অযোধ্যায় রাম মন্দির, হিন্দুদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন সফলে তিন মুসলিম মহম্মদ রিজভি নাজির

1290
অযোধ্যায় রাম মন্দির, হিন্দুদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন সফলে তিন মুসলিম মহম্মদ রিজভি নাজির/The News বাংলা
অযোধ্যায় রাম মন্দির, হিন্দুদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন সফলে তিন মুসলিম মহম্মদ রিজভি নাজির/The News বাংলা

মানব গুহঃ অযোধ্যায় রাম মন্দির; হিন্দুদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন সফলে তিন মুসলিম এর ভুমিকা অনস্বীকার্য। অযোধ্যা মামলায় রায়; ভারতীয় বিচার বিভাগের ইতিহাসে আরও একটি রেড লেটার ডে। ভারতের মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গোগোইয়ের নেতৃত্বে; সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারকের বেঞ্চ অযোধ্যা বিতর্ক মামলায় রাম জন্মভূমি ন্যাসের পক্ষেই রায় ঘোষণা করেন। তার পরেই দেশ জুড়ে হিন্দুরা রীতিমত উৎসব পালন শুরু করে।

আদালত এর রায়ে বিতর্কিত স্থানে তৈরি হবে রাম মন্দির। এবং মসজিদ তৈরির জন্য; অযোধ্যায় বিকল্প পাঁচ একর জমি দেওয়া হবে। আর হিন্দুদের বহু বছরের এই স্বপ্ন সফল হবার পিছনে অনেক মানুষের পাশাপাশি রয়ে গেল মুসলিম ধর্মের তিন মানুষের হাত। এঁরা হলেন কে কে মহম্মদ, ওয়াসিম রিজভি ও বিচারপতি সৈয়দ আবদুল নাজির।

আরও পড়ুনঃ অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের নিচে রাম মন্দির খুঁজে বের করেছিলেন মহম্মদ

সাধারণ উপলব্ধি ছিল; এরপর হিন্দু বনাম মুসলিম ইস্যু ছড়িয়ে পড়বে। কিন্তু অযোধ্যায় হিন্দুদের রাম মন্দির স্থাপনের স্বপ্ন পূরণের জন্য; কয়েকজন বিশিষ্ট মুসলমান রয়েছেন; যারা এই স্বপ্ন পূরণে সহযোগিতা করেছেন। তাঁরই রাম জন্মভূমি এলাকা পুনরুদ্ধারের আহ্বানকে সমর্থন করে; ও মন্দির তৈরির ন্যায়বিচারকে সর্বোপরি উচ্চ আদালতের রায়কে সমর্থন করেছেন। একনজরে দেখে নিন এই তিনজন ভারতীয়কে। যারা আগে ভারতীয় তারপর মুসলিম ধর্মের প্রতিনিধি।

আরও পড়ুনঃ অযোধ্যায় রাম মন্দির রায়, আদালতের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলল বামেরা

কে কে মহম্মদঃ

কে কে মহম্মদ হলেন; ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ বিভাগের প্রাক্তন আঞ্চলিক পরিচালক (উত্তর)। কে কে মহম্মদ যিনি বিতর্কিত স্থানে হিন্দু কাঠামোর অস্তিত্ব প্রমাণ করেছিলেন। এই কে কে মহম্মদই প্রথম বলেছিলেন বাবরি মসজিদের তলায় একটি হিন্দু মন্দির ছিল। তিনি অযোধ্যায় বিতর্কিত স্থানে; এএসআইয়ের প্রত্নতাত্ত্বিক অনুসন্ধানের গুরুত্ব এবং বৈধতার উপর জোর দিয়েছিলেন।

করা সমালোচনা; চাকরি থেকে বরখাস্ত হওয়ার ভয় দেখিয়েও; কে কে মহম্মদকে তাঁর অবস্থান থেকে এক ইঞ্চিও সরান যায় নি। তিনিই প্রথম বলেছিলেন যে; বিতর্কিত বাবরি মসজিদ কাঠামোর পথ তৈরির জন্য এটি একটি হিন্দু কাঠামোকে ভেঙে ফেলা হয়েছিল।

শনিবার ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ বিভাগের প্রাক্তন আঞ্চলিক পরিচালক (উত্তর) কে কে মহম্মদ বলেছেন; “অযোধ্যা বিতর্ক মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায় এর পর তিনি উজ্জীবিত বোধ করেছেন”। অযোধ্যায় বিতর্কিত স্থানে দশ সদস্যের খননকার্যের দলের সদস্য; কে কে মহম্মদ প্রথম বলেছিলেন যে; “অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ হওয়ার আগে একটি রাম মন্দির ছিল। তার অনেক প্রমাণ রয়েছে”।

আরও পড়ুনঃ জয় শ্রী রাম, অযোধ্যায় জিতল রাম মন্দির, মসজিদ হবে অন্য জায়গায়

ওয়াসিম রিজভীঃ

উত্তরপ্রদেশ শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান ওয়াসিম রিজভি; অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড কে চিঠি লিখে হিন্দুদের মন্দির ভেঙে বানানো মসজিদগুলিকে হিন্দুদের ফেরত দেওয়ার কথা বললেন। ওই চিঠিতে উনি অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ সমেত; আরও ৯ টি মন্দিরের নাম নেন। তিনি ওই মসজিদগুলি কত সালে; এবং কোন শাসক কোন মন্দির ভেঙে নির্মাণ করেছিলেন তার বিস্তারিত বর্ণনা দেন।

মুসলমান হওয়া মানেই সত্য নির্বিশেষে হিন্দুদের রাম জন্মভূমি দাবীটিকে নস্যাৎ করা নয়; তা পরিষ্কার জানিয়ে দেন ওয়াসিম রিজভী। তবে শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের প্রধান সৈয়দ ওয়াসিম রিজভী; অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে রাম জন্মনভূমি নির্মাণের জন্য সমর্থন জানানোর সময়; ভ্রু কুঁচকেছিলেন গোটা ভারতের মুসলিম সম্প্রদায়। এমনকি তিনিই প্রথম প্রস্তাব দিয়েছিলেন যে; কোনও বিকল্প জায়গায় মসজিদটি তৈরি করা যেতে পারে; এমন একটি জিনিস যা দিয়ে এমনকি সুপ্রিম কোর্টও তাতে রাজি হয়েছিল। পরে শীর্ষ আদালতের রায়েই তা প্রমাণ হয়।

এ ছাড়া সৈয়দ ওয়াসিম রিজভী হলেন তিনি; যিনি “রাম জন্মভূমি” নামে একটি ফিল্ম প্রযোজনা করেছেন। এমন একটি চলচ্চিত্র যা প্রকাশ্যে এই বিষয়টির আসল বাস্তবতা এবং আশেপাশের বিতর্কগুলি উপস্থাপন করেছে।

আরও পড়ুননিরপেক্ষ হয়নি শীর্ষ আদালতের রায়ে, অসন্তোষ প্রকাশ মুসলিম সমাজের

বিচারপতি সৈয়দ আবদুল নাজিরঃ

বিচারিক দৃষ্টিকোণ থেকে বিচারপতি সৈয়দ আবদুল নাজির; যিনি দেশের মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গোগোই এর ডিভিশন বেঞ্চের পাঁচ বিচারকের বেঞ্চের অংশ ছিলেন; তিনিও বিতর্কিত স্থানে রাম মন্দির পুনরুদ্ধারের পক্ষে রায় দিয়েছেন। “একটি উদ্দেশ্যমূলক, নিরপেক্ষ রায় দেওয়ার জন্য আমাদের প্রশংসা ও কৃতজ্ঞতার দাবিদার হলেন বিচারপতি সৈয়দ আবদুল নাজির”; রায় ঘোষণার পরেই অভিনন্দন গেরুয়া শিবিরের।

প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ; রাম জন্মভূমি পুনরুদ্ধার ও রাম মন্দির নির্মাণের পক্ষে সর্বসম্মতিক্রমে ৫-০-এর রায় দিয়েছে এবং এতে বিচারপতি নাজিরের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। বহু বছর ধরে অযোধ্যায় রাম মন্দির গড়ার হিন্দু স্বপ্নকে পূরণ করতে তিনজন ভারতীয় মুসলিমের অবদান অনস্বীকার্য।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন