“২০১৬ তে রাজনীতিতে এসে এত বলবে কেন”, সাসপেন্ড বৈশালীকে সৌগত

1505
"২০১৬ তে রাজনীতিতে এসে এত বলবে কেন", সাসপেন্ড বৈশালীকে সৌগত

“২০১৬ তে রাজনীতিতে এসে এত বলবে কেন”; সাসপেন্ড বৈশালীকে উদ্দেশ্য করে বলেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। দলবিরোধী কাজকর্ম করায় ও দলের বিরুদ্ধে মুখ খোলায়; শুক্রবার বৈশালী ডালমিয়াকে বহিষ্কার করে তৃণমূল। গত কয়েকদিন ধরেই, দলের বিরুদ্ধে; ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে মূলত তিনটি অভিযোগ রয়েছে; তৃণমূলের তরফে। প্রথমত দলের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে কথা বলা; প্রকাশ্যে মুখ খোলা; দ্বিতীয়ত দলের ভাবমূর্তির চূড়ান্ত ক্ষতি করা এবং তৃণমূলের বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগাযোগ। গত কয়েক দিন ধরেই; তিনি বেসুরো ছিলেন। এদিন তাঁর বহিষ্কারের পর; তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সৌগত রায় বলেন; “এই তো সবে, ২০১৬ তে রাজনীতিতে এসে; এত বললে হবে”। অন্যদিকে, তৃণমূলের সাসপেন্ডের পর, বৈশাখী বলেছেন; “বাঁচলাম”।

বৈশালীকে সাসপেন্ডের পর, সৌগত এদিন বলেন; “বৈশালী অনেকদিন ধরেই; বেসুরো গাইছিল। রাজীবের পদত্যাগের পর দল ব্যবস্থা ছিল। বৈশালী তো সবে রাজনীতিতে এল; ২০১৬-তে রাজনীতিতে এসে; এত বললে কী করে চলবে? আমরাও ৫০ বছর রাজনীতি করছি। এত অসহিষ্ণুতা ভাল না”। এর মধ্যেই, তৃণমূল নেতা ব্রাত্য বসু বলেন; “ওঁনাকে বিধায়ক করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়; অরূপ রায় নন”।

আরও পড়ুনঃ ইস্তফা দেবার পরেই, রাজীবকে মন্ত্রিত্ব থেকে অপসারণ করলেন মমতা

অন্যদিকে, সাসপেন্ডের খবর শুনে বৈশালী জানান; “আমি খুব খুশি হলাম। তৃণমূলে যাঁরা আছেন, তাঁদের চেয়ে অন্য দল থেকে আসা; লোকেদের বেশি গুরুত্ব দেন মমতা। ভাল হল, আমাকে বিড়ম্বনায় ফেলা হল না। বলেছিলাম, দলের মধ্যে উইপোকারা; পুরনো কর্মীদের কাজ করতে দেয় না, তাদের সরিয়ে দেওয়া উচিত। স্বচ্ছ ভাবমূর্তি মানুষের এখানে জায়গা নেই। নেতাদের সঙ্গে আস্তে আস্তে; স্বচ্ছ ভাবমূর্তির ভোটাররাও সরে যাবে”।

হাওড়ায় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অরূপ রায়ের দ্বন্দ্ব; নতুন নয়। প্রথম থেকেই এই দ্বন্দ্বে অরূপ রায়ের বিরুদ্ধে; ক্ষোভ প্রকাশ করে এসেছেন বৈশালী। এদিন রাজীব মন্ত্রীত্ব ছাড়তেই, সরাসরি অরূপ রায়ের নাম করে বলেন; তাঁর জন্যেই কাজ করা অসম্ভব হয়ে যাচ্ছে। বৈশালী বলেছিলেন; “রাজীব মন্ত্রীত্ব ছাড়ায়; দলের বড় ক্ষতি হয়ে গেল। শুধু দলের নয়; এটা সাধারণ মানুষেরও ক্ষতি। দল এই মন্তব্য মোটেই; ভালো ভাবে নেয়নি। বিকেলেই বৈশালীকে সাসপেন্ড করে পদক্ষেপ নেয়; তৃণমূলের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন