‘আধুনিক’ হলেন জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা, রথ ছেড়ে এবার গাড়িতে

3307
'আধুনিক' হলেন জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা, রথ ছেড়ে এবার গাড়িতে
'আধুনিক' হলেন জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা, রথ ছেড়ে এবার গাড়িতে

আধুনিক হলেন জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা; রথ ছেড়ে এবার গাড়িতে। হ্যাঁ, গল্প হলেও সত্যি! করোনা পরিস্থিতিতে রথযাত্রা নিয়ে অভিনব সিদ্ধান্ত নিল; কলকাতা ইসকন কর্তৃপক্ষ। ইসকনের তরফে জানানো হয়েছে, এবার রথে নয়, গাড়িতে চড়ে মাসির বাড়ি যাবেন; জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা। এসকর্ট করবে; কলকাতা পুলিশের পাইলট কার। মুখ্যমন্ত্রী মমতার দেওয়া ভোগ নিবেদন এবং আরতির পরল শুরু হবে এই অভিনব রথযাত্রা। ২ বছর পর অ্যালবার্ট রোড থেকে গুরুসদয় দত্ত রোডে; মাসির বাড়িতে যাবেন জগন্নাথ, বলরাম ও সুভদ্রা।

ইসকনের তরফে জানানো হয়েছে; “রথযাত্রার দিন, অর্থাৎ ১২ই জুলাই ২০২১; দুপুরের দিকে, আমরা শ্রী শ্রী জগন্নাথ, বলদেব এবং সুভদ্রা দেবীকে; ইসকন হাউসে, ২২ গুরুসদয় রোডে একটি প্রাঙ্গনে নিয়ে যাব এবং যেখানে তাঁরা ২০ জুলাই সন্ধ্যা অবধি অবস্থান করবেন। ১২ জুলাই ২০২১, রথযাত্রার দিন; শ্রী জগন্নাথ, বলদেব এবং সুভদ্রা দেবী আমাদের ৩সি, আলবার্ট রোডের মন্দির থেকে; ২২ গুরুসদয় রোডে ইসকন হাউসে যাত্রা করবেন। যা প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে; এবং ১৫ যানবাহনের কনভয় থাকবে”।

আরও পড়ুন; বাংলাকে মমতার চমক, প্রথম মহিলা মেয়র পেতে চলেছে কলকাতা

কলকাতা ইসকন আরও জানিয়েছে; “শ্রী জগন্নাথ, বলদেব এবং সুভদ্রা দেবী ২০ শে জুলাই (উল্টা-রথযাত্রা) সন্ধ্যা ৪ টা অবধি; “মাসি বাড়ি”তে অবস্থান করবেন এবং সন্ধ্যা ৫ টা নাগাদ; কলকাতা পুলিশের সঙ্গে তাঁরা ৩সি, আলবার্ট রোডের ইসকন মন্দিরে ফিরে যাবেন। ২২, গুরুসদয় দত্ত রোডে ইসকন হাউস এ তাদের “মাসি বাড়ি” থাকাকালীন; প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সীমিত সংখ্যক দর্শনার্থীকে; দর্শন করতে দেওয়া হবে।

করোনা আবহে ভার্চুয়ালি রথযাত্রা দেখার; পরামর্শ দিয়েছে ইসকন কর্তৃপক্ষ। করোনা আবহে একের পর এক; ঐতিহ্যের রথযাত্রা স্থগিত হয়ে যাচ্ছে। আবার অনেক রথযাত্রার; চিরাচরিত নিয়ম ও প্রথা পাল্টে যাচ্ছে। যেমন গত বছরের মতো এবারও গড়াবে না; হুগলির মাহেশের রথের চাকা। এবছর ৬২৫ বছরে পা দেবে; মাহেশের রথযাত্রা। ভারতের দ্বিতীয় ও বাংলার সবচেয়ে পুরনো; এই মাহেশের রথ। গড়াবে না পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলের; ২৪৫ বছরের পুরনো রথের চাকাও। করোনা পরিস্থিতিতে এবারও জাঁকজমকহীন ভাবেই; রথযাত্রা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদল রাজপরিবার ও জেলা প্রশাসন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন