বাংলার তরুণ প্রজন্মের মনে বিকৃতি ঢুকিয়ে জিতে গেল রোদ্দুর রায়

4118
বাংলার তরুণ প্রজন্মের মনে বিকৃতি ঢুকিয়ে জিতে গেলেন রোদ্দুর রায়
বাংলার তরুণ প্রজন্মের মনে বিকৃতি ঢুকিয়ে জিতে গেলেন রোদ্দুর রায়

বুকে পিঠে কদর্য ভাষা; ধরা পড়ে গেল পড়ুয়ারা। রবীন্দ্রভারতীর বসন্ত উৎসব; বদলে গিয়েছে বিতর্কে। রাজ্য জুড়ে উঠেছে ছি ছি রব। ছবিতে দেখা যাচ্ছে; কারও পিঠে লেখা রোদ্দুর রায়ের বিতর্কিত রবীন্দ্রসংগীতের লাইন। তো কারও বুকে অশ্লীল গালিগালাজ। আর এসব নিয়েই, শহরের ঐতিহ্যবহনকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান; কাল থেকেই রয়েছে খবরের শিরোণামে। রাস্তায় ঘাটে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে শুধুই রবীন্দ্রভারতী। এমন ঘটনার পরই; অভিযুক্তদের সন্ধানে খোঁজ শুরু করেছিল; বিশ্ব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অবশেষে সেই ছ-জনের চারজনকে খুঁজে পাওয়া গেল শুক্রবার। বাংলার তরুণ প্রজন্মের মনে; বিকৃতি ঢুকিয়ে জিতে গেল সেই রোদ্দুর রায়ই।

বৃহস্পতিবারই রবীন্দ্রভারতীতে ছিল দোল উৎসব। বিশ্ববিদ্যালয় তো বটেই; প্রতিবছরের মত এবছরও বাইরের মানুষও; এসে ভিড় জমান ক্যাম্পাসে। সেদিন বিকেল থেকেই; নেট দুনিয়ায় একটি ছবি ভাইরাল হয়ে পড়ে। যেখানে চারজন মেয়েকে হলুদ শাড়ি পরে; পেছন ফিরে থাকতে দেখা গিয়েছে। তাদের পিঠে আবীর দিয়ে বড় বড় অক্ষরে লেখা; রোদ্দুর রায়ের বিখ্যাত বিকৃত গান; ‘ বাঁ. চাঁদ উঠেছিল গগনে’। সেই গানেই বিতর্কিত ভাষায় লেখা; নানান গালি-গালাজ।

রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের মত; সম্মানীয় এক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন ঘটনা কি করে ঘটল; তা নিয়ে হতবাক শিক্ষামহল। এই ঘটনার কড়া নিন্দায় সরব হন; চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ থেকে সঙ্গীতশিল্পী শ্রাবণী সেন। ঘটনার তীব্র নিন্দা করে সঙ্গীতশিল্পী শ্রাবণী সেন জানান; সামনের বছর থেকে বসন্ত উৎসব বন্ধ করে দেওয়া উচিৎ।

রোদ্দুর রায়! বিচিত্র একটা চরিত্র! আসলে এই মানুষটাকে বিচিত্র; বিতর্কিত বললেও কম বলা হয়। ফেসবুকে ও ইউটিউবে উদ্ভট সব ভিডিও বানায়। রবীন্দ্রসঙ্গীতের ভুতুড়ে সব ভার্সন বানায়। নিজের মত সুর করেন; উল্টো-পাল্টা সব শব্দ ব্যবহার করে। গালিগালাজ থাকে সেই গানের ভাষায়। আবার সেসব গান সে নিজেই গায়। এরপর ছেড়ে দেয় ফেসবুকে।

স্যোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা; বিপুল উৎসাহ নিয়ে সেসব ভিডিও দেখেন, শেয়ার করেন। আর তারপর সেই গান; ভাইরাল হওয়া ঠ্যাকায় কে! বিশেষ করে তার ‘যেতে যেতে পথে, পূর্ণিমা রাতে; চাঁদ উঠেছিল’ গানের প্যারোডি ভার্সনটা; এতটাই জনপ্রিয় হয়েছে যে বলার বাইরে! আর সেই গানের লাইন; এবার সুন্দরী ছাত্রীদের ব্লাউজের খোলা পিঠে; ‘ বাঁ. চাঁদ উঠেছিল গগনে’।

বাংলা ভাষায় যারা ফেসবুক ব্যবহার করেন; তাদের কাছে এটা খুব পরিচিত একটা নাম; রোদ্দুর রায়। এককথায় সে ইন্টারনেটের সেনসেশন। আর তার সৃষ্টি সেই গালিগালাজের গান; এখন ছাত্র ছাত্রীদের মুখে মুখে। তার গানেই হয়; কলেজের নবীন বরণের নাচা গানা। ‘যেতে যেতে পথে, পূর্ণিমা রাতে; চাঁদ উঠেছিল’; এখন রবীন্দ্রসঙ্গীত এর চেয়েও বেশি বিখ্যাত। আর বাংলার তরুণ প্রজন্মের মনে বিকৃতি ঢুকিয়ে; জিতে গেল রোদ্দুর রায়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন