অযোধ্যায় রামমন্দির রায় দেবার আগেই আইনশৃঙ্খলা নিয়ে বৈঠক প্রধান বিচারপতির

570
অবাক কাণ্ড, অযোধ্যায় রামমন্দির রায় দেবার আগেই আইনশৃঙ্খলা নিয়ে বৈঠক প্রধান বিচারপতির

অবাক কাণ্ড, অযোধ্যায় রামমন্দির রায় দেবার আগেই; আইনশৃঙ্খলা নিয়ে বৈঠক প্রধান বিচারপতির। চিফ জাস্টিস অফ ইন্ডিয়া (সিজেআই) রঞ্জন গোগোই রাম মন্দির ইস্যুতে; সুপ্রিম কোর্টের রায়ের আগেই উত্তর প্রদেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে; উত্তর প্রদেশের-র মুখ্যসচিব অনুপ চন্দ্র পান্ডে এবং ইউপি ডিজিপি ওম প্রকাশ সিংকে আলোচনা করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। আর এই খবরেই নড়েচড়ে বসেছে গোটা দেশ।

সাধারণত দেশের প্রধান বিচারপতি কোন রায় দেবার আগে; আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে কোন রাজ্যের মুখ্যসচিব ও ডিজিপি-র সঙ্গে কথা বলছেন; এটা সাধারণত দেখা যায় না। অযোধ্যায় রামমন্দির রায় দেবার আগেই; সেটাই করছেন চিফ জাস্টিস অফ ইন্ডিয়া (সিজেআই) রঞ্জন গোগোই। আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে বৈঠক করছেন প্রধান বিচারপতি।

আরও পড়ুনঃ প্রথম দেশীয় স্নাইপার রাইফেল, ভারতীয় সেনার হাতে মেক ইন ইন্ডিয়ার প্রডাক্ট

সুপ্রিম কোর্টের সূত্র অনুসারে; সিজেআই রঞ্জন গোগোই; রাজ্যে নিরাপত্তার প্রস্তুতি পর্যালোচনা করার জন্য; অযোধ্যা রায়ের আগেই ইউপি মুখ্যসচিব এবং ইউপি ডিজিপির সঙ্গে; আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করবেন। রায় ঘোষণার পরেও ইউপিতে আইন শৃঙ্খলা অক্ষুণ্ণ রাখতেই; সিজেআই গোগোই ইউপি কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করবেন।

উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথও; রাজ্যের শীর্ষ সিভিল অফিসার এবং পুলিশ আধিকারিক; বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা ম্যাজিস্ট্রেটদের সঙ্গে গভীর রাতে ভিডিও কনফারেন্স করেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের সাহায্যও চেয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ হাটে হাঁড়ি ভাঙল ন্যাশান্যাল টেস্টিং এজেন্সি, জয়েন্ট এন্ট্রান্সে বাংলার আবেদনই করে নি মমতা

ভিডিও কনফারেন্সে তিনি বলেছিলেন; রাম মন্দির ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টের রায় কার্যকর হওয়ার আগে; সুরক্ষা ব্যবস্থার অংশ হিসাবে দুটি হেলিকপ্টার লখনউ ও অযোধ্যাতে স্ট্যান্ডবাইতে থাকবে। জরুরি অবস্থার ক্ষেত্রে এই হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে বলে এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

পরে একটি সরকারী বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে; মুখ্যমন্ত্রী প্রতিটি জেলায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছেন এবং স্বাভাবিকতা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন। রাম মন্দির রায় ঘোষণা হলেই; উত্তর প্রদেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে বলেই কেন মনে করছে রাজ্য প্রশাসন? কেন একই মনোভাব দেশের শীর্ষ আদালতের? তাহলে কি রাম মন্দির রায়ে সেই ধরণের কিছু থাকছে? উঠে গেছে প্রশ্ন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন