুপুরেই, বনমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন রাজীব; শাহের সভায় বিজেপি যোগ দেবেন তিনি। গত দুমাসে সব মন্ত্রিসভার বৈঠকে তিনি; গরহাজির ছিলেন। রাজভবনে রাজ্যপালের কাছে; তিনি প্রথমে ই-মেলে ইস্তফা পাঠিয়ে দেন। দুপুরে তিনি দেখা করলেন; রাজ্যপালের সঙ্গে। অমিত শাহের সভায়; তিনি বিজেপি যোগ দেবেন, এমনটাই জানা গেছে। এদিন তিনি রাজ্যপালকে নিজের ইস্তফা পাঠান। তারপরেই, তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে; নিজের ইস্তফা পাঠিয়ে দেন। এরপরেই বিকালের দিকে তাঁকে, মন্ত্রীসভা থেকে; অপসারণ করে তৃণমূল।

আরও পড়ুনঃ বৈশালী ডালমিয়া তৃণমূল থেকে বহিষ্কৃত, অমিত শাহের সভায় বিজেপি যোগ

এরপরেই, ইস্তফায় পদ্ধতিগত ত্রুটি রয়েছে; এই অভিযোগ তুলে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগপত্র গ্রহণ না করে; রাজীবকে নিজের মন্ত্রীসভা থেকে অপসারণ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য দাবি করেছিলেন; কালীঘাটে মমতার বাড়িতে, খোদ মুখ্যমন্ত্রীর অফিসে গিয়ে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ বনমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা রাজীবের, শাহের সভায় বিজেপি যোগ

রাজ্য সরকারের দাবি, নিয়ম অনুযায়ী একজন মন্ত্রী পদত্যাগ করলে; তাঁর পদত্যাগ পত্র প্রথমে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠাতে হয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রে তা হয়নি। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথমে রাজ্যপালের কাছে; নিজের পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বলে দাবি নবান্নের। সেই কারণেই, মুখ্যমন্ত্রী মমতা রাজীবকে অপসারণ করার; সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এরপরেই এই নিয়ে শোরগোল পরে যায়। সোশ্যাল মিডিয়া শুরু হয়েছে; জোর তর্ক বিতর্ক।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন