বাংলাকে চমকে দিয়ে, জল বাঁচাতে কলেজ পড়ুয়াদের অসাধারন কীর্তি

450
বাংলাকে চমকে দিয়ে, জল বাঁচাতে কলেজ পড়ুয়াদের অসাধারন কীর্তি/The News বাংলা
বাংলাকে চমকে দিয়ে, জল বাঁচাতে কলেজ পড়ুয়াদের অসাধারন কীর্তি/The News বাংলা

শহরে যেদিকে চোখ যাবে সেদিকেই জল নিয়ে সচেতনতা বাড়ানোর বিজ্ঞপ্তি। বর্তমানে জল সংকটে ভুগছে পশ্চিমবঙ্গসহ বহু রাজ্য। পরিবেশের হাল-হাকিকাতের খবর দিচ্ছে এইবারের বৃষ্টির পরিমাণে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জল ও পরিবেশ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে মিছিল করলেন কলকাতায়। সেই মিছিলে পা মেলালেন বহু গুনী মানুষজন। কিন্তু কতজন সত্যিই সচেতন এই বিষয়ে? এককভাবেও যে কয়েক শো লিটার জল বাঁচানো যায় তা মনে রাখেন ক’জন!

শহরের রাস্তার ধারে লাগানো সরকারী জলের কলগুলোতে ট্যাপ লাগানো নেই বহুদিন ধরে। পথ চলতি মানুষেরও ভ্রূক্ষেপ নেই সেদিকে। আর সরকার শহরে ‘ত্রিফলা’ না লাগিয়ে জলের কল ঠিক করবে আশা করাও পাপ। তাই সেই দায়িত্ব পালন করতে এগিয়ে এলো যুব সমাজের কিছু প্রতিনিধি।

তাই শহরের দুই কলেজ পড়ুয়া, ঋক ধর্মপাল ব্যানার্জী ও তার সহপাঠী শালিনী মাজি; নিজেরা উদ্দ্যোগ নিয়ে সারাতে শুরু করল রাস্তার ধারের কলগুলো। একজন স্কটিশ চার্চ কলেজ এবং তার সহপাঠী বেথুন কলেজের ফিজিক্স ডিপার্টমেন্টের ফাইনাল ইয়ারের পড়ুয়া।

আরও পড়ুনঃ একটি রাজনৈতিক প্রেমের গল্প, ইন্দিরা গান্ধীর জরুরি অবস্থা ও সুষমা স্বরাজের প্রেম

কোন রাজনৈতিক রঙ ছাড়াই; কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজের সামনে আর কলেজস্ট্রীট মোড়ের বেশ কিছু কল সারিয়ে দিল; তারা নিজেদের পকেটমানির টাকা থেকে। খুব অবাক হয়েই ওই পড়ুয়া জানায়; ওই এলাকায় এই কাজের জন্য, প্রেসিডেন্সি কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা কেন এতদিন কোন উদ্যোগ নেয়নি তা আশ্চর্যের।

ঋক জানায়; “প্রতিদিন শয়েশয়ে লিটার জল নষ্ট হয় সকলেই দেখতে পাই। একদিন সময় বের করে; বেরিয়ে স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদ করি; আর নলগুলো দেখে আসি। পরেরদিন ট্যাপগুলো লাগিয়ে আসি”। তারা জানায়; পরবর্তীকালে বড়বাজার আর রাজাবাজার অঞ্চলে একইভাবে কল লাগানোর ইচ্ছা আছে। ওই অঞ্চলে সবথেকে বেশি জলের অপচয় দেখা যায়। প্রথম দিকে নিজেরা উদ্যোগ নিয়ে কাজটি করলেও পরে কিছু বন্ধু আর্থিক সাহায্য করেছে বলে জানায় ঋক।

ঋক আক্ষেপের সুরে জানায়; “এলাকার লোক সময় বের করে শুধুমাত্র নিজের চত্বরের খোলা নলগুলোতেও যদি দায়িত্ব নিয়ে ট্যাপ লাগিয়ে দেন! কত লিটার ব্যবহার্য জল নষ্ট হয় তার ইয়ত্তা নেই। একটা ট্যাপ লাগাতে পাঁচমিনিটও লাগেনা! একত্রিত হয়ে করলে খরচাও যৎসামান্য”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন