ড্রাগচক্রে গ্রেফতার মেয়ে রিয়া, পুলওয়ামা কাণ্ডে মোদী সরকারের দিকে আঙুল তুললেন রিটায়ার্ড কর্নেল

1360
ড্রাগচক্রে গ্রেফতার মেয়ে, সেনাবাহিনীর দিকে আঙুল তুললেন রিটায়ার কর্নেল

ড্রাগচক্রে গ্রেফতার মেয়ে রিয়া; আর তারপরেই, পুলওয়ামা কাণ্ডে মোদী সরকারের দিকে আঙুল তুললেন রিটায়ার্ড কর্নেল। ছেলের পর মেয়েকেও গ্রেফতার করা হতে পারে বলে; আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন রিয়া চক্রবর্তীর বাবা; রিটায়ার্ড কর্নেল ইন্দ্রজিত চক্রবর্তী। তাঁর সেই আশঙ্কা সত্যি হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে মাদক কাণ্ডে গ্রেফতার করা হয়েছে; সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলায় মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তীকে। মেয়েকে গ্রেফতারের পরেই; মোদী সরকার ও ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে মুখ খুললেন; অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল রিয়া চক্রবর্তীর বাবা ইন্দ্রজিত চক্রবর্তী।

আরও পড়ুনঃ পুরুলিয়ায় আদি বাড়ি রিয়ার, গ্রেফতারের খবর বিশ্বাসই হচ্ছে না তুন্তুড়ির বাসিন্দাদের

সুশান্ত মামলায় মাদক যোগে, আগেই গ্রেফতার করা হয়েছে; রিয়ার ভাই শৌভিক; সুশান্তের হাউজ ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা; সুশান্তের পরিচারক কেশব-সহ মোট নয় জনকে। রিয়াকে গ্রেফতারের পরেই; ভারতীয় সেনার অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল নিশানা করেন; সরকার, ইন্ডিয়ান আর্মি ও মিডিয়াকে। নিজের টুইটারে তিনি লেখেন; “আমার লাডলি মেয়ের কাছে ড্রাগ কোথা থেকে এল; মিডিয়া খুঁজে বার করে ফেলেছে। কিন্তু পুলওয়াবামায় ৩০০ কিলো আরডিএক্স কোথা থেকে এল; সেটা আজ পর্যন্ত কেউ জানল না”।

আরও পড়ুনঃ লোহার রড, বর্শা, ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলার পরিকল্পনা ব্যর্থ চিনা সেনার, ছবি প্রকাশ করে ফাঁস করে দিল ভারত

অবসর প্রাপ্ত কর্নেলের এই মন্তব্যের পরেই; বিতর্ক শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। নেটিজনেদের বক্তব্য; মেয়ের ড্রাগচক্রের সঙ্গে যোগাযোগকে হালকা করার জন্য; ভারত সরকার ও ভারতীয় সেনার দিকে আঙুল তুলেছেন রিয়ার বাবা। নিজে ভারতীয় আর্মির কর্নেল পদে থেকেও; সেই আর্মির দিকেই আঙুল তুলছেন তিনি; অভিযোগ সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে।

সুশান্ত সিং মৃত্যু মামলায়; নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর তদন্ত শুরুর পর; গত রবিবার থেকে পরপর তিনদিন রিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়। রবিবার ছ’ঘণ্টা; সোমবার আট ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়েন রিয়া। মঙ্গলবার সকাল ১০ টা ৩০ মিনিট নাগাদ আবার এনসিবির দক্ষিণ মুম্বইয়ের অফিসে পৌঁছান অভিনেত্রী। সেখানে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা জেরার পর; রিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। এরপরেই রিয়ার বাবার; সেই লজ্জাজনক টুইট।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন