করোনা বিপদেও বাংলায় রেশন দুর্নীতি প্রমাণিত, ২৮৩ জন রেশন ডিলার অভিযুক্ত

1513
করোনা বিপদেও বাংলায় রেশন দুর্নীতি প্রমাণিত, ২৮৩ জন রেশন ডিলার অভিযুক্ত
করোনা বিপদেও বাংলায় রেশন দুর্নীতি প্রমাণিত, ২৮৩ জন রেশন ডিলার অভিযুক্ত

করোনা বিপদেও বাংলায় রেশন দুর্নীতি প্রমাণিত; ২৮৩ জন রেশন ডিলার অভিযুক্ত। এদের মধ্যে কয়েকজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে; বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। করোনা পরিস্থিতি শুরু হবার পর থেকেই; রাজ্যে রেশন দুর্নীতি নিয়ে বিস্তর অভিযোগ উঠেছিল। সাধারণ মানুষ থেকে বিরোধী দল; এমনকি রাজ্যপালও অভিযোগ করেছিলেন রেশন দুর্নীতি নিয়ে। রাজ্য সরকার প্রথম থেকেই অস্বীকার করেছিল; যে কোন রেশন দুর্নীতি হয় নি। তবে এবার রাজ্য সরকারেরই খাদ্য দফতরের তদন্তে; উঠে এল মারাত্মক তথ্য। দেখা গেল, করোনা আবহে রেশন দুর্নীতি হয়েছে। ২৮৩ জন রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে; রেশন দুর্নীতি প্রমাণিত হয়েছে।

করোনা আবহে, রেশন দুর্নীতি রুখতে; এই ২৮৩ রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে রাজ্য খাদ্য দপ্তর। ইতিমধ্যেই কয়েকজনকে সাসপেন্ড করে দেওয়া হয়েছে; বলেই জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এর আগে, রেশন দুর্নীতির অভিযোগ তুলে রাজ্যকে পাঠানো; রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের চিঠির কড়া জবাব দেয় নবান্ন। গত শনিবার রাজভবনে পাঠানো ওই চিঠিতে; রেশন নিয়ে রাজ্যপালের তোলা অনিয়মের সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছিল।

নবান্ন সূত্রে খবর; রাজ্যপালকে পাঠানো ওই চিঠিতে জানানো হয়; “ইতিমধ্যেই ৯ কোটিরও বেশি মানুষ (রাজ্যের ৯০ শতাংশ জনগণ)-কে; গণবন্টন ব্যাবস্থার মাধ্যমে এই সঙ্কটজনক সময়ে; খাদ্যশস্য পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকার রেশন ব্যবস্থার মাধ্যমে; সুষ্ঠুভাবে খাদ্যশস্য পৌঁছে দিতে বদ্ধপরিকর। নির্দিষ্ট বিধি মেনেই; সামগ্রিক নজরদারির মধ্যে দিয়ে সেই বন্টন ব্যবস্থা চলছে।

আর সেই চিঠি পাঠাবার কয়েকদিনের মধ্যেই; রাজ্য সরকারেরই খাদ্য দফতরের তদন্তে উঠে এল মারাত্মক তথ্য। প্রমাণ হল, সাধারণ মানুষ, বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাদের; ও স্বয়ং রাজ্যপালের তোলা অভিযোগ সম্পূর্ণ সত্য ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত রাজ্য সরকারের ঘুম ভেঙেছে; এতেও কিছুটা হলেও খুশি আমজনতা। তবে রাজ্য সরকারের নিজের তদন্তেই ২৮৩ জন ধরা পরলে; বাংলার আসল তথ্যটা কি? প্রশ্ন তুলেছে বাম ও বিজেপি নেতারা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন